ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় নূরের বিরুদ্ধে মামলা
jugantor
ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় নূরের বিরুদ্ধে মামলা

  ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি  

২০ ডিসেম্বর ২০২০, ১৮:২৯:৩৫  |  অনলাইন সংস্করণ

সাবেক ডাকসু ভিপি ও ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদের প্রতিষ্ঠাতা নূরুল হক নূরের বিরুদ্ধে ব্রাহ্মণবাড়িয়া আদালতে মামলা দায়ের করা হয়েছে। রোববার দুপুরে ব্রাহ্মণবাড়িয়া সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেটের ১ম আদালতে বাদী হয়ে মামলাটি দায়ের করেন জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি রবিউল হোসেন রুবেল।

মামলায় জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক শাহাদাত হোসেন শোভনসহ ছাত্রলীগের ৬ জন নেতাকর্মীকে সাক্ষী করা হয়েছে।

মামলার এজাহারে বলা হয়, ১৬ ডিসেম্বর রাত ৮টায় নূর তার ফেসবুক আইডি থেকে সরকার ও সরকারের বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান সম্পর্কে সাধারণ মানুষকে উস্কে দেয়ার হীন-মানসিকতায় আক্রমণাত্মক মিথ্যা ভীতিপ্রদর্শক তথ্য-উপাত্ত প্রকাশ করে। যেমন- স্বাধীন বাংলাদেশ সাংবিধানিক প্রতিষ্ঠান নির্বাচন কমিশনকে 'বেহুদা কমিশন', বাংলাদেশের বৈধ নির্বাচিত সরকারকে বারবার 'অবৈধ অনির্বাচিত সরকার' বলা, বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধের নেতৃত্ব দানকারী সংগঠন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগকে 'বঙ্গবন্ধুর আদর্শ বিরোধী', বাংলাদেশ ছাত্রলীগের কর্মীদের বারবার কুলাঙ্গার বলা এবং বাংলাদেশ সরকারকে 'বিদেশি পা চাটা তাবেদার সরকার' বলে বিভিন্ন অশালীন বক্তব্য প্রকাশ করে।

এছাড়া এ মামলার বাদীকে নাম উল্লেখ করে 'মাদকাসক্ত ও ফেনসিডিল ব্যবসায়ী' বলে অসত্য মানহানিকর বক্তব্য পেশ করে। আসামি মিথ্যা ও উদ্দেশ্যপ্রণোদিতভাবে দাঙ্গা-ফ্যাসাদের মাধ্যমে দেশে অশান্ত পরিবেশ সৃষ্টি করতে ও মিথ্যা তথ্য দিয়ে বাদীর মান-সম্মান বিনষ্ট করেছে।

বাদীপক্ষের আইনজীবী একরাম হোসেন ডালিম জানান, ব্রাহ্মণবাড়িয়া সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেটের ১ম আদালতের হাকিম আয়েশা বেগম মামলাটি শুনানি করবেন। আমরা শুনানির প্রতীক্ষায় রয়েছি।

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় নূরের বিরুদ্ধে মামলা

 ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি 
২০ ডিসেম্বর ২০২০, ০৬:২৯ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

সাবেক ডাকসু ভিপি ও ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদের প্রতিষ্ঠাতা নূরুল হক নূরের বিরুদ্ধে ব্রাহ্মণবাড়িয়া আদালতে মামলা দায়ের করা হয়েছে। রোববার দুপুরে ব্রাহ্মণবাড়িয়া সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেটের ১ম আদালতে বাদী হয়ে মামলাটি দায়ের করেন জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি রবিউল হোসেন রুবেল।

মামলায় জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক শাহাদাত হোসেন শোভনসহ ছাত্রলীগের ৬ জন নেতাকর্মীকে সাক্ষী করা হয়েছে।

মামলার এজাহারে বলা হয়, ১৬ ডিসেম্বর রাত ৮টায় নূর তার ফেসবুক আইডি থেকে সরকার ও সরকারের বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান সম্পর্কে সাধারণ মানুষকে উস্কে দেয়ার হীন-মানসিকতায় আক্রমণাত্মক মিথ্যা ভীতিপ্রদর্শক তথ্য-উপাত্ত প্রকাশ করে। যেমন- স্বাধীন বাংলাদেশ সাংবিধানিক প্রতিষ্ঠান নির্বাচন কমিশনকে 'বেহুদা কমিশন', বাংলাদেশের বৈধ নির্বাচিত সরকারকে বারবার 'অবৈধ অনির্বাচিত সরকার' বলা, বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধের নেতৃত্ব দানকারী সংগঠন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগকে 'বঙ্গবন্ধুর আদর্শ বিরোধী', বাংলাদেশ ছাত্রলীগের কর্মীদের বারবার কুলাঙ্গার বলা এবং বাংলাদেশ সরকারকে 'বিদেশি পা চাটা তাবেদার সরকার' বলে বিভিন্ন অশালীন বক্তব্য প্রকাশ করে।

এছাড়া এ মামলার বাদীকে নাম উল্লেখ করে 'মাদকাসক্ত ও ফেনসিডিল ব্যবসায়ী' বলে অসত্য মানহানিকর বক্তব্য পেশ করে। আসামি মিথ্যা ও উদ্দেশ্যপ্রণোদিতভাবে দাঙ্গা-ফ্যাসাদের মাধ্যমে দেশে অশান্ত পরিবেশ সৃষ্টি করতে ও মিথ্যা তথ্য দিয়ে বাদীর মান-সম্মান বিনষ্ট করেছে।

বাদীপক্ষের আইনজীবী একরাম হোসেন ডালিম জানান, ব্রাহ্মণবাড়িয়া সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেটের ১ম আদালতের হাকিম আয়েশা বেগম মামলাটি শুনানি করবেন। আমরা শুনানির প্রতীক্ষায় রয়েছি।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন