বোরখা পরে কিশোরকে গলা কেটে হত্যা
jugantor
বোরখা পরে কিশোরকে গলা কেটে হত্যা

  বগুড়া ব্যুরো  

২৯ ডিসেম্বর ২০২০, ১৯:৩৩:১৭  |  অনলাইন সংস্করণ

নিহত কিশোর

বগুড়ার শাজাহানপুরে পাখি ধরার নামে ডেকে নিয়ে পারভেজ মোশাররফ বাপ্পী (১৪) নামে এক কিশোরকে গলা কেটে হত্যা করা হয়েছে।

সোমবার রাতে উপজেলার খরনা ইউনিয়নের গয়নাকুড়ি গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। এ সময় তার বন্ধু সাহেব আলী (১৭) ছুরিকাঘাতে আহত হয়েছে। হামলাকারীরা বোরখা পরিহিত ছিল।

নিহত পারভেজ মোশাররফ বাপ্পী শাজাহানপুর উপজেলার গয়নাকুড়ি গ্রামের মোকছেদ আলী ড্রাইভারের ছেলে। সে মাঝিরা সেনানিবাসের এক অফিসারের বাড়িতে ব্যাগম্যান হিসেবে কাজ করত।

পুলিশ ও স্থানীয়রা জানান, বাপ্পী ১০-১২ দিন আগে বাড়িতে আসে। সে প্রতিরাতে অতিথি পাখি শিকারে বের হতো। সোমবার রাত ১১টার দিকে কে বা কারা ফোনে তাকে পাখি ও মাছ ধরার জন্য ডাক দেয়।

বাপ্পী তার বন্ধু একই গ্রামের আহম্মদ আলীর ছেলে সাহেব আলীকে সঙ্গে নিয়ে গ্রামের একটি ফাঁকা মাঠে যায়। এ সময় দুর্বৃত্তরা তাদের উপর হামলা চালায়।

ধারালো অস্ত্র দিয়ে বাপ্পীর ঘাড়ের পিছন থেকে গলা কেটে ফেলা হয়। ছুরিকাঘাতে আহত সাহেব আলী দৌড়ে বাপ্পীর বাড়িতে গিয়ে খবর দেয়। পরিবারের সদস্যরা বাপ্পী ও সাহেব আলীকে উদ্ধার করে বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ (শজিমেক) হাসপাতালে নিয়ে যায়। সেখানে চিকিৎসক বাপ্পীকে মৃত ঘোষণা করেন।

হাসপাতালে চিকিৎসাধীন সাহেব আলী জানায়, মাঠে বোরকা পরিহিত তিনজন তাদের ছুরিকাঘাত করে।

ওসি আজিম উদ্দিন জানান, নিহত কিশোরের লাশ মর্গে পাঠানো হয়েছে। তাৎক্ষণিকভাবে এ হত্যাকাণ্ডের কারণ জানা যায়নি। হামলাকারীদের গ্রেফতারে কাজ চলছে।

বোরখা পরে কিশোরকে গলা কেটে হত্যা

 বগুড়া ব্যুরো 
২৯ ডিসেম্বর ২০২০, ০৭:৩৩ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
নিহত কিশোর
নিহত কিশোর। ছবি: সংগৃহীত

বগুড়ার শাজাহানপুরে পাখি ধরার নামে ডেকে নিয়ে পারভেজ মোশাররফ বাপ্পী (১৪) নামে এক কিশোরকে গলা কেটে হত্যা করা হয়েছে। 

সোমবার রাতে উপজেলার খরনা ইউনিয়নের গয়নাকুড়ি গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। এ সময় তার বন্ধু সাহেব আলী (১৭) ছুরিকাঘাতে আহত হয়েছে। হামলাকারীরা বোরখা পরিহিত ছিল। 

নিহত পারভেজ মোশাররফ বাপ্পী শাজাহানপুর উপজেলার গয়নাকুড়ি গ্রামের মোকছেদ আলী ড্রাইভারের ছেলে। সে মাঝিরা সেনানিবাসের এক অফিসারের বাড়িতে ব্যাগম্যান হিসেবে কাজ করত।

পুলিশ ও স্থানীয়রা জানান, বাপ্পী ১০-১২ দিন আগে বাড়িতে আসে। সে প্রতিরাতে অতিথি পাখি শিকারে বের হতো। সোমবার রাত ১১টার দিকে কে বা কারা ফোনে তাকে পাখি ও মাছ ধরার জন্য ডাক দেয়। 

বাপ্পী তার বন্ধু একই গ্রামের আহম্মদ আলীর ছেলে সাহেব আলীকে সঙ্গে নিয়ে গ্রামের একটি ফাঁকা মাঠে যায়। এ সময় দুর্বৃত্তরা তাদের উপর হামলা চালায়। 

ধারালো অস্ত্র দিয়ে বাপ্পীর ঘাড়ের পিছন থেকে গলা কেটে ফেলা হয়। ছুরিকাঘাতে আহত সাহেব আলী দৌড়ে বাপ্পীর বাড়িতে গিয়ে খবর দেয়। পরিবারের সদস্যরা বাপ্পী ও সাহেব আলীকে উদ্ধার করে বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ (শজিমেক) হাসপাতালে নিয়ে যায়। সেখানে চিকিৎসক বাপ্পীকে মৃত ঘোষণা করেন। 

হাসপাতালে চিকিৎসাধীন সাহেব আলী জানায়, মাঠে বোরকা পরিহিত তিনজন তাদের ছুরিকাঘাত করে। 

ওসি আজিম উদ্দিন জানান, নিহত কিশোরের লাশ মর্গে পাঠানো হয়েছে। তাৎক্ষণিকভাবে এ হত্যাকাণ্ডের কারণ জানা যায়নি। হামলাকারীদের গ্রেফতারে কাজ চলছে।

 
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন