বিএসটিআই কর্মকর্তা পরিচয়ে প্রতারণা
jugantor
বিএসটিআই কর্মকর্তা পরিচয়ে প্রতারণা

  কাশিয়ানী (গোপালগঞ্জ) প্রতিনিধি  

১৩ ডিসেম্বর ২০২০, ২০:৩৬:০৮  |  অনলাইন সংস্করণ

কথিত বিএসটিআই'র অডিট অফিসার জাহিদুর রহমান ওরফে পপলু শিকদার (৪৫)।

এসএসসি পাস করেনি; তবুও টাই-স্যুট আর বেশভুষা দেখে মনে হয় বড় কোনো অফিসার। নিজেকে কখনও গোয়েন্দা পুলিশ, কখনও বিএসটিআই কর্মকর্তা, আবার কখনও সাংবাদিক, মানবাধিকার কর্মী পরিচয় দিয়ে দীর্ঘদিন ধরে সাধারণ মানুষের সাথে প্রতারণা করে আসছে।

বিএসটিআই লাইসেন্স করে দেয়ার কথা বলে বেকারিতে টাকা আনতে গিয়ে স্থানীয়দের হাতে আটক হয়েছে কথিত বিএসটিআই'র অডিট অফিসার জাহিদুর রহমান ওরফে পপলু শিকদার (৪৫)।

রোববার সকালে উপজেলার ভাটিয়াপাড়া বাজারে অবস্থিত মধুমতি বেকারি থেকে তাকে আটক করে স্থানীয়রা। তার কাছ থেকে ‘মো. অনিক হোসেন, অডিট অফিসার’ খুলনা বিভাগীয় অফিস, লেখা সম্বলিত বিএসটিআই'র একটি ভুয়া পরিচয়পত্র উদ্ধার করা হয়েছে। পরে তাকে কাশিয়ানী থানা পুলিশের কাছে সোর্পদ করেছেন স্থানীয়রা।

আটককৃত জাহিদুর রহমান কাশিয়ানী উপজেলার রামদিয়া পশ্চিমপাড়া গ্রামের মৃত আবু বক্কার শিকদারের ছেলে। আটকের বিষয়টি কাশিয়ানী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. আজিজুর রহমান নিশ্চিত করেছেন।

অনুসন্ধানে জানা গেছে, জাহিদুর রহমান দীর্ঘদিন ধরে দেশের বিভিন্ন স্থানে বিএসটিআই'র কর্মকর্তা পরিচয়ে বিস্কুট ফ্যাক্টরিতে বিএসটিআই'র লাইসেন্স করে দেয়ার কথা বলে লাখ লাখ টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে। এর আগে বাগেরহাট জেলার ফকিরহাট উপজেলার মাইটকুমরা এলাকায় অবস্থিত সাব্বির ফুড বেকারিতে গিয়ে বিএসটিআই'র অডিট অফিসার পরিচয় দিয়ে লাইসেন্স করে দেয়ার কথা বলে ২৬ হাজার টাকা হাতিয়ে নেয়। পরবর্তীতে টাকা আনতে গেলে স্থানীয়রা তাকে ধরে গণপিটুনি শেষে পুলিশে সোর্পদ করে। এ ঘটনায় বেকারির মালিক রফিকুল ইসলাম বাদী হয়ে ফকিরহাট মডেল থানায় একটি প্রতারণা মামলা দায়ের করেন।

বিএসটিআই কর্মকর্তা পরিচয়ে প্রতারণা

 কাশিয়ানী (গোপালগঞ্জ) প্রতিনিধি 
১৩ ডিসেম্বর ২০২০, ০৮:৩৬ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
কথিত বিএসটিআই'র অডিট অফিসার জাহিদুর রহমান ওরফে পপলু শিকদার (৪৫)।
কথিত বিএসটিআই'র অডিট অফিসার জাহিদুর রহমান ওরফে পপলু শিকদার (৪৫)।

এসএসসি পাস করেনি; তবুও টাই-স্যুট আর বেশভুষা দেখে মনে হয় বড় কোনো অফিসার। নিজেকে কখনও গোয়েন্দা পুলিশ, কখনও বিএসটিআই কর্মকর্তা, আবার কখনও সাংবাদিক, মানবাধিকার কর্মী পরিচয় দিয়ে দীর্ঘদিন ধরে সাধারণ মানুষের সাথে প্রতারণা করে আসছে।

বিএসটিআই লাইসেন্স করে দেয়ার কথা বলে বেকারিতে টাকা আনতে গিয়ে স্থানীয়দের হাতে আটক হয়েছে কথিত বিএসটিআই'র অডিট অফিসার জাহিদুর রহমান ওরফে পপলু শিকদার (৪৫)।

রোববার সকালে উপজেলার ভাটিয়াপাড়া বাজারে অবস্থিত মধুমতি বেকারি থেকে তাকে আটক করে স্থানীয়রা। তার কাছ থেকে ‘মো. অনিক হোসেন, অডিট অফিসার’ খুলনা বিভাগীয় অফিস, লেখা সম্বলিত বিএসটিআই'র একটি ভুয়া পরিচয়পত্র উদ্ধার করা হয়েছে। পরে তাকে কাশিয়ানী থানা পুলিশের কাছে সোর্পদ করেছেন স্থানীয়রা।

আটককৃত জাহিদুর রহমান কাশিয়ানী উপজেলার রামদিয়া পশ্চিমপাড়া গ্রামের মৃত আবু বক্কার শিকদারের ছেলে। আটকের বিষয়টি কাশিয়ানী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. আজিজুর রহমান নিশ্চিত করেছেন।

অনুসন্ধানে জানা গেছে, জাহিদুর রহমান দীর্ঘদিন ধরে দেশের বিভিন্ন স্থানে বিএসটিআই'র কর্মকর্তা পরিচয়ে বিস্কুট ফ্যাক্টরিতে বিএসটিআই'র লাইসেন্স করে দেয়ার কথা বলে লাখ লাখ টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে। এর আগে বাগেরহাট জেলার ফকিরহাট উপজেলার মাইটকুমরা এলাকায় অবস্থিত সাব্বির ফুড বেকারিতে গিয়ে বিএসটিআই'র অডিট অফিসার পরিচয় দিয়ে লাইসেন্স করে দেয়ার কথা বলে ২৬ হাজার টাকা হাতিয়ে নেয়। পরবর্তীতে টাকা আনতে গেলে স্থানীয়রা তাকে ধরে গণপিটুনি শেষে পুলিশে সোর্পদ করে। এ ঘটনায় বেকারির মালিক রফিকুল ইসলাম বাদী হয়ে ফকিরহাট মডেল থানায় একটি প্রতারণা মামলা দায়ের করেন।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন