ওয়াজ মাহফিলে এসেও মঞ্চে উঠতে পারলেন না মামুনুল হক
jugantor
ওয়াজ মাহফিলে এসেও মঞ্চে উঠতে পারলেন না মামুনুল হক

  গোলাপগঞ্জ (সিলেট) প্রতিনিধি  

১৩ জানুয়ারি ২০২১, ১৮:২০:০৯  |  অনলাইন সংস্করণ

মামুনুল হক

সিলেটের গোলাপগঞ্জে একটি ওয়াজ মাহফিলে এসে মঞ্চে উঠতে পারেননি হেফাজতে ইসলামের যুগ্ম মহাসচিব ও খেলাফত মজলিশের ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মুফতি মামুনুল হক।

মঙ্গলবার রাতে উপজেলার ভাদেশ্বর ইউনিয়নের শেখপুর শাহী ঈদগাহ ময়দানে শেখপুর তরুণ সংঘের উদ্যোগে আয়োজিত ওয়াজ মাহফিলে প্রধান বক্তা হিসেবে বয়ান করার কথা ছিল তার।

প্রশাসনের বাধার মুখে মঞ্চে না উঠেই তাকে চলে যেতে হয়। শেষপর্যন্ত মামুনুল হককে ছাড়াই মাহফিল শেষ হয়।

এ সময় মাহফিলে উপস্থিত লোকজনের মধ্যে উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে। তারা বিভিন্ন স্লোগান দিতে থাকেন।

জানা যায়, উপজেলার ভাদেশ্বরের শেখপুরে শাহী ঈদগাহে শেখপুর তরুণ সংঘ ওয়াজ মাহফিলের আয়োজন করে। এতে প্রধান বক্তা হিসেবে ছিলেন খেলাফত মজলিশের ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মুফতি মামুনুল হক। মাহফিলে যথাসময়ে প্রধান বক্তা উপস্থিত হলেও পুলিশ তাকে মঞ্চে উঠতে দেয়নি।

প্রশাসনের কোনো অনুমতি না থাকায় ভাস্কর্যবিরোধী বক্তব্য দেওয়ার জন্য হেফাজতে ইসলামের যুগ্ম মহাসচিব মাওলানা মামুনুল হককে বক্তৃতা রাখতে দেওয়া হয়নি। মঞ্চে উঠার আগেই ইসলামী এই বক্তাকে মাহফিল স্থল থেকে ফিরিয়ে দেয় প্রশাসন।

জানতে চাইলে গোলাপগঞ্জ মডেল থানার ওসি মোহাম্মদ হারুনুর রশীদ চৌধুরী বলেন, স্থানীয় পর্যায়ে আইনশৃঙ্খলার বিঘ্ন ঘটতে পারে এ আশঙ্কায় তাকে ওয়াজ মাহফিলে বয়ান দিতে দেওয়া হয়নি। প্রশাসনের অনুমতিও ছিল না এ ওয়াজ মাহফিলের। আয়োজক কমিটি অনুমতি নেয়নি।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, গত বছরের ২১ ডিসেম্বর বিয়ানীবাজারের জামিয়া দ্বীনিয়া আসআদুল উলুম রামধা মাদ্রাসার মজলিসে অতিথি করা হয়েছিল মামুনুল হককে। এছাড়া ২৬ ডিসেম্বর সিলেটের ওসমানীনগর উপজেলার উছমানপুর ইউপির লামাপাড়া শাহ গরিব এমদাদিয়া মাদ্রাসার ইসলামী মহাসম্মেলনেও তিনি ছিলেন প্রধান অতিথি। কিন্তু স্থানীয় প্রশাসনের অনুমতি এবং একটি মহলের বাধার মুখে তিনি ওই দুই মাহফিলেও বক্তব্য রাখতে পারেননি।

ওয়াজ মাহফিলে এসেও মঞ্চে উঠতে পারলেন না মামুনুল হক

 গোলাপগঞ্জ (সিলেট) প্রতিনিধি 
১৩ জানুয়ারি ২০২১, ০৬:২০ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
মামুনুল হক
মামুনুল হক। ফাইল ছবি

সিলেটের গোলাপগঞ্জে একটি ওয়াজ মাহফিলে এসে মঞ্চে উঠতে পারেননি হেফাজতে ইসলামের যুগ্ম মহাসচিব ও খেলাফত মজলিশের ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মুফতি মামুনুল হক।

মঙ্গলবার রাতে উপজেলার ভাদেশ্বর ইউনিয়নের শেখপুর শাহী ঈদগাহ ময়দানে শেখপুর তরুণ সংঘের উদ্যোগে আয়োজিত ওয়াজ মাহফিলে প্রধান বক্তা হিসেবে বয়ান করার কথা ছিল তার।

প্রশাসনের বাধার মুখে মঞ্চে না উঠেই তাকে চলে যেতে হয়। শেষপর্যন্ত মামুনুল হককে ছাড়াই মাহফিল শেষ হয়।

এ সময় মাহফিলে উপস্থিত লোকজনের মধ্যে উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে। তারা বিভিন্ন স্লোগান দিতে থাকেন।

জানা যায়, উপজেলার ভাদেশ্বরের শেখপুরে শাহী ঈদগাহে শেখপুর তরুণ সংঘ ওয়াজ মাহফিলের আয়োজন করে। এতে প্রধান বক্তা হিসেবে ছিলেন খেলাফত মজলিশের ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মুফতি মামুনুল হক। মাহফিলে যথাসময়ে প্রধান বক্তা উপস্থিত হলেও পুলিশ তাকে মঞ্চে উঠতে দেয়নি।

প্রশাসনের কোনো অনুমতি না থাকায় ভাস্কর্যবিরোধী বক্তব্য দেওয়ার জন্য হেফাজতে ইসলামের যুগ্ম মহাসচিব মাওলানা মামুনুল হককে বক্তৃতা রাখতে দেওয়া হয়নি। মঞ্চে উঠার আগেই ইসলামী এই বক্তাকে মাহফিল স্থল থেকে ফিরিয়ে দেয় প্রশাসন।

জানতে চাইলে গোলাপগঞ্জ মডেল থানার ওসি মোহাম্মদ হারুনুর রশীদ চৌধুরী বলেন, স্থানীয় পর্যায়ে আইনশৃঙ্খলার বিঘ্ন ঘটতে পারে এ আশঙ্কায় তাকে ওয়াজ মাহফিলে বয়ান দিতে দেওয়া হয়নি। প্রশাসনের অনুমতিও ছিল না এ ওয়াজ মাহফিলের। আয়োজক কমিটি অনুমতি নেয়নি।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, গত বছরের ২১ ডিসেম্বর বিয়ানীবাজারের জামিয়া দ্বীনিয়া আসআদুল উলুম রামধা মাদ্রাসার মজলিসে অতিথি করা হয়েছিল মামুনুল হককে। এছাড়া ২৬ ডিসেম্বর সিলেটের ওসমানীনগর উপজেলার উছমানপুর ইউপির লামাপাড়া শাহ গরিব এমদাদিয়া মাদ্রাসার ইসলামী মহাসম্মেলনেও তিনি ছিলেন প্রধান অতিথি। কিন্তু স্থানীয় প্রশাসনের অনুমতি এবং একটি মহলের বাধার মুখে তিনি ওই দুই মাহফিলেও বক্তব্য রাখতে পারেননি।

 
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন