খুলনায় বিএনপির সাবেক এমপি মঞ্জুর ‘বারান্দা বাগান’
jugantor
খুলনায় বিএনপির সাবেক এমপি মঞ্জুর ‘বারান্দা বাগান’

  নূর ইসলাম রকি, খুলনা  

২১ ডিসেম্বর ২০২০, ২২:০০:৫০  |  অনলাইন সংস্করণ

মহানগরীর মিয়াপাড়ার মেইন রোডের ৫১/২নং ভাড়া বাড়িতে থাকেন খুলনা-২ আসনের সাবেক এমপি মহানগর বিএনপির সভাপতি এবং কেন্দ্রীয় বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক নজরুল ইসলাম মঞ্জু। ভাড়া বাড়িতে নেই ছাদ। তাই শখ করে করেছেন বারান্দা বাগান।

বাগানের পরিচর্যাসহ দেখভাল করছেন তার স্ত্রী অ্যাডভোকেট সৈয়দ সাবিহা। দেশি-বিদেশি শতাধিক গাছ রয়েছে বাগানে। তিনি বিভিন্ন প্রকারের চারা সংগ্রহ এবং গাছে পানি দিয়ে সহযোগিতা করেন।

সোমবার সকালে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকের ভেরিফাইড আইডিতে নিজেই ‘বারান্দা বাগানের' বিষয়ে কয়েকটি ছবি এবং স্ট্যাটাস দেন। এরপর থেকে বিষয়টি দিনভর ফেসবুকে ভাইরাল হয়ে যায়।

এ বিষয়ে সাবেক এমপির স্ত্রী অ্যাডভোকেট সৈয়দ সাবিহা বিকালে যুগান্তরকে জানান, বাগানের শখ তার বিয়ের আগে থেকেই। বাগান তার খুবই পছন্দ। তার মা সৈয়দা ফিরোজা বেগমের অনুপ্রেরণায় তিনি বিয়ের আগে থেকেই বাগান করা শিখেছেন। সেই থেকে শখটা এখনও রয়েছে। যেহেতু ভাড়া বাড়িতে থাকি তাই পর্যাপ্ত জায়গা বা ছাদ পাওয়া যায় না। তাই ঘরের ভিতর এবং বারান্দায় বিভিন্ন টপে করে বাগান করে আসছি।

তিনি জানান, তার ছেলেমেয়ে দুইজন ঢাকায় থাকায় তিনি বারান্দা বাগানে বেশ সময় দিতে পারেন। তবে তার স্বামী সাবেক এমপি ও বিএনপি নেতা গাছ সম্পর্কে খুব ভালো না জানলেও প্রতিনিয়ত গাছ পরিচর্যা করেন। বিশেষ করে সকালে গাছের পানি এমপি সাহেবই দেন। এছাড়া দূর-দূরান্ত থেকেও আমার বাগানের জন্য গাছ সংগ্রহ করে আনেন।

তিনি আরও বলেন, পাতাবাহারি গাছ আমার খুবই পছন্দ। বারান্দা বাগানে (দোতলায়) জিজি প্লান্ট, লাভার্স টিয়ারস, বেবি রাবার, মোনস্টারা, ক্যাকটাস, বনসা বাঁশ, থাইল্যান্ড লাকি বাম্বুসহ প্রায় শতাধিক দেশি-বিদেশি গাছ রয়েছে।

নজরুল ইসলাম মঞ্জুর ভেরিফাইড ফেসবুকের স্ট্যাটাসটি হুবহু তুলে ধরা হল-

আমাদের বারান্দা বাগান

‘ভাড়া বাড়িতে ছাদ পাওয়া যায় না তাই বারান্দা বাগান, তবে বারান্দা, উঠান সিঁড়ি ও ঘরের ভেতর সব মিলিয়ে প্রায় শতাধিক গাছের সংগ্রহ, মালিক অবশ্য আমার স্ত্রী অ্যাডভোকেট সৈয়দা সাবিহা; আমি শুধুমাত্র পানি দেই বাকিটা সব সাবিহার কৃতিত্ব।

প্রফেসর তারেক কয়েকদিন আগে ফুলতলার কর্মীদের দিয়ে গাঁদা ফুলের চারা পাঠিয়েছিল; সেই গাছে ফুল ফুটে বাগানের শোভা বেড়েছে। ধন্যবাদ তারেককে। আর গত বছর সকালে হাঁটতে গিয়ে বাবু খান রোডের শেষ মাথার নার্সারির মালিক একটা লাল সবুজ পাতার গাছ দেখিয়ে বলল- ভাই গাছটি নিয়ে যান এ গাছটির সে নাম দিয়েছে লাল-সবুজের পতাকা; সত্যি তো সারা বছর গাছটি সবুজ ছিল ডিসেম্বর মাসে ডগার কিছু পাতা লাল বর্ণ ধারণ করেছে। আমি অবশ্য বেশিরভাগ গাছের নাম জানি না, তবে ইচ্ছে আছে নাম জানার।

আসুন গাছকে ভালোবাসি বাড়ির আঙিনায় গাছ লাগাই, পরিচর্যা করি মন ও শরীর দুটোই ভালো থাকবে।’

খুলনায় বিএনপির সাবেক এমপি মঞ্জুর ‘বারান্দা বাগান’

 নূর ইসলাম রকি, খুলনা 
২১ ডিসেম্বর ২০২০, ১০:০০ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

মহানগরীর মিয়াপাড়ার মেইন রোডের ৫১/২নং ভাড়া বাড়িতে থাকেন খুলনা-২ আসনের সাবেক এমপি মহানগর বিএনপির সভাপতি এবং কেন্দ্রীয় বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক নজরুল ইসলাম মঞ্জু। ভাড়া বাড়িতে নেই ছাদ। তাই শখ করে করেছেন বারান্দা বাগান।

বাগানের পরিচর্যাসহ দেখভাল করছেন তার স্ত্রী অ্যাডভোকেট সৈয়দ সাবিহা। দেশি-বিদেশি শতাধিক গাছ রয়েছে বাগানে। তিনি বিভিন্ন প্রকারের চারা সংগ্রহ এবং গাছে পানি দিয়ে সহযোগিতা করেন।

সোমবার সকালে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকের ভেরিফাইড আইডিতে নিজেই ‘বারান্দা বাগানের' বিষয়ে কয়েকটি ছবি এবং স্ট্যাটাস দেন। এরপর থেকে বিষয়টি দিনভর ফেসবুকে ভাইরাল হয়ে যায়।

এ বিষয়ে সাবেক এমপির স্ত্রী অ্যাডভোকেট সৈয়দ সাবিহা বিকালে যুগান্তরকে জানান, বাগানের শখ তার বিয়ের আগে থেকেই। বাগান তার খুবই পছন্দ। তার মা সৈয়দা ফিরোজা বেগমের অনুপ্রেরণায় তিনি বিয়ের আগে থেকেই বাগান করা শিখেছেন। সেই থেকে শখটা এখনও রয়েছে। যেহেতু ভাড়া বাড়িতে থাকি তাই পর্যাপ্ত জায়গা বা ছাদ পাওয়া যায় না। তাই ঘরের ভিতর এবং বারান্দায় বিভিন্ন টপে করে বাগান করে আসছি।

তিনি জানান, তার ছেলেমেয়ে দুইজন ঢাকায় থাকায় তিনি বারান্দা বাগানে বেশ সময় দিতে পারেন। তবে তার স্বামী সাবেক এমপি ও বিএনপি নেতা গাছ সম্পর্কে খুব ভালো না জানলেও প্রতিনিয়ত গাছ পরিচর্যা করেন। বিশেষ করে সকালে গাছের পানি এমপি সাহেবই দেন। এছাড়া দূর-দূরান্ত থেকেও আমার বাগানের জন্য গাছ সংগ্রহ করে আনেন।

তিনি আরও বলেন, পাতাবাহারি গাছ আমার খুবই পছন্দ। বারান্দা বাগানে (দোতলায়) জিজি প্লান্ট, লাভার্স টিয়ারস, বেবি রাবার, মোনস্টারা, ক্যাকটাস, বনসা বাঁশ, থাইল্যান্ড লাকি বাম্বুসহ প্রায় শতাধিক দেশি-বিদেশি গাছ রয়েছে।

নজরুল ইসলাম মঞ্জুর ভেরিফাইড ফেসবুকের স্ট্যাটাসটি হুবহু তুলে ধরা হল-

আমাদের বারান্দা বাগান 

‘ভাড়া বাড়িতে ছাদ পাওয়া যায় না তাই বারান্দা বাগান, তবে বারান্দা, উঠান সিঁড়ি ও ঘরের ভেতর সব মিলিয়ে প্রায় শতাধিক গাছের সংগ্রহ, মালিক অবশ্য আমার স্ত্রী অ্যাডভোকেট সৈয়দা সাবিহা; আমি শুধুমাত্র পানি দেই বাকিটা সব সাবিহার কৃতিত্ব।

প্রফেসর তারেক কয়েকদিন আগে ফুলতলার কর্মীদের দিয়ে গাঁদা ফুলের চারা পাঠিয়েছিল; সেই গাছে ফুল ফুটে বাগানের শোভা বেড়েছে। ধন্যবাদ তারেককে। আর গত বছর সকালে হাঁটতে গিয়ে বাবু খান রোডের শেষ মাথার নার্সারির মালিক একটা লাল সবুজ পাতার গাছ দেখিয়ে বলল- ভাই গাছটি নিয়ে যান এ গাছটির সে নাম দিয়েছে লাল-সবুজের পতাকা; সত্যি তো সারা বছর গাছটি সবুজ ছিল ডিসেম্বর মাসে ডগার কিছু পাতা লাল বর্ণ ধারণ করেছে। আমি অবশ্য বেশিরভাগ গাছের নাম জানি না, তবে ইচ্ছে আছে নাম জানার।

আসুন গাছকে ভালোবাসি বাড়ির আঙিনায় গাছ লাগাই, পরিচর্যা করি মন ও শরীর দুটোই ভালো থাকবে।’

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন