ঘরের চাবি ১৭২ পরিবারের হাতে তুলে দেবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা
jugantor
ঘরের চাবি ১৭২ পরিবারের হাতে তুলে দেবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা

  মদন মোহন ঘোষ, দেওয়ানগঞ্জ (জামালপুর)  

১৫ জানুয়ারি ২০২১, ২০:৩৩:২৩  |  অনলাইন সংস্করণ

১৭২টি পরিবারের জন্য প্রস্তুত দালান ঘর

নতুন বছরের শুরুতেই প্রধানমন্ত্রীর উপহার হিসেবে দেওয়ানগঞ্জে ১৭২টি পরিবার দালান ঘর পেতে যাচ্ছে। আগামী ২০ জানুয়ারি ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে জমি নেই-ঘর নেই এমন অসহায় পরিবারের হাতে আনুষ্ঠানিকভাবে চাবি হস্তান্তর করবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। ঘর পেয়ে আনন্দে আত্মহারা অসহায় পরিবারগুলো। ঘর পাওয়া এখন বাস্তবে পরিণত হচ্ছে।

আ. কাদের (৭০) পেশায় দিনমজুর। তিনি দেওয়ানগঞ্জ উপজেলার চুকাইবাড়ী ইউনিয়নের টিনের চরের বাসিন্দা ছিলেন। বেশ কয়েকবার তার বাড়িঘর যমুনা নদীতে বিলীন হয়েছে। সর্বশেষ মাথাগোঁজার ঠাঁই হয় দেওয়ানগঞ্জ বাহাদুরাবাদ রেললাইনের ধারে ঝুপড়িতে। খুব কষ্টে তার দিন কাটে। এ অবস্থা দেখে উপজেলা প্রশাসন উদ্যোগ নেয় মুজিববর্ষ উপলক্ষে তাকে বিনামূল্যে সরকারিভাবে একটি পাকা ঘর দেওয়ার। সরকারি ঘর পেয়ে আনন্দে আত্মহারা তিনি।

কাদের যুগান্তরকে বলেন, শেষ বয়সে পরিবারের সবাইকে নিয়ে পাকা ঘরে থাকব- এটা কখনো ভাবিনি। প্রধানমন্ত্রীর দয়ায় সরকারি ঘর পেয়ে আমি খুবই খুশি। শেখের বেটি হাসিনা দীর্ঘদিন বেঁচে থাক, ভালো থাক- এই দোয়া করি।

মুজিববর্ষের অঙ্গীকার, গৃহহীন থাকবে না একটি পরিবার- এ প্রতিপাদ্য বাস্তবায়নের লক্ষ্যে দেওয়ানগঞ্জে সরকারিভাবে ঘর পাবে ১৭২টি গৃহহীন পরিবার। দেওয়ানগঞ্জ উপজেলা প্রশাসনের তত্ত্বাবধায়নে উপজেলার ৭টি ইউনিয়নে যাদের জমি আছে ঘর নেই, তাদের এসব ঘর দেওয়া হবে। কাজের মান যাচাই-বাছাই করতে জামালপুর জেলা প্রশাসক এনামুল হক, দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা মন্ত্রণালয়ের উপসচিব কোরবান আলী, জেলা ত্রাণ ও বাস্তবায়ন কর্মকর্তা নায়েব আলীসহ সরকারি কর্মকর্তরা উপজেলার নির্মাণাধীন কাজ পরিদর্শন করেন।

উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা এনামুল হক জানান, যাদের ভূমি ও ঘর নেই তাদের ঘর দেওয়ার প্রকল্প হাতে নিয়েছে সরকার। এ কর্মসূচির ধারাবাহিকতায় দেওয়ানগঞ্জ উপজেলার ৭টি ইউনিয়নে প্রতিটি ঘরের নির্মাণ ব্যয় ধরা হয়েছে ১ লাখ ৭১ হাজার টাকা। দুই রুমের এ ঘরে থাকছে বিভিন্ন সুযোগ-সুবিধা।

ঘরের চাবি ১৭২ পরিবারের হাতে তুলে দেবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা

 মদন মোহন ঘোষ, দেওয়ানগঞ্জ (জামালপুর) 
১৫ জানুয়ারি ২০২১, ০৮:৩৩ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
১৭২টি পরিবারের জন্য প্রস্তুত দালান ঘর
১৭২টি পরিবারের জন্য প্রস্তুত দালান ঘর

নতুন বছরের শুরুতেই প্রধানমন্ত্রীর উপহার হিসেবে দেওয়ানগঞ্জে ১৭২টি পরিবার দালান ঘর পেতে যাচ্ছে। আগামী ২০ জানুয়ারি ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে জমি নেই-ঘর নেই এমন অসহায় পরিবারের হাতে আনুষ্ঠানিকভাবে চাবি হস্তান্তর করবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। ঘর পেয়ে আনন্দে আত্মহারা অসহায় পরিবারগুলো। ঘর পাওয়া এখন বাস্তবে পরিণত হচ্ছে।

 

আ. কাদের (৭০) পেশায় দিনমজুর। তিনি দেওয়ানগঞ্জ উপজেলার চুকাইবাড়ী ইউনিয়নের টিনের চরের বাসিন্দা ছিলেন। বেশ কয়েকবার তার বাড়িঘর যমুনা নদীতে বিলীন হয়েছে। সর্বশেষ মাথাগোঁজার ঠাঁই হয় দেওয়ানগঞ্জ বাহাদুরাবাদ রেললাইনের ধারে ঝুপড়িতে। খুব কষ্টে তার দিন কাটে। এ অবস্থা দেখে উপজেলা প্রশাসন উদ্যোগ নেয় মুজিববর্ষ উপলক্ষে তাকে বিনামূল্যে সরকারিভাবে একটি পাকা ঘর দেওয়ার। সরকারি ঘর পেয়ে আনন্দে আত্মহারা তিনি।

 

কাদের যুগান্তরকে বলেন, শেষ বয়সে পরিবারের সবাইকে নিয়ে পাকা ঘরে থাকব- এটা কখনো ভাবিনি। প্রধানমন্ত্রীর দয়ায় সরকারি ঘর পেয়ে আমি খুবই খুশি। শেখের বেটি হাসিনা দীর্ঘদিন বেঁচে থাক, ভালো থাক- এই দোয়া করি।

 

মুজিববর্ষের অঙ্গীকার, গৃহহীন থাকবে না একটি পরিবার- এ প্রতিপাদ্য বাস্তবায়নের লক্ষ্যে দেওয়ানগঞ্জে সরকারিভাবে ঘর পাবে ১৭২টি গৃহহীন পরিবার। দেওয়ানগঞ্জ উপজেলা প্রশাসনের তত্ত্বাবধায়নে উপজেলার ৭টি ইউনিয়নে যাদের জমি আছে ঘর নেই, তাদের এসব ঘর দেওয়া হবে। কাজের মান যাচাই-বাছাই করতে জামালপুর জেলা প্রশাসক এনামুল হক, দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা মন্ত্রণালয়ের উপসচিব কোরবান আলী, জেলা ত্রাণ ও বাস্তবায়ন কর্মকর্তা নায়েব আলীসহ সরকারি কর্মকর্তরা উপজেলার নির্মাণাধীন কাজ পরিদর্শন করেন।

 

উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা এনামুল হক জানান, যাদের ভূমি ও ঘর নেই তাদের ঘর দেওয়ার প্রকল্প হাতে নিয়েছে সরকার। এ কর্মসূচির ধারাবাহিকতায় দেওয়ানগঞ্জ উপজেলার ৭টি ইউনিয়নে প্রতিটি ঘরের নির্মাণ ব্যয় ধরা হয়েছে ১ লাখ ৭১ হাজার টাকা। দুই রুমের এ ঘরে থাকছে বিভিন্ন সুযোগ-সুবিধা।

 
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন