ঈশ্বরদী পৌর নির্বাচনে বিএনপি প্রার্থীর ভোট বর্জন
jugantor
ঈশ্বরদী পৌর নির্বাচনে বিএনপি প্রার্থীর ভোট বর্জন

  ঈশ্বরদী (পাবনা) প্রতিনিধি  

১৬ জানুয়ারি ২০২১, ১৫:৪৩:১২  |  অনলাইন সংস্করণ

ভোট কারচুপি ও কেন্দ্র দখলের অভিযোগ এনে ঈশ্বরদী পৌরসভা নির্বাচনে বিএনপি মনোনীত প্রার্থী রফিকুলইসলাম নয়ন ভোট বর্জন করেছেন।

শনিবার ভোট চলাকালে দুপুর ১টায় শহরের পূর্বটেংরী নিজ বাসভবনে তিনি নির্বাচন বর্জনের ঘোষণা দেন।

এ সময় নয়ন অভিযোগ করেন, ‘ভোট শুরুর সঙ্গে সঙ্গেই প্রতিটি কেন্দ্রে দখল করে আওয়ামী লীগ সমর্থকরা। তারা ভোটারদের প্রকাশ্যে ভোট দেখাতে বাধ্য করে। সাধারণ ভোটারদের বাধা দেয়। এছাড়া প্রতিটি কেন্দ্রে আমাদের এজেন্টদের বের করে দেওয়া হয়েছে।’

এ বিষয়ে প্রশাসনের সহযোগিতা চেয়েও তিনি পাননি বলে দাবি করেন।

ঈশ্বরদী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) ও রিটার্নিং অফিসার পিএম ইমরুল কায়েস জানান, সকাল থেকেই বিএনপি মনোনীত মেয়র প্রার্থীর পক্ষ থেকে বিভিন্ন অভিযোগ করা হচ্ছিল। আমরা তাৎক্ষণিকভাবে অনেক স্থানে স্ট্রাইকিং ফোর্স, ম্যাজিস্ট্রেট ও আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যদের পাঠানো হয়। নির্বাচন বর্জনের বিষয়ে এখনও কোনো কিছু নির্বাচন কমিশনকে জানানো হয়নি।

বিএনপি প্রার্থীর অভিযোগ সম্পর্কে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী ইছাহক আলী মালিথা জানান, ভোট বর্জন ও অভিযোগ বিএনপির চিরায়ত নিয়মে পরিণত হয়েছে। কোনো কেন্দ্রেই অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটেনি। এখানে প্রশাসন কঠোর অবস্থানে রয়েছে। তাছাড়া এখানে ভোট কারচুপির কোনো প্রয়োজন নেই। জনগণ স্বতঃস্ফূর্তভাবে নৌকায় ভোট দিচ্ছে।

ঈশ্বরদী পৌর নির্বাচনে বিএনপি প্রার্থীর ভোট বর্জন

 ঈশ্বরদী (পাবনা) প্রতিনিধি 
১৬ জানুয়ারি ২০২১, ০৩:৪৩ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

ভোট কারচুপি ও কেন্দ্র দখলের অভিযোগ এনে ঈশ্বরদী পৌরসভা নির্বাচনে বিএনপি মনোনীত প্রার্থী রফিকুল ইসলাম নয়ন ভোট বর্জন করেছেন।

শনিবার ভোট চলাকালে দুপুর ১টায় শহরের পূর্বটেংরী নিজ বাসভবনে তিনি নির্বাচন বর্জনের ঘোষণা দেন।

এ সময় নয়ন অভিযোগ করেন, ‘ভোট শুরুর সঙ্গে সঙ্গেই প্রতিটি কেন্দ্রে দখল করে আওয়ামী লীগ সমর্থকরা। তারা ভোটারদের প্রকাশ্যে ভোট দেখাতে বাধ্য করে। সাধারণ ভোটারদের বাধা দেয়। এছাড়া প্রতিটি কেন্দ্রে আমাদের এজেন্টদের বের করে দেওয়া হয়েছে।’

এ বিষয়ে প্রশাসনের সহযোগিতা চেয়েও তিনি পাননি বলে দাবি করেন।

ঈশ্বরদী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) ও রিটার্নিং অফিসার পিএম ইমরুল কায়েস জানান, সকাল থেকেই বিএনপি মনোনীত মেয়র প্রার্থীর পক্ষ থেকে বিভিন্ন অভিযোগ করা হচ্ছিল। আমরা তাৎক্ষণিকভাবে অনেক স্থানে স্ট্রাইকিং ফোর্স, ম্যাজিস্ট্রেট ও আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যদের পাঠানো হয়। নির্বাচন বর্জনের বিষয়ে এখনও কোনো কিছু নির্বাচন কমিশনকে জানানো হয়নি।

বিএনপি প্রার্থীর অভিযোগ সম্পর্কে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী ইছাহক আলী মালিথা জানান, ভোট বর্জন ও অভিযোগ বিএনপির চিরায়ত নিয়মে পরিণত হয়েছে। কোনো কেন্দ্রেই অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটেনি। এখানে প্রশাসন কঠোর অবস্থানে রয়েছে। তাছাড়া এখানে ভোট কারচুপির কোনো প্রয়োজন নেই। জনগণ স্বতঃস্ফূর্তভাবে নৌকায় ভোট দিচ্ছে।

 
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন