ভালুকায় স্ত্রীকে শ্বাসরোধে হত্যার পর পালাল স্বামী
jugantor
ভালুকায় স্ত্রীকে শ্বাসরোধে হত্যার পর পালাল স্বামী

  ভালুকা (ময়মনসিংহ) প্রতিনিধি  

১২ ডিসেম্বর ২০২০, ১১:৪৫:২৯  |  অনলাইন সংস্করণ

ভালুকায় স্ত্রীকে শ্বাসরোধে হত্যার পর পালাল স্বামী

ময়মনসিংহের ভালুকা উপজেলায় রিক্তা মনি (২৩) নামে এক গৃহবধূকে শ্বাসরোধে হত্যার অভিযোগ উঠেছে তার স্বামীর বিরুদ্ধে। এ ঘটনার পর ওই গৃহবধূর স্বামী মোতালেব হোসেন (৩০) পলাতক রয়েছেন বলে জানা গেছে।

ঘটনাটি ঘটে শুক্রবার রাতে উপজেলা হবিরবাড়ি ইউনিয়নের ডুবালিয়াপাড়ার নজরুল ইসলামের বাড়িতে।

নিহত রিক্তার নেত্রকোণা জেলা কেন্দুয়া উপজেলার কৃষ্ণরামপুর গ্রামের শাহীদ মিয়ার মেয়ে। তার স্বামী মোতালেব একই এলাকার আবদুল কাদেরের ছেলে।

জানা যায়, পাঁচ বছর আগে মোতালেবের সঙ্গে রিক্তার বিয়ে হয়। তার দুই বছর বয়সের তানজিনা আক্তার বুবলি নামে একটি মেয়ে রয়েছে। মোতালেব পরিবার নিয়ে ডুবালিয়াপাড়ার নজরুল ইসলামের বাড়িতে ভাড়া থাকতেন।

তার স্ত্রী রিক্ত মনি এ্যাভান্স গার্মেন্টে চাকরি করতেন। প্রায় সময়ই তাদের মধ্যে পারিবারিক বিষয় নিয়ে ঝগড়া হতো।

শুক্রবার রাতে পারিবারিক কলহের জের ধরে মোতালেব তার স্ত্রীকে চৌকির ওপর ফেলে গলায় গামছা পেঁচিয়ে শ্বাসরোধে হত্যা করে ঘরের দরজা বাইরে থেকে আটকিয়ে পালিয়ে যায়।

প্রতিবেশী শাওন রিক্তার মরদেহ চৌকির ওপর দেখতে পেয়ে আশপাশের সবাইকে ঘটনটি জানায়। এরপর থানায় খবর দিলে পুলিশ মরদেহটি উদ্ধার করে।

পাশের বাড়ির ভাড়াটিয়ারা জানান, গত তিন মাস আগে নজরুল ইসলামের বাড়ি ভাড়া নেন মোতালেব। ভাড়া থাকা অবস্থায় প্রায় সময় তাদের মধ্যে ঝগড়া লেগেই থাকতো।

মোতালেব গ্রামের বাড়িতে থাকা অবস্থায় মানুষের কাজ-কর্ম করলেও ভালুকায় আসার পর কোনো কাজ করতো না।

ভালুকা মডেল থানার ওসি মোহাম্মদ মাইন উদ্দিন জানান, নিহতের মরদেহ প্রাথমিক সুরতহাল রিপোর্ট দেখে ধারণা করা হচ্ছে, এটি একটি হত্যাকাণ্ড। নিহতের মরদেহ ময়নাতদন্তের পর বিস্তারিত বলা যাবে।

ভালুকায় স্ত্রীকে শ্বাসরোধে হত্যার পর পালাল স্বামী

 ভালুকা (ময়মনসিংহ) প্রতিনিধি 
১২ ডিসেম্বর ২০২০, ১১:৪৫ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ
ভালুকায় স্ত্রীকে শ্বাসরোধে হত্যার পর পালাল স্বামী
ফাইল ছবি

ময়মনসিংহের ভালুকা উপজেলায় রিক্তা মনি (২৩) নামে এক গৃহবধূকে শ্বাসরোধে হত্যার অভিযোগ উঠেছে তার স্বামীর বিরুদ্ধে।  এ ঘটনার পর ওই গৃহবধূর স্বামী মোতালেব হোসেন (৩০) পলাতক রয়েছেন বলে জানা গেছে।

ঘটনাটি ঘটে শুক্রবার রাতে উপজেলা হবিরবাড়ি ইউনিয়নের ডুবালিয়াপাড়ার নজরুল ইসলামের বাড়িতে।

নিহত রিক্তার নেত্রকোণা জেলা কেন্দুয়া উপজেলার কৃষ্ণরামপুর গ্রামের শাহীদ মিয়ার মেয়ে। তার স্বামী মোতালেব একই এলাকার আবদুল কাদেরের ছেলে।

জানা যায়, পাঁচ বছর আগে মোতালেবের সঙ্গে রিক্তার বিয়ে হয়। তার দুই বছর বয়সের তানজিনা আক্তার বুবলি নামে একটি মেয়ে রয়েছে।  মোতালেব পরিবার নিয়ে ডুবালিয়াপাড়ার নজরুল ইসলামের বাড়িতে ভাড়া থাকতেন।

তার স্ত্রী রিক্ত মনি এ্যাভান্স গার্মেন্টে চাকরি করতেন। প্রায় সময়ই তাদের মধ্যে পারিবারিক বিষয় নিয়ে ঝগড়া হতো।

শুক্রবার রাতে পারিবারিক কলহের জের ধরে মোতালেব তার স্ত্রীকে চৌকির ওপর ফেলে গলায় গামছা পেঁচিয়ে শ্বাসরোধে হত্যা করে ঘরের দরজা বাইরে থেকে আটকিয়ে পালিয়ে যায়।

প্রতিবেশী শাওন রিক্তার মরদেহ চৌকির ওপর দেখতে পেয়ে আশপাশের সবাইকে ঘটনটি জানায়। এরপর থানায় খবর দিলে পুলিশ মরদেহটি উদ্ধার করে।

পাশের বাড়ির ভাড়াটিয়ারা জানান, গত তিন মাস আগে নজরুল ইসলামের বাড়ি ভাড়া নেন মোতালেব। ভাড়া থাকা অবস্থায় প্রায় সময় তাদের মধ্যে ঝগড়া লেগেই থাকতো।

মোতালেব গ্রামের বাড়িতে থাকা অবস্থায় মানুষের কাজ-কর্ম করলেও ভালুকায় আসার পর কোনো কাজ করতো না।

ভালুকা মডেল থানার ওসি মোহাম্মদ মাইন উদ্দিন জানান, নিহতের মরদেহ প্রাথমিক সুরতহাল রিপোর্ট দেখে ধারণা করা হচ্ছে, এটি একটি হত্যাকাণ্ড। নিহতের মরদেহ ময়নাতদন্তের পর বিস্তারিত বলা যাবে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন