বিজিবির মানহানি মামলায় সেই এনজিওকর্মীর জামিন
jugantor
বিজিবির মানহানি মামলায় সেই এনজিওকর্মীর জামিন

  কক্সবাজার প্রতিনিধি  

১৪ জানুয়ারি ২০২১, ১৪:৩২:১৯  |  অনলাইন সংস্করণ

বিজিবির মানহানি মামলায় সেই এনজিওকর্মীর জামিন

বিজিবির দায়ের করা শতকোটি টাকার মানহানি মামলায় জামিন পেয়েছেন বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থা ব্লাস্টের সেই নারী এনজিওকর্মী।

বৃহস্পতিবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে কক্সবাজারের সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট তামান্না ফারাহর আদালত তার জামিন মঞ্জুর করেন।

ওই এনজিওকর্মীর আইনজীবী আবদুস শুক্কুর যুগান্তরকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

তিনি জানান, আদালতের নির্দেশক্রমে সমন তারিখে হাজির হয়ে জামিন আবেদন করেন ওই নারী এনজিওকর্মী। আদালত তার আবেদন আমলে নিয়ে জামিন মঞ্জুর করেছেন।

এদিকে বিজিবির আইনজীবী সাজ্জাদুল করিম যুগান্তরকে জানান, বিভিন্ন গণমাধ্যমসহ নানাভাবে অপপ্রচার চালিয়ে এনজিওকর্মী বিজিবির মতো একটি সুশৃঙ্খল বাহিনীর মানহানি করেছে। তদন্ত প্রতিবেদনে সেটি উঠে এসেছে। আসামি জামিন পেলেও মামলার কার্যক্রম চলবে।

তথ্যমতে, গত ৮ অক্টোবর টেকনাফ বিজিবি-২ ব্যাটালিয়নের দমদমিয়া চেকপোস্টে নিয়মমতো অন্যদের সঙ্গে ব্লাস্টের এক নারীকর্মীকেও তল্লাশি করা হয়। এই অটোরিকশার যাত্রী ওই নারী পরে বিজিবি সদস্যদের বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগ করেন।

তার বক্তব্য দিয়ে নানা গণমাধ্যম প্রতিবেদনও প্রচার করে। পরে এ নিয়ে হইচই পড়ে যায়। এ ঘটনার পর কক্সবাজার সদর হাসপাতালে পরীক্ষা করে সেই নারী এনজিওকর্মীকে ধর্ষণের আলামত পাননি বলে রিপোর্ট দেন চিকিৎসকরা।

এর পরিপ্রেক্ষিতে গত ১০ নভেম্বর কক্সবাজার সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট তামান্না ফারাহর আদালতে ওই নারীর বিরুদ্ধে শতকোটি টাকার মানহানির মামলা করে বিজিবি। টেকনাফ বিজিবির দমদমিয়া তল্লাশি ফাঁড়ির দায়িত্বপ্রাপ্ত জেসিও নায়েব সুবেদার মোহাম্মদ আলী মোল্লা বাদী হয়ে মামলাটি করেন।

২২ নভেম্বর তদন্ত প্রতিবেদন দেয় কক্সবাজারের টেকনাফ থানা পুলিশ।

বিজিবির মানহানি মামলায় সেই এনজিওকর্মীর জামিন

 কক্সবাজার প্রতিনিধি 
১৪ জানুয়ারি ২০২১, ০২:৩২ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
বিজিবির মানহানি মামলায় সেই এনজিওকর্মীর জামিন
ছবি: যুগান্তর

বিজিবির দায়ের করা শতকোটি টাকার মানহানি মামলায় জামিন পেয়েছেন বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থা ব্লাস্টের সেই নারী এনজিওকর্মী।

বৃহস্পতিবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে কক্সবাজারের সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট তামান্না ফারাহর আদালত তার জামিন মঞ্জুর করেন।

ওই এনজিওকর্মীর আইনজীবী আবদুস শুক্কুর যুগান্তরকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

তিনি জানান, আদালতের নির্দেশক্রমে সমন তারিখে হাজির হয়ে জামিন আবেদন করেন ওই নারী এনজিওকর্মী। আদালত তার আবেদন আমলে নিয়ে জামিন মঞ্জুর করেছেন।

এদিকে বিজিবির আইনজীবী সাজ্জাদুল করিম যুগান্তরকে জানান, বিভিন্ন গণমাধ্যমসহ নানাভাবে অপপ্রচার চালিয়ে এনজিওকর্মী বিজিবির মতো একটি সুশৃঙ্খল বাহিনীর মানহানি করেছে। তদন্ত প্রতিবেদনে সেটি উঠে এসেছে। আসামি জামিন পেলেও মামলার কার্যক্রম চলবে।

তথ্যমতে, গত ৮ অক্টোবর টেকনাফ বিজিবি-২ ব্যাটালিয়নের দমদমিয়া চেকপোস্টে নিয়মমতো অন্যদের সঙ্গে ব্লাস্টের এক নারীকর্মীকেও তল্লাশি করা হয়। এই অটোরিকশার যাত্রী ওই নারী পরে বিজিবি সদস্যদের বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগ করেন।

তার বক্তব্য দিয়ে নানা গণমাধ্যম প্রতিবেদনও প্রচার করে। পরে এ নিয়ে হইচই পড়ে যায়। এ ঘটনার পর কক্সবাজার সদর হাসপাতালে পরীক্ষা করে সেই নারী এনজিওকর্মীকে ধর্ষণের আলামত পাননি বলে রিপোর্ট দেন চিকিৎসকরা।

এর পরিপ্রেক্ষিতে গত ১০ নভেম্বর কক্সবাজার সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট তামান্না ফারাহর আদালতে ওই নারীর বিরুদ্ধে শতকোটি টাকার মানহানির মামলা করে বিজিবি। টেকনাফ বিজিবির দমদমিয়া তল্লাশি ফাঁড়ির দায়িত্বপ্রাপ্ত জেসিও নায়েব সুবেদার মোহাম্মদ আলী মোল্লা বাদী হয়ে মামলাটি করেন।

২২ নভেম্বর তদন্ত প্রতিবেদন দেয় কক্সবাজারের টেকনাফ থানা পুলিশ।

 
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন