নাম ঘোষণা নিয়ে ছাত্রলীগের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী অনুষ্ঠানে তুলকালাম
jugantor
নাম ঘোষণা নিয়ে ছাত্রলীগের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী অনুষ্ঠানে তুলকালাম

  কালকিনি (মাদারীপুর) প্রতিনিধি  

০৪ জানুয়ারি ২০২১, ১৯:০১:৫৯  |  অনলাইন সংস্করণ

জুনিয়র ছাত্রলীগ নেতাদের নাম আগে মাইকে ঘোষণা দেয়ার জের ধরে মাদারীপুরের কালকিনিতে ছাত্রলীগের ৭৩তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী অনুষ্ঠানে তুলকালাম কাণ্ড ঘটেছে। চেয়ার ছোড়াছুড়ি ও ভাংচুরের পর পুরো অনুষ্ঠানে উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে।

সোমবার দুপুরে এ ঘটনা ঘটে। পরে আওয়ামী লীগ নেতাদের হস্তক্ষেপে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনা হয়।

সরেজমিন পুলিশ ও নেতাকর্মী সূত্রে জানা গেছে, ছাত্রলীগের ৭৩তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে কালকিনি উপজেলা, পৌর ও কলেজ ছাত্রলীগের যৌথ উদ্যোগে সকালে উপজেলার প্রধান-প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে বর্ণাঢ্য র‌্যালি অনুষ্ঠিত হয়। র‌্যালি শেষে স্থানীয় সার্কিট হাউস চত্বরে উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি বদিউজ্জামান বাকামিন খানের সভাপতিত্বে ও উপজেলা ছাত্রলীগের যুগ্ম সম্পাদক বিএম জুবায়ের হোসেনের সঞ্চালনায় এক আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়।

আলোচনা সভা অনুষ্ঠানের শুরুতে নিয়ম ভঙ্গ করে সিনিয়র ছাত্রলীগ নেতাদের নাম আগে মাইকে ঘোষণা না দিয়ে জুনিয়র ছাত্রলীগ নেতাদের নাম ঘোষণা দেয়া হয়। এর জের ধরে ছাত্রলীগের একাংশ ক্ষিপ্ত হয়ে তাৎক্ষণিকভাবে চেয়ার ছোড়াছুড়ি করে এবং ভাংচুরের ঘটনা ঘটায়। মুহূর্তের মধ্যে পুরো অনুষ্ঠানে উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে। পরে অনুষ্ঠানের বিশেষ অতিথি উপজেলা চেয়ারম্যান মীর গোলাম ফারুক ও বিশেষ অতিথি উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক তৌফিকুজ্জামান শাহীনের হস্তক্ষেপে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনা হয়।

এ বিষয়ে জানতে মোবাইলে কল দেয়া হলেও উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি বদিউজ্জামান বাকামিন খান ফোন রিসিভ করেননি।

উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক তৌফিকুজ্জামান শাহিন যুগান্তরকে বলেন, তুচ্ছ বিষয় নিয়ে হঠাৎ করে পৌরসভা ছাত্রলীগের সভাপতি সাকিবুল ইসলাম খলিল না বুঝে মাথা গরম করেছে। পরে বিষয়টি নিয়ে আমরা ফয়সালা করে দিয়েছে। আর নতুন করে কোনো ঝামেলা সৃষ্টি হয়নি।

এ ব্যাপারে কালকিনি থানার ওসি মো. নাসিরউদ্দিন মৃধা বলেন, অনুষ্ঠানে সিনিয়র-জুনিয়রের নাম আগে-পরে ঘোষণা নিয়ে নিজেদের মধ্যে সামান্য একটি ঘটনা ঘটেছে।

নাম ঘোষণা নিয়ে ছাত্রলীগের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী অনুষ্ঠানে তুলকালাম

 কালকিনি (মাদারীপুর) প্রতিনিধি 
০৪ জানুয়ারি ২০২১, ০৭:০১ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

জুনিয়র ছাত্রলীগ নেতাদের নাম আগে মাইকে ঘোষণা দেয়ার জের ধরে মাদারীপুরের কালকিনিতে ছাত্রলীগের ৭৩তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী অনুষ্ঠানে তুলকালাম কাণ্ড ঘটেছে। চেয়ার ছোড়াছুড়ি ও ভাংচুরের পর পুরো অনুষ্ঠানে উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে।

সোমবার দুপুরে এ ঘটনা ঘটে। পরে আওয়ামী লীগ নেতাদের হস্তক্ষেপে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনা হয়।

সরেজমিন পুলিশ ও নেতাকর্মী সূত্রে জানা গেছে, ছাত্রলীগের ৭৩তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে কালকিনি উপজেলা, পৌর ও কলেজ ছাত্রলীগের যৌথ উদ্যোগে সকালে উপজেলার প্রধান-প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে বর্ণাঢ্য র‌্যালি অনুষ্ঠিত হয়। র‌্যালি শেষে স্থানীয় সার্কিট হাউস চত্বরে উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি বদিউজ্জামান বাকামিন খানের সভাপতিত্বে ও উপজেলা ছাত্রলীগের যুগ্ম সম্পাদক বিএম জুবায়ের হোসেনের সঞ্চালনায় এক আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়।

আলোচনা সভা অনুষ্ঠানের শুরুতে নিয়ম ভঙ্গ করে সিনিয়র ছাত্রলীগ নেতাদের নাম আগে মাইকে ঘোষণা না দিয়ে জুনিয়র ছাত্রলীগ নেতাদের নাম ঘোষণা দেয়া হয়। এর জের ধরে ছাত্রলীগের একাংশ ক্ষিপ্ত হয়ে তাৎক্ষণিকভাবে চেয়ার ছোড়াছুড়ি করে এবং ভাংচুরের ঘটনা ঘটায়। মুহূর্তের মধ্যে পুরো অনুষ্ঠানে উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে। পরে অনুষ্ঠানের বিশেষ অতিথি উপজেলা চেয়ারম্যান মীর গোলাম ফারুক ও বিশেষ অতিথি উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক তৌফিকুজ্জামান শাহীনের হস্তক্ষেপে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনা হয়।

এ বিষয়ে জানতে মোবাইলে কল দেয়া হলেও উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি বদিউজ্জামান বাকামিন খান ফোন রিসিভ করেননি।

উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক তৌফিকুজ্জামান শাহিন যুগান্তরকে বলেন, তুচ্ছ বিষয় নিয়ে হঠাৎ করে পৌরসভা ছাত্রলীগের সভাপতি সাকিবুল ইসলাম খলিল না বুঝে মাথা গরম করেছে। পরে বিষয়টি নিয়ে আমরা ফয়সালা করে দিয়েছে। আর নতুন করে কোনো ঝামেলা সৃষ্টি হয়নি।

এ ব্যাপারে কালকিনি থানার ওসি মো. নাসিরউদ্দিন মৃধা বলেন, অনুষ্ঠানে সিনিয়র-জুনিয়রের নাম আগে-পরে ঘোষণা নিয়ে নিজেদের মধ্যে সামান্য একটি ঘটনা ঘটেছে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন