নারায়ণগঞ্জে ঘর পাচ্ছে ৬৬৭টি গৃহহীন পরিবার
jugantor
নারায়ণগঞ্জে ঘর পাচ্ছে ৬৬৭টি গৃহহীন পরিবার

  বন্দর (নারায়ণগঞ্জ) প্রতিনিধি  

২০ জানুয়ারি ২০২১, ১৯:৪০:৫৫  |  অনলাইন সংস্করণ

নারায়নগঞ্জ

'আশ্রয়ণের অধিকার শেখ হাসিনার উপহার' এ স্লোগানকে সামনে রেখে গৃহহীনদের জন্য নারায়ণগঞ্জে নির্মাণ করা হচ্ছে ৬৬৭টি ঘর। ইতোমধ্যে সম্পন্ন হয়েছে তিন শতাধিক ঘর নির্মাণ। আগামী ২৩ জানুয়ারি ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে নারায়ণগঞ্জের ৩ শতাধিক গৃহহীন পরিবারের কাছে ঘর হস্তান্তর করবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। সেমিপাকা প্রতিটি ঘর নির্মাণে ব্যয় হয়েছে এক লাখ ৭১ হাজার টাকা।

মুজিববর্ষেই বাকি ঘরগুলোও হস্তান্তর করা হবে। মঙ্গলবার বিকালে বন্দর উপজেলার লক্ষণখোলা এলাকায় নির্মাণ সম্পন্ন ২৬টি ঘর পরিদর্শনকালে নারায়ণগঞ্জ জেলা প্রশাসক মোস্তাইন বিল্লাহ এসব কথা বলেন। শীতলক্ষ্যা নদীর তীরে মনোরম পরিবেশে দুই শতক জমির উপর সেমিপাকা সুন্দর ঘর পেয়ে দারুণ খুশি গৃহহীন অসহায় মানুষ। মাথা গোঁজার ঠাঁই পেয়ে প্রধানমন্ত্রীর জন্য দোয়া করেছেন তার।

বন্দর উপজেলা চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা এমএ রশিদ জানান, বন্দর উপজেলার লক্ষণখোলা এলাকায় শীতলক্ষ্যা নদীর তীরে ১১০ একর খাসজমিতে নির্মাণ করা হচ্ছে ৩৫টি সেমিপাকা ঘর। ইতোমধ্যে সম্পন্ন হয়েছে ২৬টি ঘরের নির্মাণ কাজ। প্রকৃত ভূমিহীন গৃহহীনরা ঘরগুলো বরাদ্দ পেয়েছেন বলে জানান।

বন্দর উপজেলা চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা এমএ রশিদ,বন্দর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শুক্লা সরকার, সহকারী কমিশনার (ভূমি) আসমা সুলতানা নাসরিন ও বন্দর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান এহসানউদ্দিন আহমেদ এ সময় উপস্থিত ছিলেন।

নারায়ণগঞ্জে ঘর পাচ্ছে ৬৬৭টি গৃহহীন পরিবার

 বন্দর (নারায়ণগঞ্জ) প্রতিনিধি 
২০ জানুয়ারি ২০২১, ০৭:৪০ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
নারায়নগঞ্জ
নারায়নগঞ্জ

'আশ্রয়ণের অধিকার শেখ হাসিনার উপহার' এ স্লোগানকে সামনে রেখে গৃহহীনদের জন্য নারায়ণগঞ্জে নির্মাণ করা হচ্ছে ৬৬৭টি ঘর। ইতোমধ্যে সম্পন্ন হয়েছে তিন শতাধিক ঘর নির্মাণ। আগামী ২৩ জানুয়ারি ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে নারায়ণগঞ্জের ৩ শতাধিক গৃহহীন পরিবারের কাছে ঘর হস্তান্তর করবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। সেমিপাকা প্রতিটি ঘর নির্মাণে ব্যয় হয়েছে এক লাখ ৭১ হাজার টাকা।

 

মুজিববর্ষেই বাকি ঘরগুলোও হস্তান্তর করা হবে। মঙ্গলবার বিকালে বন্দর উপজেলার লক্ষণখোলা এলাকায় নির্মাণ সম্পন্ন ২৬টি ঘর পরিদর্শনকালে নারায়ণগঞ্জ জেলা প্রশাসক মোস্তাইন বিল্লাহ এসব কথা বলেন। শীতলক্ষ্যা নদীর তীরে মনোরম পরিবেশে দুই শতক জমির উপর সেমিপাকা সুন্দর ঘর পেয়ে দারুণ খুশি গৃহহীন অসহায় মানুষ। মাথা গোঁজার ঠাঁই পেয়ে প্রধানমন্ত্রীর জন্য দোয়া করেছেন তার।

 

বন্দর উপজেলা চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা এমএ রশিদ জানান, বন্দর উপজেলার লক্ষণখোলা এলাকায় শীতলক্ষ্যা নদীর তীরে ১১০ একর খাসজমিতে নির্মাণ করা হচ্ছে ৩৫টি সেমিপাকা ঘর। ইতোমধ্যে সম্পন্ন হয়েছে ২৬টি ঘরের নির্মাণ কাজ। প্রকৃত ভূমিহীন গৃহহীনরা ঘরগুলো বরাদ্দ পেয়েছেন বলে জানান।

 

বন্দর উপজেলা চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা এমএ রশিদ,বন্দর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শুক্লা সরকার, সহকারী কমিশনার (ভূমি) আসমা সুলতানা নাসরিন ও বন্দর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান এহসানউদ্দিন আহমেদ এ সময় উপস্থিত ছিলেন।

 
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন