স্ত্রী-ছেলেকে এমপি বানানোর সংস্কৃতি বাদ দিতে হবে: কাদের মির্জা
jugantor
স্ত্রী-ছেলেকে এমপি বানানোর সংস্কৃতি বাদ দিতে হবে: কাদের মির্জা

  নোয়াখালী ও কোম্পানীগঞ্জ প্রতিনিধি  

১৮ জানুয়ারি ২০২১, ২১:৩৯:৪৭  |  অনলাইন সংস্করণ

স্ত্রী ও ছেলেকে ভোটে দাড় করানোর বিষয়ে সমালোচনা করে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরের ছোট ভাই নোয়াখালীর বসুরহাট পৌরসভার বিজয়ী মেয়র আব্দুল কাদের মির্জা বলেছেন, আমি মারা গেছি, আমার বৌকে ভোটে দাঁড় করিয়ে দিতে হবে, না হলে আমার ছেলেকে দাঁড় করিয়ে দিতে হবে- এ সংস্কৃতি বন্ধ করতে হবে।

বসুরহাট পৌরসভা নির্বাচনে বিজয়ী হওয়ার পর সোমবার বেলা ১১টায় বসুরহাট পৌরসভা মিলনায়তনে ভোটারের সঙ্গে নির্বাচনী কুশল বিনিময় সভায় তিনি এসব কথা বলেন।

কাদের মির্জা বলেন, একরাম চৌধুরীর প্রতিপক্ষ একজন সাবেক এমপি মোহাম্মদ আলী আমাকে ফোন করে ধন্যবাদ জানায়। তিনি বিভিন্ন দল করে এখন আওয়ামী লীগে এসেছেন। ঋণ খেলাপির কারণে এমপি প্রার্থী হতে পারেন নাই, নিজের স্ত্রীকে এমপি বানিয়েছেন। আমি মরে গেলে আমার ছেলে এমপি হবে, স্ত্রী এমপি হবে, এ সংস্কৃতি বন্ধ করতে হবে, তবে কারো যোগ্যতা থাকলে সে এমপি হতে পারে।

উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি খিজির হায়াত খানের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন- কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মোহাম্মদ শাহাব উদ্দিন।

সাবেক ছাত্রনেতা ও চরপার্বতী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক জহিরুল ইসলাম তানভীরের সঞ্চালনায় বক্তব্য রাখেন, উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি ইস্কান্দার হায়দার চৌধুরী বাবুল, সাধারণ সম্পাদক নুরনবী চৌধুরী, উপজেলা পরিষদের মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান আরজুমান পারভিন, সাবেক ছাত্রনেতা সেলিম চৌধুরী বাবুল, গোলাম শরীফ চৌধুরী পিপল, ইস্কান্দার মির্জা শামীম, উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি নিজাম উদ্দিন মুন্না প্রমুখ।

স্ত্রী-ছেলেকে এমপি বানানোর সংস্কৃতি বাদ দিতে হবে: কাদের মির্জা

 নোয়াখালী ও কোম্পানীগঞ্জ প্রতিনিধি 
১৮ জানুয়ারি ২০২১, ০৯:৩৯ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

স্ত্রী ও ছেলেকে ভোটে দাড় করানোর বিষয়ে সমালোচনা করে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরের ছোট ভাই নোয়াখালীর বসুরহাট পৌরসভার বিজয়ী মেয়র আব্দুল কাদের মির্জা বলেছেন, আমি মারা গেছি, আমার বৌকে ভোটে দাঁড় করিয়ে দিতে হবে, না হলে আমার ছেলেকে দাঁড় করিয়ে দিতে হবে- এ সংস্কৃতি বন্ধ করতে হবে।

বসুরহাট পৌরসভা নির্বাচনে বিজয়ী হওয়ার পর সোমবার বেলা ১১টায় বসুরহাট পৌরসভা মিলনায়তনে ভোটারের সঙ্গে নির্বাচনী কুশল বিনিময় সভায় তিনি এসব কথা বলেন।

কাদের মির্জা বলেন, একরাম চৌধুরীর প্রতিপক্ষ একজন সাবেক এমপি মোহাম্মদ আলী আমাকে ফোন করে ধন্যবাদ জানায়। তিনি বিভিন্ন দল করে এখন আওয়ামী লীগে এসেছেন। ঋণ খেলাপির কারণে এমপি প্রার্থী হতে পারেন নাই, নিজের স্ত্রীকে এমপি বানিয়েছেন। আমি মরে গেলে আমার ছেলে এমপি হবে, স্ত্রী এমপি হবে, এ সংস্কৃতি বন্ধ করতে হবে, তবে কারো যোগ্যতা থাকলে সে এমপি হতে পারে।

উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি খিজির হায়াত খানের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন- কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মোহাম্মদ শাহাব উদ্দিন।

সাবেক ছাত্রনেতা ও চরপার্বতী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক জহিরুল ইসলাম তানভীরের সঞ্চালনায় বক্তব্য রাখেন, উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি ইস্কান্দার হায়দার চৌধুরী বাবুল, সাধারণ সম্পাদক নুরনবী চৌধুরী, উপজেলা পরিষদের মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান আরজুমান পারভিন, সাবেক ছাত্রনেতা সেলিম চৌধুরী বাবুল, গোলাম শরীফ চৌধুরী পিপল, ইস্কান্দার মির্জা শামীম, উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি নিজাম উদ্দিন মুন্না প্রমুখ।

 

ঘটনাপ্রবাহ : আবদুল কাদের মির্জা

২২ ফেব্রুয়ারি, ২০২১
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন