সরকারি চাল-গম আত্মসাৎ: সিএসডি কর্মকর্তার ৫ বছরের কারাদণ্ড
jugantor
সরকারি চাল-গম আত্মসাৎ: সিএসডি কর্মকর্তার ৫ বছরের কারাদণ্ড

  খুলনা ব্যুরো  

১৪ ডিসেম্বর ২০২০, ১৫:০৩:৩০  |  অনলাইন সংস্করণ

সরকারি চাল-গম আত্মসাৎ: সিএসডি কর্মকর্তার ৫ বছরের কারাদণ্ড

খুলনায় সরকারি খাদ্যশস্য বিনষ্ট দেখিয়ে ২৮ লাখ ৭৬ হাজার টাকা আত্মসাতের ঘটনায় সাবেক উপ-খাদ্য পরিদর্শক এবং খুলনার সিএসডির ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আবদুল জব্বার হাজরাকে পাঁচ বছরের কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত।

এ সময় আদালত তাকে ২০ লাখ ৫৭ হাজার ৮৪৪ টাকা জরিমানা, অনাদায়ে আরও ৬ মাস কারাদণ্ডের নির্দেশ দেন।

সোমবার খুলনা বিভাগীয় স্পেশাল জজ আদালতের বিচারক মো. জিয়া হায়দার এ রায় ঘোষণা করেন।

আবদুল জব্বার হাজরা গোপালগঞ্জ কোটালীপড়া হরিণাবাটি গ্রামের কফিল হাজরার ছেলে। মামলার পর থেকে পলাতক তিনি।

জানা যায়, ২০০৪ সালের ১৫ জুন খালিশপুর থানায় আবদুল জব্বারের বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগে দুদকের কর্মকর্তা মো. বজলুর রহমান বাদী হয়ে মামলা করেন।

মামলার তদন্ত করেন দুদকের কর্মকর্তা মোহা. মোশাররফ হোসেন। রায় ঘোষণাকালে আবদুল জব্বার হাজরা পলাতক ছিলেন।

দুনীতি দমন কমিশন (দুদক) খুলনার সূত্র জানায়, আবদুল জব্বার হাজরা ২০০২ সালের ১ জুলাই হতে ২০০৩ সালের ৩০ জুন পর্যন্ত খুলনা সিএসডি গুদামে কর্মরত অবস্থায় ২৮ লাখ ৭৬ হাজার ২৩৩ টাকার চাল ও গম আত্মসাৎ করেন। তার বিরুদ্ধে ৪০৯ ধারাসহ ১৯৪৭ সালের দুর্নীতি প্রতিরোধ ২নং আইনের ৫(২) ধারায় আনীত অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় এ কারাদণ্ড ও জরিমানা প্রদান করা হয়েছে।

সরকারি চাল-গম আত্মসাৎ: সিএসডি কর্মকর্তার ৫ বছরের কারাদণ্ড

 খুলনা ব্যুরো 
১৪ ডিসেম্বর ২০২০, ০৩:০৩ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
সরকারি চাল-গম আত্মসাৎ: সিএসডি কর্মকর্তার ৫ বছরের কারাদণ্ড
ফাইল ছবি

খুলনায় সরকারি খাদ্যশস্য বিনষ্ট দেখিয়ে ২৮ লাখ ৭৬ হাজার টাকা আত্মসাতের ঘটনায় সাবেক উপ-খাদ্য পরিদর্শক এবং খুলনার সিএসডির ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আবদুল জব্বার হাজরাকে পাঁচ বছরের কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত।  

এ সময় আদালত তাকে ২০ লাখ ৫৭ হাজার ৮৪৪ টাকা জরিমানা, অনাদায়ে আরও ৬ মাস কারাদণ্ডের নির্দেশ দেন।

সোমবার খুলনা বিভাগীয় স্পেশাল জজ আদালতের বিচারক মো. জিয়া হায়দার এ রায় ঘোষণা করেন।

আবদুল জব্বার হাজরা গোপালগঞ্জ কোটালীপড়া হরিণাবাটি গ্রামের কফিল হাজরার ছেলে। মামলার পর থেকে পলাতক তিনি।

জানা যায়, ২০০৪ সালের ১৫ জুন খালিশপুর থানায় আবদুল জব্বারের বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগে দুদকের কর্মকর্তা মো. বজলুর রহমান বাদী হয়ে মামলা করেন।

মামলার তদন্ত করেন দুদকের কর্মকর্তা মোহা. মোশাররফ হোসেন। রায় ঘোষণাকালে আবদুল জব্বার হাজরা পলাতক ছিলেন।

দুনীতি দমন কমিশন (দুদক) খুলনার সূত্র জানায়, আবদুল জব্বার হাজরা ২০০২ সালের ১ জুলাই হতে ২০০৩ সালের ৩০ জুন পর্যন্ত খুলনা সিএসডি গুদামে কর্মরত অবস্থায় ২৮ লাখ ৭৬ হাজার ২৩৩ টাকার চাল ও গম আত্মসাৎ করেন। তার বিরুদ্ধে ৪০৯ ধারাসহ ১৯৪৭ সালের দুর্নীতি প্রতিরোধ ২নং আইনের ৫(২) ধারায় আনীত অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় এ কারাদণ্ড ও জরিমানা প্রদান করা হয়েছে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন