শীতের কাপড় কিনতে যাওয়া হলো না হেলাল সরকারের!
jugantor
শীতের কাপড় কিনতে যাওয়া হলো না হেলাল সরকারের!

  দিনাজপুর প্রতিনিধি  

২১ জানুয়ারি ২০২১, ২০:১৩:১৪  |  অনলাইন সংস্করণ

হেলাল সরকার

পরিবারের জন্য শীতবস্ত্র কিনতে যাওয়া হলো না পার্বতীপুরের কৃষি শ্রমিক হেলাল সরকারের। দুর্বৃত্তদের হাতে নৃশংসভাবে খুন হন ওই ব্যক্তি।

নিহতের ছেলে রবিউল ইসলাম ও মেয়ে গুলশান আরা জানান, সকালে শীতের কাপড় কেনার জন্য সৈয়দপুরে যাওয়ার কথা ছিলো তাদের। বুধবার দিবাগত রাতে তার বাবা সবাইকে তাড়াতাড়ি ঘুম থেকে উঠার কথা বলেছিলেন। কিন্তু তার আগেই দুর্বৃত্তরা আমরা বাবাকে গলাকেটে জবাই করে হত্যা করেছে।

দিনাজপুরের পার্বতীপুর উপজেলার হেলাল সরকার (৫৫) নামের ওই ব্যক্তিকে গলাকেটে হত্যার পর জিহবা কেটে নিয়েছে দূর্বৃত্তরা। গতকাল বৃহস্পতিবার ভোরে পার্বতীপুর-ফুলবাড়ি মহসাড়কের পাশে পলাশবাড়ী ইউনিয়নের এরশাদ নগর এলাকার বন বিভাগের বাগানে এ ঘটনা ঘটে। সকালে পুলিশ নিহতের লাশ উদ্ধারের পর ময়না তদন্তের জন্য দিনাজপুর এম আব্দুর রহিম মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করে।

নিহত হেলাল সরকার পার্বতীপুর উপজেলার দরগাপাড়া গ্রামের মৃত সাহান সরকারের ছেলে।

পারিবারিক সূত্রে জানাযায়, প্রতিদিনের মতো গতকাল বৃহস্পতিবার ভোরে ফজরের নামাজ পড়তে বাড়ি থেকে বের হন হেলাল সরকার। দিনের আলো ফোটার কিছু সময় পর স্থানীয়রা তার লাশ পড়ে থাকতে দেখে পুলিশে খবর দেন। এ ঘটনায় নিহতের পরিবার ও এলাকায় শোকের মাতাম চলছে।

এ ঘটনায় দিনাজপুরের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (ক্রাইম) মমিনুল ইসলাম ও পার্বতীপুর মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ মোখলেছুর রহমান ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন।

পার্বতীপুর মডেল থানার ওসি মকলেসুর রহমান ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, পলাশবাড়ী ইউনিয়নের ফরেস্টের বাগান থেকে মরদেহটি উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য দিনাজপুর এম. আব্দুর রহিম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে। তার গলাসহ শরীরে বিভিন্ন স্থানে অস্ত্রের আঘাত রয়েছে। এ বিষয়ে থানায় মামলার প্রস্তুতি চলছে। তবে এখন পর্যন্ত কাউকে আটক করা হয়নি।

শীতের কাপড় কিনতে যাওয়া হলো না হেলাল সরকারের!

 দিনাজপুর প্রতিনিধি 
২১ জানুয়ারি ২০২১, ০৮:১৩ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
হেলাল সরকার
হেলাল সরকার

পরিবারের জন্য শীতবস্ত্র কিনতে যাওয়া হলো না পার্বতীপুরের কৃষি শ্রমিক হেলাল সরকারের। দুর্বৃত্তদের হাতে নৃশংসভাবে খুন হন ওই ব্যক্তি।

নিহতের ছেলে  রবিউল ইসলাম ও মেয়ে গুলশান আরা জানান, সকালে শীতের কাপড় কেনার জন্য সৈয়দপুরে যাওয়ার কথা ছিলো তাদের। বুধবার দিবাগত রাতে তার বাবা সবাইকে তাড়াতাড়ি ঘুম থেকে উঠার কথা বলেছিলেন। কিন্তু তার আগেই দুর্বৃত্তরা আমরা বাবাকে গলাকেটে জবাই করে হত্যা করেছে।

দিনাজপুরের পার্বতীপুর উপজেলার হেলাল সরকার (৫৫) নামের ওই ব্যক্তিকে গলাকেটে হত্যার পর জিহবা কেটে নিয়েছে দূর্বৃত্তরা। গতকাল বৃহস্পতিবার ভোরে পার্বতীপুর-ফুলবাড়ি মহসাড়কের পাশে পলাশবাড়ী ইউনিয়নের এরশাদ নগর এলাকার বন বিভাগের বাগানে এ ঘটনা ঘটে। সকালে পুলিশ নিহতের লাশ উদ্ধারের পর ময়না তদন্তের জন্য দিনাজপুর এম আব্দুর রহিম মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করে।

নিহত হেলাল সরকার পার্বতীপুর উপজেলার দরগাপাড়া গ্রামের মৃত সাহান সরকারের ছেলে।

পারিবারিক সূত্রে জানাযায়প্রতিদিনের মতো গতকাল বৃহস্পতিবার ভোরে ফজরের নামাজ পড়তে বাড়ি থেকে বের হন হেলাল সরকার। দিনের আলো ফোটার কিছু সময় পর স্থানীয়রা তার লাশ পড়ে থাকতে দেখে পুলিশে খবর দেন। এ ঘটনায় নিহতের পরিবার ও এলাকায় শোকের মাতাম চলছে।

এ ঘটনায় দিনাজপুরের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (ক্রাইম) মমিনুল ইসলাম ও পার্বতীপুর মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ মোখলেছুর রহমান ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন।

পার্বতীপুর মডেল থানার ওসি মকলেসুর রহমান ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, পলাশবাড়ী ইউনিয়নের ফরেস্টের বাগান থেকে মরদেহটি উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য দিনাজপুর এম. আব্দুর রহিম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে। তার গলাসহ শরীরে বিভিন্ন স্থানে অস্ত্রের আঘাত রয়েছে। এ বিষয়ে থানায় মামলার প্রস্তুতি চলছে। তবে এখন পর্যন্ত কাউকে আটক করা হয়নি।

 

 

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন