চাকরির বই নিতে গিয়ে রেল কর্মকর্তার ধর্ষণের শিকার গৃহবধূ
jugantor
চাকরির বই নিতে গিয়ে রেল কর্মকর্তার ধর্ষণের শিকার গৃহবধূ

  রাজশাহী ব্যুরো  

২০ জানুয়ারি ২০২১, ২০:২২:৫৩  |  অনলাইন সংস্করণ

রেল কর্মকর্তা

চাকরির প্রস্তুতির জন্য বই দিতে বাসায় ডাকেন গৃহবধূকে। কিন্তু সেখানে গিয়েই ধর্ষণের শিকার হন তিনি। এমন অভিযোগে মঈন উদ্দিন আজাদ (৪২) নামে রাজশাহী রেলওয়ের এক কর্মকর্তার বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে।

সোমবার রাতে দুই সন্তানের জননী ওই গৃহবধূ (২৫) বাদী হয়ে রাজশাহী মহানগরীর বোয়ালিয়া মডেল থানায় মামলা করেছেন।

অভিযুক্ত মঈন উদ্দিন আজাদ রাজশাহী রেলওয়ে স্টেশনের স্টেশনমাস্টার পদে কর্মরত। স্টেশন সংলগ্ন মহানগরীর শিরোইল কাঁচাবাজার এলাকায় তার বাড়ি। মামলা দায়েরের পর থেকেই তিনি লাপাত্তা।

রাজশাহী মহানগরীর বাসিন্দা ভুক্তভোগী ওই নারী জানান, ট্রেনে যাতায়াতের পথেই স্টেশনমাস্টার আজাদের সঙ্গে তার পরিচয়। এরপর তাদের মধ্যে ফেসবুক ম্যাসেঞ্জারে কথা হতো। তিনি ওই নারীকে রেলওয়েতে একটি চাকরিও দিতে চেয়েছিলেন। বলেছিলেন, চাকরির জন্য আট লাখ টাকা লাগবে। তিনি আগাম দুই লাখ টাকাও নিয়েছিলেন।

মামলার এজাহারে ওই নারী বলেছেন, রেলওয়েতে একটি চাকরির নিয়োগ পরীক্ষার প্রস্তুতিমূলক বই দেয়ার নামে গত রোববার বিকালে তার বাসায় ডাকেন। তিনি সরল বিশ্বাসে তার বাসায় যান। গিয়ে দেখেন বাসায় কেউ নেই। ফাঁকা বাসায় মঈন উদ্দিন আজাদ তাকে ধর্ষণ করেন। হাজার চেষ্টা করেও তিনি রেল কর্মকর্তার হাত থেকে সম্ভ্রম বাঁচাতে পারেননি।

এজাহারে আরও উল্লেখ করা হয়েছে- ধর্ষণের পর ওই নারীকে রেল কর্মকর্তা হুমকি দেন যে, ঘটনাটি কাউকে জানালে তার বড় ধরনের ক্ষতি হবে। কিন্তু তিনি পরদিনই থানায় মামলা করেন।

মহানগরীর বোয়ালিয়া থানার ওসি নিবারণ চন্দ্র বর্মণ বলেন, রেল কর্মকর্তা মঈন উদ্দিন আজাদ পলাতক। তাকে গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে। মামলাটি তদন্তের জন্য একজন এসআইকে দায়িত্ব দেয়া হয়েছে।

পশ্চিমাঞ্চল রেলওয়ের মহাব্যবস্থাপক (জিএম) মিহির কান্তি গুহ বলেন, মামলার বিষয়টি তিনি জেনেছেন। গত দুই দিন অভিযুক্ত কর্মকর্তা অফিস করেননি। তাকে অন্যত্র বদলির জন্য তিনি নির্দেশ দিয়েছেন। পাশাপাশি তার বিরুদ্ধে বিভাগীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হচ্ছে বলেও জানান পশ্চিম রেলের এই শীর্ষ কর্মকর্তা।

অভিযোগের বিষয়ে কথা বলতে মঈন উদ্দিন আজাদের মোবাইলে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলে সেটি বন্ধ পাওয়া গেছে।

চাকরির বই নিতে গিয়ে রেল কর্মকর্তার ধর্ষণের শিকার গৃহবধূ

 রাজশাহী ব্যুরো 
২০ জানুয়ারি ২০২১, ০৮:২২ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
রেল কর্মকর্তা
রেল কর্মকর্তা। ছবি: সংগৃহীত

চাকরির প্রস্তুতির জন্য বই দিতে বাসায় ডাকেন গৃহবধূকে। কিন্তু সেখানে গিয়েই ধর্ষণের শিকার হন তিনি। এমন অভিযোগে মঈন উদ্দিন আজাদ (৪২) নামে রাজশাহী রেলওয়ের এক কর্মকর্তার বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে। 

সোমবার রাতে দুই সন্তানের জননী ওই গৃহবধূ (২৫) বাদী হয়ে রাজশাহী মহানগরীর বোয়ালিয়া মডেল থানায় মামলা করেছেন। 

অভিযুক্ত মঈন উদ্দিন আজাদ রাজশাহী রেলওয়ে স্টেশনের স্টেশনমাস্টার পদে কর্মরত। স্টেশন সংলগ্ন মহানগরীর শিরোইল কাঁচাবাজার এলাকায় তার বাড়ি। মামলা দায়েরের পর থেকেই তিনি লাপাত্তা।

রাজশাহী মহানগরীর বাসিন্দা ভুক্তভোগী ওই নারী জানান, ট্রেনে যাতায়াতের পথেই স্টেশনমাস্টার আজাদের সঙ্গে তার পরিচয়। এরপর তাদের মধ্যে ফেসবুক ম্যাসেঞ্জারে কথা হতো। তিনি ওই নারীকে রেলওয়েতে একটি চাকরিও দিতে চেয়েছিলেন। বলেছিলেন, চাকরির জন্য আট লাখ টাকা লাগবে। তিনি আগাম দুই লাখ টাকাও নিয়েছিলেন।

মামলার এজাহারে ওই নারী বলেছেন, রেলওয়েতে একটি চাকরির নিয়োগ পরীক্ষার প্রস্তুতিমূলক বই দেয়ার নামে গত রোববার বিকালে তার বাসায় ডাকেন। তিনি সরল বিশ্বাসে তার বাসায় যান। গিয়ে দেখেন বাসায় কেউ নেই। ফাঁকা বাসায় মঈন উদ্দিন আজাদ তাকে ধর্ষণ করেন। হাজার চেষ্টা করেও তিনি রেল কর্মকর্তার হাত থেকে সম্ভ্রম বাঁচাতে পারেননি।

এজাহারে আরও উল্লেখ করা হয়েছে- ধর্ষণের পর ওই নারীকে রেল কর্মকর্তা হুমকি দেন যে, ঘটনাটি কাউকে জানালে তার বড় ধরনের ক্ষতি হবে। কিন্তু তিনি পরদিনই থানায় মামলা করেন।

মহানগরীর বোয়ালিয়া থানার ওসি নিবারণ চন্দ্র বর্মণ বলেন, রেল কর্মকর্তা মঈন উদ্দিন আজাদ পলাতক। তাকে গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে। মামলাটি তদন্তের জন্য একজন এসআইকে দায়িত্ব দেয়া হয়েছে।

পশ্চিমাঞ্চল রেলওয়ের মহাব্যবস্থাপক (জিএম) মিহির কান্তি গুহ বলেন, মামলার বিষয়টি তিনি জেনেছেন। গত দুই দিন অভিযুক্ত কর্মকর্তা অফিস করেননি। তাকে অন্যত্র বদলির জন্য তিনি নির্দেশ দিয়েছেন। পাশাপাশি তার বিরুদ্ধে বিভাগীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হচ্ছে বলেও জানান পশ্চিম রেলের এই শীর্ষ কর্মকর্তা।

অভিযোগের বিষয়ে কথা বলতে মঈন উদ্দিন আজাদের মোবাইলে  যোগাযোগের চেষ্টা করা হলে সেটি বন্ধ পাওয়া গেছে।

 
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন