ভ্রাম্যমাণ আদালতের ওপর হামলা, পুলিশসহ আহত  ৬
jugantor
ভ্রাম্যমাণ আদালতের ওপর হামলা, পুলিশসহ আহত  ৬

  দুর্গাপুর (নেত্রকোনা) প্রতিনিধি  

০৯ ডিসেম্বর ২০২০, ২২:৩২:৩৮  |  অনলাইন সংস্করণ

নেত্রকোনার দুর্গাপুরে সোমেশ্বরী নদীর ১নং বালুঘাট থেকে বাংলা ড্রেজার দিয়ে অবৈধভাবে বালু উঠানোর সময় নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট নারায়ণ চন্দ্র বর্মণের নেতৃত্বে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করা হয়। এ সময় তাদের ওপর ইটপাটকেল নিক্ষেপ করে ড্রেজার শ্রমিকরা।

বুধবার দুপুরে এ হামলা চালানো হয়। হামলায় ১ জন এসআই, ২ জন কনস্টেবল, ভূমি অফিসের ২ জন কর্মচারী ও ১ জন শ্রমিক গুরুতর আহত হন।

সরেজমিন দেখা গেছে, ওই দিন দুপুরে সোমেশ্বরী নদীতে বাংলা ড্রেজার দিয়ে অবৈধভাবে বালু উত্তোলনের সময় ভ্রাম্যমাণ আদালত ওই এলাকায় গেলে অতর্কিতভাবে শত শত শ্রমিক তাদের ওপর হামলা চালায়। হামলার একপর্যায়ে দুর্গাপুর থানার এসআই রুকন উদ্দিন (৪০), কনস্টেবল খলিলুর রহমান (৫৫), কনস্টেবল রুবেল মিয়া (৩০), ভূমি অফিস কর্মচারী নজরুল ইসলাম (৪৫), এরশাদুল ইসলাম (৩২) ও ঘাট শ্রমিক রফিক (৩৫) গুরুতর আহত হন। তারা দুর্গাপুর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

ভ্রাম্যমাণ আদালতের ওপর হামলার খবর পেয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ফারজানা খানম, নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট নারায়ণ চন্দ্র বর্মণ, এএসপি মাহমুদা শারমিন নেলী, ওসি শাহনুর এ আলমসহ টাস্কফোর্সের সদস্যরা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে প্রায় ৫০টি অবৈধ বাংলা ড্রেজার ধ্বংস করেন। সেই সঙ্গে পরবর্তী নির্দেশ না দেয়া পর্যন্ত বালুঘাটের সব কার্যক্রম বন্ধ রাখার নির্দেশ দেন।

ভ্রাম্যমাণ আদালতের ওপর হামলা, পুলিশসহ আহত  ৬

 দুর্গাপুর (নেত্রকোনা) প্রতিনিধি 
০৯ ডিসেম্বর ২০২০, ১০:৩২ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

নেত্রকোনার দুর্গাপুরে সোমেশ্বরী নদীর ১নং বালুঘাট থেকে বাংলা ড্রেজার দিয়ে অবৈধভাবে বালু উঠানোর সময় নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট নারায়ণ চন্দ্র বর্মণের নেতৃত্বে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করা হয়। এ সময় তাদের ওপর ইটপাটকেল নিক্ষেপ করে ড্রেজার শ্রমিকরা।

বুধবার দুপুরে এ হামলা চালানো হয়। হামলায় ১ জন এসআই, ২ জন কনস্টেবল, ভূমি অফিসের ২ জন কর্মচারী ও ১ জন শ্রমিক গুরুতর আহত হন।

সরেজমিন দেখা গেছে, ওই দিন দুপুরে সোমেশ্বরী নদীতে বাংলা ড্রেজার দিয়ে অবৈধভাবে বালু উত্তোলনের সময় ভ্রাম্যমাণ আদালত ওই এলাকায় গেলে অতর্কিতভাবে শত শত শ্রমিক তাদের ওপর হামলা চালায়। হামলার একপর্যায়ে দুর্গাপুর থানার এসআই রুকন উদ্দিন (৪০), কনস্টেবল খলিলুর রহমান (৫৫), কনস্টেবল রুবেল মিয়া (৩০), ভূমি অফিস কর্মচারী নজরুল ইসলাম (৪৫), এরশাদুল ইসলাম (৩২) ও ঘাট শ্রমিক রফিক (৩৫) গুরুতর আহত হন। তারা দুর্গাপুর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। 

ভ্রাম্যমাণ আদালতের ওপর হামলার খবর পেয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ফারজানা খানম, নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট নারায়ণ চন্দ্র বর্মণ, এএসপি মাহমুদা শারমিন নেলী, ওসি শাহনুর এ আলমসহ টাস্কফোর্সের সদস্যরা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে প্রায় ৫০টি অবৈধ বাংলা ড্রেজার ধ্বংস করেন। সেই সঙ্গে পরবর্তী নির্দেশ না দেয়া পর্যন্ত বালুঘাটের সব কার্যক্রম বন্ধ রাখার নির্দেশ দেন।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন