স্বামী হত্যার দায়ে স্ত্রীর মৃত্যুদণ্ড
jugantor
স্বামী হত্যার দায়ে স্ত্রীর মৃত্যুদণ্ড

  নোয়াখালী প্রতিনিধি  

১৯ জানুয়ারি ২০২১, ২২:৪৪:৪৮  |  অনলাইন সংস্করণ

নোয়াখালীর বেগমগঞ্জের নরোত্তমপুর ইউনিয়নের মধ্যম নরোত্তমপুর গ্রামে জমি রেজিস্ট্রি করে না দেয়ায় শ্বশুর-শাশুড়ির প্ররোচনায় স্বামী হত্যার দায়ে স্ত্রীকে মৃত্যুদণ্ড দিয়েছেন আদালত। একই সঙ্গে স্ত্রীর পিতামাতাকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড ও ২০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে।

মঙ্গলবার বিকালে নোয়াখালীর জেলা ও দায়রা জজ সালেহ উদ্দিন আহমদ এ রায় ঘোষণা করেন।

মামলার বিবরণে জানা যায়, বেগমগঞ্জ উপজেলার মধ্যম নরোত্তমপুর গ্রামের শহীদ উল্যাহর সঙ্গে একই এলাকার আবুল হোসেনের মেয়ে বিবি কুলসুমের বিয়ে হয়। বিয়ের পর তাদের ৩ কন্যাসন্তানের জন্ম হয়। দাম্পত্য জীবনের একপর্যায়ে স্ত্রী বিবি কুলসুম স্বামীর কাছে ঢাকায় পাঁচতলা বাড়ির ১টি ফ্ল্যাট ও এলাকার জমি রেজিস্ট্রি করে দিতে চাপ সৃষ্টি করে।

কিন্তু স্বামী শহীদ উল্যাহ রাজি না হলে বিবি কুলসুমের পিতা আবুল হোসেন ও মাতা লিপি আক্তারের প্ররোচনায় স্ত্রী বিবি কুলসুম ঠাণ্ডা মাথায় ২০১৮ সালের ৩ মে সকালে স্বামীর গায়ে গরম তেল ঢেলে দেয়। প্রতিবেশীরা তাকে প্রথমে নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে ও পরবর্তীতে ঢাকা বার্ন ইউনিটে ভর্তি করেন। পরে ১২ মে তার মৃত্যু হয়।

এ ঘটনায় বেগমগঞ্জ থানা মামলা গ্রহণ না করলে আদালতে মামলা হয়। আদালত দীর্ঘ শুনানি ও সাক্ষী নেয়ার পর শহীদ উল্যাহর স্ত্রী বিবি কুলসুমকে মৃত্যুদণ্ড ও প্ররোচনার দায়ে তার পিতা আবুল হোসেন ও মাতা লিপি বেগমকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড ও ২০ হাজার টাকা জরিমানা করেন।

মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত বিবি কুলসুম ও তার মা লিপি আক্তার পলাতক রয়েছে। তারা আত্মসমর্পণ করলে বা গ্রেফতার হওয়ার পর থেকে তাদের সাজা শুরু হবে বলে রায়ে উল্লেখ করা হয়েছে।

স্বামী হত্যার দায়ে স্ত্রীর মৃত্যুদণ্ড

 নোয়াখালী প্রতিনিধি 
১৯ জানুয়ারি ২০২১, ১০:৪৪ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

নোয়াখালীর বেগমগঞ্জের নরোত্তমপুর ইউনিয়নের মধ্যম নরোত্তমপুর গ্রামে জমি রেজিস্ট্রি করে না দেয়ায় শ্বশুর-শাশুড়ির প্ররোচনায় স্বামী হত্যার দায়ে স্ত্রীকে মৃত্যুদণ্ড দিয়েছেন আদালত। একই সঙ্গে স্ত্রীর পিতামাতাকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড ও ২০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে।

মঙ্গলবার বিকালে নোয়াখালীর জেলা ও দায়রা জজ সালেহ উদ্দিন আহমদ এ রায় ঘোষণা করেন।

মামলার বিবরণে জানা যায়, বেগমগঞ্জ উপজেলার মধ্যম নরোত্তমপুর গ্রামের শহীদ উল্যাহর সঙ্গে একই এলাকার আবুল হোসেনের মেয়ে বিবি কুলসুমের বিয়ে হয়। বিয়ের পর তাদের ৩ কন্যাসন্তানের জন্ম হয়। দাম্পত্য জীবনের একপর্যায়ে স্ত্রী বিবি কুলসুম স্বামীর কাছে ঢাকায় পাঁচতলা বাড়ির ১টি ফ্ল্যাট ও এলাকার জমি রেজিস্ট্রি করে দিতে চাপ সৃষ্টি করে।

কিন্তু স্বামী শহীদ উল্যাহ রাজি না হলে বিবি কুলসুমের পিতা আবুল হোসেন ও মাতা লিপি আক্তারের প্ররোচনায় স্ত্রী বিবি কুলসুম ঠাণ্ডা মাথায় ২০১৮ সালের ৩ মে সকালে স্বামীর গায়ে গরম তেল ঢেলে দেয়। প্রতিবেশীরা তাকে প্রথমে নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে ও পরবর্তীতে ঢাকা বার্ন ইউনিটে ভর্তি করেন। পরে ১২ মে তার মৃত্যু হয়।

এ ঘটনায় বেগমগঞ্জ থানা মামলা গ্রহণ না করলে আদালতে মামলা হয়। আদালত দীর্ঘ শুনানি ও সাক্ষী নেয়ার পর শহীদ উল্যাহর স্ত্রী বিবি কুলসুমকে মৃত্যুদণ্ড ও প্ররোচনার দায়ে তার পিতা আবুল হোসেন ও মাতা লিপি বেগমকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড ও ২০ হাজার টাকা জরিমানা করেন।

মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত বিবি কুলসুম ও তার মা লিপি আক্তার পলাতক রয়েছে। তারা আত্মসমর্পণ করলে বা গ্রেফতার হওয়ার পর থেকে তাদের সাজা শুরু হবে বলে রায়ে উল্লেখ করা হয়েছে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন