দুদিন পর রূপগঞ্জে স্বপ্নের দ্বার খুলবে ২০০ পরিবারের
jugantor
দুদিন পর রূপগঞ্জে স্বপ্নের দ্বার খুলবে ২০০ পরিবারের

  রাজু আহমেদ, রূপগঞ্জ থেকে ফিরে  

২১ জানুয়ারি ২০২১, ২১:৪২:২৮  |  অনলাইন সংস্করণ

এলাকা রূপগঞ্জে মুজিববর্ষ উপলক্ষে ভূমিহীন ও গৃহহীনদের জন্য আশ্রয়ণ প্রকল্প-২ এর আওতায় ৪৯৮ টি ঘর নির্মাণ হচ্ছে রূপগঞ্জে। তার মধ্যে ২০০টি ঘরের নির্মাণ কাজ প্রায় সমাপ্ত হয়েছে।

আগামী ২৩ জানুয়ারি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে এ ঘর আনুষ্ঠানিকভাবে উদ্বোধন করবেন। পরে উপকারভোগীদের নিকট চাবিও কবুলিয়ত সনদ হস্তান্তর করা হবে জানা গেছে।

বৃহস্পতিবার দুপুরে রূপগঞ্জের মুগাপাড়া ইউনিয়নের দড়িকান্দি এলাকায় আশ্রয়ণ -০২ প্রকল্পের আওতায় ভূমিহীন ও গৃহহীনদের ঘর পরিদর্শন করেন বস্ত্র ও পাটমন্ত্রী গোলাম দস্তগীর গাজী বীর প্রতীক।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন রূপগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শাহ নুসরাত জাহান, সহকারী কমিশনার (ভূমি) আফিফা খান, আওয়ামী লীগ নেতা হাবিবুর রহমান।

বস্ত্র ও পাটমন্ত্রী গোলাম দস্তগীর গাজী বীরপ্রতীক এ সময় বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে ধন্যবাদ জানাই তিনি প্রথম পর্যায়ে নারায়ণগঞ্জ জেলার মধ্যে আমার নির্বাচনী এলাকায় সবচেয়ে বেশি ঘর বরাদ্দ দিয়েছেন। বঙ্গবন্ধু সারাজীবন দুঃখী মানুষের কল্যাণে কাজ করে গেছেন। বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবর্ষ উপলক্ষে ৬৯ হাজার ৯০৪টি গৃহহীন পরিবারকে ঘর দিয়ে তার কন্যা শেখ হাসিনা প্রমাণ করলেন যোগ্য পিতার যোগ্য কন্যা। এ বাংলা তার নেতৃত্বেই বদলে যাচ্ছে।

তিনি বলেন, অতীতে অনেকে সরকার গঠন করেছে তারা কেউ ভূমিহীন ও গৃহহীনদের জন্য বিনামূল্যে ঘর বাড়ি তৈরি করে দেয়নি। তারা দুর্নীতি করে এখন জেল খাটছে। কেউ পলাতক রয়েছে।

এর আগে বুধবার রূপগঞ্জে আশ্রয়ণ প্রকল্পের গৃহ নির্মাণ কাজ পরিদর্শন করেন আশ্রয়ণ প্রকল্পের প্রকল্প পরিচালক মাহবুব হোসেন (অতিরিক্ত সচিব)।

রূপগঞ্জ উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা আরিফুল ইসলাম জানান, প্রতিটি পরিবারের জন্য দুই শতাংশ জমি বরাদ্দ দিয়ে ঘর তৈরি করা হয়েছে। প্রতিটি ঘর নির্মাণে ১ লাখ ৭১ হাজার টাকা ব্যয় হয়েছে।

নারায়ণগঞ্জ জেলা প্রশাসক মোস্তাইন বিল্লাহ বলেন, নারায়ণগঞ্জে ভূমি ও গৃহহীন ৬৬৭ পরিবারের মাঝে ঘর বরাদ্দ দেয়া হয়েছে।

দুদিন পর রূপগঞ্জে স্বপ্নের দ্বার খুলবে ২০০ পরিবারের

 রাজু আহমেদ, রূপগঞ্জ থেকে ফিরে 
২১ জানুয়ারি ২০২১, ০৯:৪২ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

এলাকা রূপগঞ্জে মুজিববর্ষ উপলক্ষে ভূমিহীন ও গৃহহীনদের জন্য আশ্রয়ণ প্রকল্প-২ এর আওতায় ৪৯৮ টি ঘর নির্মাণ হচ্ছে রূপগঞ্জে। তার মধ্যে ২০০টি ঘরের নির্মাণ কাজ প্রায় সমাপ্ত হয়েছে।

আগামী ২৩ জানুয়ারি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে এ ঘর আনুষ্ঠানিকভাবে উদ্বোধন করবেন। পরে উপকারভোগীদের নিকট চাবিও কবুলিয়ত সনদ হস্তান্তর করা হবে জানা গেছে।

বৃহস্পতিবার দুপুরে রূপগঞ্জের মুগাপাড়া ইউনিয়নের দড়িকান্দি এলাকায় আশ্রয়ণ -০২ প্রকল্পের আওতায় ভূমিহীন ও গৃহহীনদের ঘর পরিদর্শন করেন বস্ত্র ও পাটমন্ত্রী গোলাম দস্তগীর গাজী বীর প্রতীক।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন রূপগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শাহ নুসরাত জাহান, সহকারী কমিশনার (ভূমি) আফিফা খান, আওয়ামী লীগ নেতা হাবিবুর রহমান।

বস্ত্র ও পাটমন্ত্রী গোলাম দস্তগীর গাজী বীরপ্রতীক এ সময় বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে ধন্যবাদ জানাই তিনি প্রথম পর্যায়ে নারায়ণগঞ্জ জেলার মধ্যে আমার নির্বাচনী এলাকায় সবচেয়ে বেশি ঘর বরাদ্দ দিয়েছেন। বঙ্গবন্ধু সারাজীবন দুঃখী মানুষের কল্যাণে কাজ করে গেছেন। বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবর্ষ উপলক্ষে ৬৯ হাজার ৯০৪টি গৃহহীন পরিবারকে ঘর দিয়ে তার কন্যা শেখ হাসিনা প্রমাণ করলেন যোগ্য পিতার যোগ্য কন্যা। এ বাংলা তার নেতৃত্বেই বদলে যাচ্ছে।

তিনি বলেন, অতীতে অনেকে সরকার গঠন করেছে তারা কেউ ভূমিহীন ও গৃহহীনদের জন্য বিনামূল্যে ঘর বাড়ি তৈরি করে দেয়নি। তারা দুর্নীতি করে এখন জেল খাটছে। কেউ পলাতক রয়েছে।

এর আগে বুধবার রূপগঞ্জে আশ্রয়ণ প্রকল্পের গৃহ নির্মাণ কাজ পরিদর্শন করেন আশ্রয়ণ প্রকল্পের প্রকল্প পরিচালক মাহবুব হোসেন (অতিরিক্ত সচিব)।

রূপগঞ্জ উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা আরিফুল ইসলাম জানান, প্রতিটি পরিবারের জন্য দুই শতাংশ জমি বরাদ্দ দিয়ে ঘর তৈরি করা হয়েছে। প্রতিটি ঘর নির্মাণে ১ লাখ ৭১ হাজার টাকা ব্যয় হয়েছে।

নারায়ণগঞ্জ জেলা প্রশাসক মোস্তাইন বিল্লাহ বলেন, নারায়ণগঞ্জে ভূমি ও গৃহহীন ৬৬৭ পরিবারের মাঝে ঘর বরাদ্দ দেয়া হয়েছে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন