রাজারহাটে মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসারসহ সুপার অবরুদ্ধ, এলাকাবাসীর বিক্ষোভ
jugantor
রাজারহাটে মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসারসহ সুপার অবরুদ্ধ, এলাকাবাসীর বিক্ষোভ

  রাজারহাট (কুড়িগ্রাম) প্রতিনিধি  

২৩ ডিসেম্বর ২০২০, ১৮:৫১:৫৪  |  অনলাইন সংস্করণ

বিক্ষুব্ধ এলাকাবাসী ডিজির প্রতিনিধি,উপজেলা শিক্ষা অফিসার ও প্রতারক সুপারকে অবরুদ্ধ করে বিক্ষোভ প্রদর্শন করেন।

কুড়িগ্রামের রাজারহাট উপজেলার ছিনাই ইউনিয়নের মহিধর আবু তাহের দাখিল মাদরাসার সুপার মজিবুর রহমানের অভিনব কৌশল অবলম্বন করে গোপনে আয়া ও নিরাপত্তা প্রহরী নিয়োগের পাঁয়তারা ফাঁস হওয়ায় বিক্ষুব্ধ এলাকাবাসী ডিজির প্রতিনিধি,উপজেলা শিক্ষা অফিসার ও প্রতারক সুপারকে অবরুদ্ধ করে বিক্ষোভ প্রদর্শন করেন।

খবর পেয়ে রাজারহাট থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে শিক্ষা অফিসার ও সুপারকে উদ্ধার করে। এ সময় ডিজির প্রতিনিধি তাৎক্ষণিকভাবে মাদ্রাসা থেকে সটকে পড়েন।

সরেজমিন জানা যায়,২০১৮ সালের জনবল কাঠামো অনুযায়ী প্রতিটি দাখিল মাদ্রাসায় ১ জন আয়া ও ১ জন নিরাপত্তা প্রহরীর পদ সৃষ্টি করা হয়। বিজ্ঞপ্তি প্রকাশের পর আবেদনকারী প্রার্থীদের নিয়োগ পরীক্ষার একদিন আগে অর্থাৎ ২১ ডিসেম্বর সোমবার মহিধর আবু তাহের দাখিল মাদরাসার সুপার নিয়োগ পরীক্ষার ভেন্যু প্রবেশপত্রে সৈয়দপুর লায়ন্স স্কুল অ্যান্ড কলেজে সকাল ১০ ঘটিকায় নির্ধারণ করে প্রার্থীদের মাঝে প্রবেশপত্র বিতরণ করেন। কিন্তু ২২ ডিসেম্বর মঙ্গলবার বিকাল ৩ ঘটিকায় সৈয়দপুরে অবস্থানরত প্রার্থীদের বাদ দিয়ে সুপার ও সভাপতির পছন্দের প্রার্থীদের পরীক্ষা উক্ত প্রতিষ্ঠানে গ্রহণ করার চেষ্টা করে সুচতুর সুপার মজিবুর রহমান। সুপার মজিবুর রহমান ও ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি নুরুজ্জামান হক বুলু উক্ত প্রতিষ্ঠানে আয়া ও নিরাপত্তা প্রহরী পদ দুটিতে ১৫ লাখ টাকা তাদের পছন্দের দুই প্রার্থীর কাছ থেকে নেয়ার অভিযোগ উঠেছে।

সুপার মঙ্গলবার বিকাল ৩ ঘটিকায় ডিজির মনোনীত প্রতিনিধি ও রাজারহাট উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার আশরাফ-উজ-জামানকে নিয়ে চুপিসারে নিয়োগ পরীক্ষা সম্পন্ন করতে মাদ্রাসা প্রাঙ্গণে পৌঁছলে সৈয়দপুরে অবস্থানরত প্রার্থীদের অভিভাবক ও বিক্ষুব্ধ এলাকাবাসী তাদের অবরুদ্ধ করে রাখেন।

পরে সুপার মজিবুর রহমান ও ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি ইউপি চেয়ারম্যান নুরুজ্জামান হক বুলু ও উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার অত্র প্রতিষ্ঠানের অফিস কক্ষে জরুরি বৈঠক করে তাৎক্ষণিকভাবে অনির্দিষ্টকালের জন্য নিয়োগ পরীক্ষা স্থগিত করে নোটিশ টাঙিয়ে দিয়ে জনরোষ থেকে রক্ষা পান।

প্রতারিত নিয়োগ পরীক্ষার্থী মো. আমিনুল ইসলাম ও মো. মমিনুল ইসলাম সাংবাদিকদের বলেন, একই পরিবারের তিনজন চাকরি করার পরও ওই পরিবার থেকে আয়া পদে পুনরায় নিয়োগ দানের জন্য সুপার অত্র প্রতিষ্ঠানের নৈশপ্রহরী মুসা আলমের ভাবি নুপুর ও নিরাপত্তা প্রহরী পদে তার আপন ভাগিনা রিপন মিয়াকে মোটা অংকের উৎকোচের বিনিময়ে মনোনীত করেছেন। এ খবর জানাজানি হলে ওই দিন সুপারের অপকর্মের বিরুদ্ধে রাজারহাট উপজেলা নির্বাহী অফিসারসহ বিভিন্ন দফতরে ভুক্তভোগী নিয়োগ পরীক্ষার্থী ও স্থানীয় নারী সংরক্ষিত ওয়ার্ডের সদস্য মোছা. দুলালী বেগম সুপারের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবিসহ নিয়োগ বন্ধে পৃথক লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন।

এ বিষয়ে সুপার মজিবুর রহমান বলেন,আমি কোনো প্রার্থীর কাছ থেকে টাকা নেইনিসভাপতি নিয়োগ পরীক্ষা সম্পন্ন করতে আমাকে ১ লাখ টাকা দিয়েছেন। ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি ইউপি চেয়ারম্যান নুরুজ্জামান হক বুলুর মুঠোফোনে একাধিকবার যোগাযোগ করেও তাকে ফোনে পাওয়া যায়নি।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার নূরে তাসনিম বলেন,অভিযোগ পেয়েছি তদন্তপূর্বক আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

রাজারহাটে মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসারসহ সুপার অবরুদ্ধ, এলাকাবাসীর বিক্ষোভ

 রাজারহাট (কুড়িগ্রাম) প্রতিনিধি 
২৩ ডিসেম্বর ২০২০, ০৬:৫১ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
বিক্ষুব্ধ এলাকাবাসী ডিজির প্রতিনিধি,উপজেলা শিক্ষা অফিসার ও প্রতারক সুপারকে অবরুদ্ধ করে বিক্ষোভ প্রদর্শন করেন।
বিক্ষুব্ধ এলাকাবাসী ডিজির প্রতিনিধি,উপজেলা শিক্ষা অফিসার ও প্রতারক সুপারকে অবরুদ্ধ করে বিক্ষোভ প্রদর্শন করেন।

কুড়িগ্রামের রাজারহাট উপজেলার ছিনাই ইউনিয়নের মহিধর আবু তাহের দাখিল মাদরাসার সুপার মজিবুর রহমানের অভিনব কৌশল অবলম্বন করে গোপনে আয়া ও নিরাপত্তা প্রহরী নিয়োগের পাঁয়তারা ফাঁস হওয়ায় বিক্ষুব্ধ এলাকাবাসী ডিজির প্রতিনিধি,উপজেলা শিক্ষা অফিসার ও প্রতারক সুপারকে অবরুদ্ধ করে বিক্ষোভ প্রদর্শন করেন।

খবর পেয়ে রাজারহাট থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে শিক্ষা অফিসার ও সুপারকে উদ্ধার করে। এ সময় ডিজির প্রতিনিধি তাৎক্ষণিকভাবে মাদ্রাসা থেকে সটকে পড়েন।

সরেজমিন জানা যায়,২০১৮ সালের জনবল কাঠামো অনুযায়ী প্রতিটি দাখিল মাদ্রাসায় ১ জন আয়া ও ১ জন নিরাপত্তা প্রহরীর পদ সৃষ্টি করা হয়। বিজ্ঞপ্তি প্রকাশের পর আবেদনকারী প্রার্থীদের নিয়োগ পরীক্ষার একদিন আগে অর্থাৎ ২১ ডিসেম্বর সোমবার মহিধর আবু তাহের দাখিল মাদরাসার সুপার নিয়োগ পরীক্ষার ভেন্যু প্রবেশপত্রে সৈয়দপুর লায়ন্স স্কুল অ্যান্ড কলেজে সকাল ১০ ঘটিকায় নির্ধারণ করে প্রার্থীদের মাঝে প্রবেশপত্র বিতরণ করেন। কিন্তু ২২ ডিসেম্বর মঙ্গলবার বিকাল ৩ ঘটিকায় সৈয়দপুরে অবস্থানরত প্রার্থীদের বাদ দিয়ে সুপার ও সভাপতির পছন্দের প্রার্থীদের পরীক্ষা উক্ত প্রতিষ্ঠানে গ্রহণ করার চেষ্টা করে সুচতুর সুপার মজিবুর রহমান। সুপার মজিবুর রহমান ও ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি নুরুজ্জামান হক বুলু উক্ত প্রতিষ্ঠানে আয়া ও নিরাপত্তা প্রহরী পদ দুটিতে ১৫ লাখ টাকা তাদের পছন্দের দুই প্রার্থীর কাছ থেকে নেয়ার অভিযোগ উঠেছে।

সুপার মঙ্গলবার বিকাল ৩ ঘটিকায় ডিজির মনোনীত প্রতিনিধি ও রাজারহাট উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার আশরাফ-উজ-জামানকে নিয়ে চুপিসারে নিয়োগ পরীক্ষা সম্পন্ন করতে মাদ্রাসা প্রাঙ্গণে পৌঁছলে সৈয়দপুরে অবস্থানরত প্রার্থীদের অভিভাবক ও বিক্ষুব্ধ এলাকাবাসী তাদের অবরুদ্ধ করে রাখেন।

পরে সুপার মজিবুর রহমান ও ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি ইউপি চেয়ারম্যান নুরুজ্জামান হক বুলু ও উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার অত্র প্রতিষ্ঠানের অফিস কক্ষে জরুরি বৈঠক করে তাৎক্ষণিকভাবে অনির্দিষ্টকালের জন্য নিয়োগ পরীক্ষা স্থগিত করে নোটিশ টাঙিয়ে দিয়ে জনরোষ থেকে রক্ষা পান।

প্রতারিত নিয়োগ পরীক্ষার্থী মো. আমিনুল ইসলাম ও মো. মমিনুল ইসলাম সাংবাদিকদের বলেন, একই পরিবারের তিনজন চাকরি করার পরও ওই পরিবার থেকে আয়া পদে পুনরায় নিয়োগ দানের জন্য সুপার অত্র প্রতিষ্ঠানের নৈশপ্রহরী মুসা আলমের ভাবি নুপুর ও নিরাপত্তা প্রহরী পদে তার আপন ভাগিনা রিপন মিয়াকে মোটা অংকের উৎকোচের বিনিময়ে মনোনীত করেছেন। এ খবর জানাজানি হলে ওই দিন সুপারের অপকর্মের বিরুদ্ধে রাজারহাট উপজেলা নির্বাহী অফিসারসহ বিভিন্ন দফতরে ভুক্তভোগী নিয়োগ পরীক্ষার্থী ও স্থানীয় নারী সংরক্ষিত ওয়ার্ডের সদস্য মোছা. দুলালী বেগম সুপারের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবিসহ নিয়োগ বন্ধে পৃথক লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন।

এ বিষয়ে সুপার মজিবুর রহমান বলেন,আমি কোনো প্রার্থীর কাছ থেকে টাকা নেইনিসভাপতি নিয়োগ পরীক্ষা সম্পন্ন করতে আমাকে ১ লাখ টাকা দিয়েছেন। ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি ইউপি চেয়ারম্যান নুরুজ্জামান হক বুলুর মুঠোফোনে একাধিকবার যোগাযোগ করেও তাকে ফোনে পাওয়া যায়নি।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার নূরে তাসনিম বলেন,অভিযোগ পেয়েছি তদন্তপূর্বক আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন