লাইনে দাঁড়াতে বলায় ডাক্তারকে মারপিট
jugantor
লাইনে দাঁড়াতে বলায় ডাক্তারকে মারপিট

  ফরিদপুর ব্যুরো  

৩০ ডিসেম্বর ২০২০, ২২:৪৯:৫০  |  অনলাইন সংস্করণ

ফরিদপুরের নগরকান্দা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে শিশুকে টিকা দিতে লাইনে দাঁড়াতে বলায় ডাক্তারকে মারপিট করে আহত করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। বুধবার দুপুরে এ ঘটনায় হাসপাতালের কিছু আসবাবপত্র ভাংচুর করা হয়। সেই সঙ্গে হাসপাতালের একজন নার্স ও অফিস সহকারীকেও মারপিট করা হয়।

অভিযোগে জানা গেছে, বুধবার দুপুরে নগরকান্দা পৌরসভার সাবেক মেয়র প্রয়াত রায়হান উদ্দিন মিয়ার নাতনিকে টিকা দিতে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসেন শিশুটির মা। সেখানে ভিড় থাকার কারণে কর্তব্যরত নার্স রেখা খানম তাকে লাইনে দাঁড়াতে বলেন। এতে তিনি রাগান্বিত হয়ে তার ভাইকে ফোন করে হাসপাতালে আনেন।

ভাই আলামিন মিয়া তার সঙ্গীয় ১০-১২ জন সহযোগী নিয়ে হাসপাতালে হামলা চালায়। এ সময় কর্তব্যরত নার্স রেখা খানমকে শারীরিকভাবে লাঞ্ছিত করা হয়। পরে বিষয়টি নিয়ে মীমাংসা করার স্বার্থে অফিস কক্ষে এক আলোচনায় বসে। কক্ষের মধ্যে আবারও উত্তেজিত হয়ে হাসপাতালের মেডিকেল অফিসার ডা. জ্যোতির্ময় চৌধুরীকে লাঞ্ছিত করা হয়।

এ সময় অফিস সহকারী ইখলাছ হোসেন ঘটনাটি মোবাইলে ভিডিও ধারণ করতে চেষ্টা করলে হামলা চালিয়ে তাকেও আহত করা হয়। সংবাদ পেয়ে নগরকান্দা থানা পুলিশ উপস্থিত হলে হামলাকারীরা কৌশলে পালিয়ে যায়।

এ সময় পুলিশ যুবলীগ কর্মী আলামিন মিয়া, আনোয়ার হোসেন ও ছাত্রলীগ কর্মী রুবেল মিয়াকে আটক করে। এ ব্যাপারে ডা. জ্যোতির্ময় চৌধুরী বাদী হয়ে নগরকান্দা থানায় অভিযোগ দায়ের করেছেন।

নগরকান্দা থানার ওসি শেখ মো. সোহেল রানা বলেন, পুলিশ উপস্থিত হয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। অভিযোগ পেয়েছি তদন্তপূর্বক আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে। আটককৃতদের আদালতে প্রেরণ করা হবে।

লাইনে দাঁড়াতে বলায় ডাক্তারকে মারপিট

 ফরিদপুর ব্যুরো 
৩০ ডিসেম্বর ২০২০, ১০:৪৯ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

ফরিদপুরের নগরকান্দা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে শিশুকে টিকা দিতে লাইনে দাঁড়াতে বলায় ডাক্তারকে মারপিট করে আহত করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। বুধবার দুপুরে এ ঘটনায় হাসপাতালের কিছু আসবাবপত্র ভাংচুর করা হয়। সেই সঙ্গে হাসপাতালের একজন নার্স ও অফিস সহকারীকেও মারপিট করা হয়।

অভিযোগে জানা গেছে, বুধবার দুপুরে নগরকান্দা পৌরসভার সাবেক মেয়র প্রয়াত রায়হান উদ্দিন মিয়ার নাতনিকে টিকা দিতে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসেন শিশুটির মা। সেখানে ভিড় থাকার কারণে কর্তব্যরত নার্স রেখা খানম তাকে লাইনে দাঁড়াতে বলেন। এতে তিনি রাগান্বিত হয়ে তার ভাইকে ফোন করে হাসপাতালে আনেন।

ভাই আলামিন মিয়া তার সঙ্গীয় ১০-১২ জন সহযোগী নিয়ে হাসপাতালে হামলা চালায়। এ সময় কর্তব্যরত নার্স রেখা খানমকে শারীরিকভাবে লাঞ্ছিত  করা হয়। পরে বিষয়টি নিয়ে মীমাংসা করার স্বার্থে অফিস কক্ষে এক আলোচনায় বসে। কক্ষের মধ্যে আবারও উত্তেজিত হয়ে হাসপাতালের মেডিকেল অফিসার ডা. জ্যোতির্ময় চৌধুরীকে লাঞ্ছিত করা হয়।

এ সময় অফিস সহকারী ইখলাছ হোসেন ঘটনাটি মোবাইলে ভিডিও ধারণ করতে চেষ্টা করলে হামলা চালিয়ে তাকেও আহত করা হয়। সংবাদ পেয়ে নগরকান্দা থানা পুলিশ উপস্থিত হলে হামলাকারীরা কৌশলে পালিয়ে যায়।

এ সময় পুলিশ যুবলীগ কর্মী আলামিন মিয়া, আনোয়ার হোসেন ও ছাত্রলীগ কর্মী রুবেল মিয়াকে আটক করে। এ ব্যাপারে ডা. জ্যোতির্ময় চৌধুরী বাদী হয়ে নগরকান্দা থানায় অভিযোগ দায়ের করেছেন।

নগরকান্দা থানার ওসি শেখ মো. সোহেল রানা বলেন, পুলিশ উপস্থিত হয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। অভিযোগ পেয়েছি তদন্তপূর্বক আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে। আটককৃতদের আদালতে প্রেরণ করা হবে।

 
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন