অজ্ঞান পার্টির খপ্পরে পড়ে সর্বস্ব হারালেন তিনি
jugantor
অজ্ঞান পার্টির খপ্পরে পড়ে সর্বস্ব হারালেন তিনি

  আমতলী (বরগুনা) প্রতিনিধি  

০৫ জানুয়ারি ২০২১, ২১:৪৬:৪৬  |  অনলাইন সংস্করণ

অজ্ঞান পার্টির খপ্পরে পড়ে সর্বস্ব হারিয়েছেন সেলুন শ্রমিক খোকন চন্দ্র শীল। মঙ্গলবার দুপুরে বরগুনার আমতলীতে কুয়াকাটাগামী রুদ্র পরিবহন নামে একটি বাসে এ ঘটনা ঘটে।

জানা গেছে, কলাপাড়া উপজেলার ধানখালী ইউনিয়নের চালিতাবুনিয়া গ্রামের স্বর্গীয় নারায়ণ চন্দ্র শীলের ছেলে খোকন চন্দ্র শীল ঢাকায় আব্দুল্লাহপুরের রসুল বাজারে একটি সেলুনে কাজ করেন। সোমবার রাতে আব্দুল্লাহ পরিবহন গাড়িতে বরিশালে আসেন।

মঙ্গলবার দুপুরে তিনি কুয়াকাটাগামী রুদ্র পরিবহন গাড়িতে বাড়ীতে ফিরছিলেন। পথিমধ্যে অজ্ঞান পার্টির লোকজন নেশাজাতীয় দ্রব্য খাইয়ে তার কাছে থাকা নগদ ত্রিশ হাজার টাকা, একটি দামি মোবাইল ফোন ও তার মূল্যবান জিনিসপত্র রাখা একটি ব্যাগ নিয়ে যায়।

আমতলীর মহিষকাটা নামক স্থানে আসলে তার মুখ দিয়ে লালা ঝরতে এবং অচেতন অবস্থায় দেখে গাড়ি কর্তৃপক্ষ ও যাত্রীদের সন্দেহ হয়। পরে গাড়ির কর্তৃপক্ষ তাকে আমতলী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসে।

ওই হাসপাতালে কর্মরত চিকিৎসক ফারজানা আক্তার দিনা তাকে প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে উন্নত চিকিৎসার জন্য বরিশাল শেবাচিম হাসপাতালে প্রেরণ করেন। খবর পেয়ে খোকনের স্বজনরা আমতলী হাসপাতালে ছুটে আসে।

অচেতন খোকন শীলের কাকা রিপন চন্দ্র শীল বলেন, অজ্ঞান পার্টির লোকজন ওর কাছে থাকা নগদ ত্রিশ হাজার টাকা, একটি দামি মোবাইল ফোন ও মূল্যবান জিনিসপত্রের একটি ব্যাগ নিয়ে গেছে।

আমতলী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের চিকিৎসক ফারজানা আক্তার দিনা বলেন, নেশাজাতীয় দ্রব্য খাইয়ে তাকে অচেতন করেছে। তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য বরিশাল শেবাচিম হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

আমতলী থানার ওসি মো. শাহ আলম হাওলাদার বলেন, বিষয়টি আমার জানা নেই। অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

অজ্ঞান পার্টির খপ্পরে পড়ে সর্বস্ব হারালেন তিনি

 আমতলী (বরগুনা) প্রতিনিধি 
০৫ জানুয়ারি ২০২১, ০৯:৪৬ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

অজ্ঞান পার্টির খপ্পরে পড়ে সর্বস্ব হারিয়েছেন সেলুন শ্রমিক খোকন চন্দ্র শীল। মঙ্গলবার দুপুরে বরগুনার আমতলীতে কুয়াকাটাগামী রুদ্র পরিবহন নামে একটি বাসে এ ঘটনা ঘটে। 

জানা গেছে, কলাপাড়া উপজেলার ধানখালী ইউনিয়নের চালিতাবুনিয়া গ্রামের স্বর্গীয় নারায়ণ চন্দ্র শীলের ছেলে খোকন চন্দ্র শীল ঢাকায় আব্দুল্লাহপুরের রসুল বাজারে একটি সেলুনে কাজ করেন। সোমবার রাতে আব্দুল্লাহ পরিবহন গাড়িতে বরিশালে আসেন। 

মঙ্গলবার দুপুরে তিনি কুয়াকাটাগামী রুদ্র পরিবহন গাড়িতে বাড়ীতে ফিরছিলেন। পথিমধ্যে অজ্ঞান পার্টির লোকজন নেশাজাতীয় দ্রব্য খাইয়ে তার কাছে থাকা নগদ ত্রিশ হাজার টাকা, একটি দামি মোবাইল ফোন ও তার মূল্যবান জিনিসপত্র রাখা একটি ব্যাগ নিয়ে যায়। 

আমতলীর মহিষকাটা নামক স্থানে আসলে তার মুখ দিয়ে লালা ঝরতে এবং অচেতন অবস্থায় দেখে গাড়ি কর্তৃপক্ষ ও যাত্রীদের সন্দেহ হয়। পরে গাড়ির কর্তৃপক্ষ তাকে আমতলী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসে। 

ওই হাসপাতালে কর্মরত চিকিৎসক ফারজানা আক্তার দিনা তাকে প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে উন্নত চিকিৎসার জন্য বরিশাল শেবাচিম হাসপাতালে প্রেরণ করেন। খবর পেয়ে খোকনের স্বজনরা আমতলী হাসপাতালে ছুটে আসে। 

অচেতন খোকন শীলের কাকা রিপন চন্দ্র শীল বলেন, অজ্ঞান পার্টির লোকজন ওর কাছে থাকা নগদ ত্রিশ হাজার টাকা, একটি দামি মোবাইল ফোন ও মূল্যবান জিনিসপত্রের একটি ব্যাগ নিয়ে গেছে।

আমতলী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের চিকিৎসক ফারজানা আক্তার দিনা বলেন, নেশাজাতীয় দ্রব্য খাইয়ে তাকে অচেতন করেছে। তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য বরিশাল শেবাচিম হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

আমতলী থানার ওসি মো. শাহ আলম হাওলাদার বলেন, বিষয়টি আমার জানা নেই। অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন