নবনির্বাচিত কাউন্সিলর হত্যার ঘটনায় আটক ১
jugantor
নবনির্বাচিত কাউন্সিলর হত্যার ঘটনায় আটক ১

  সিরাজগঞ্জ প্রতিনিধি  

২২ জানুয়ারি ২০২১, ১৬:১২:৩৯  |  অনলাইন সংস্করণ

আটক

সিরাজগঞ্জ সদর পৌরসভা নির্বাচনে বিজয়ী ৬নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর তরিকুল ইসলামকে হত্যার ঘটনায় জাহিদুল ইসলাম (২০) নামের এক ব্যক্তিকে আটক করা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার দিনগত রাত সোয়া ১টার দিকে ঢাকা মহানগর পুলিশের সহযোগিতায় যাত্রাবাড়ী থানার ধলপুর এলাকা থেকে তাকে আটক করা হয় বলে জানিয়েছেন সিরাজগঞ্জের পুলিশ সুপার মো. হাসিবুল আলম।

গ্রেফতার জাহিদুল পেশায় একজন রাজমিস্ত্রী এবং সিরাজগঞ্জ শহরের সাহেদনগর ব্যাপারীপাড়া মহল্লার টিক্কা ব্যাপারীর ছেলে।

শুক্রবার দুপুরে সিরাজগঞ্জ সদর থানা চত্বরে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে পুলিশ সুপার হাসিবুল আলম জানান, জাহিদুল জাহিদুল ঢাকায় রাজমিস্ত্রীর কাজ করতেন। নির্বাচনের ৩/৪দিন আগে তিনি সিরাজগঞ্জে আসেন। ঢাকায় কাজ করার কারণে এলাকা তিনি অনেকটাই অপরিচিত ছিলেন।

‘বিষয়টি বিবেচনায় নিয়ে নির্বাচনে হেরে গেলে জাহিদুলকে দিয়ে বিজয়ী প্রার্থী তরিকুলকে হত্যার পরিকল্পনা করে পরাজিত কাউন্সিলর প্রার্থী শাহাদৎ হোসেন বুদ্দিন ও তার সহযোগীরা। সেই পরিকল্পনার অংশ হিসেবে নির্বাচনের আগের দিন জাহিদুলের হাতে একটি চাকু তুলে দেওয়া হয়।’

শহীদগঞ্জ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রের ফলাফলে বুদ্দিনের পরাজয় নিশ্চিত হলে জাহিদুলকে দিয়ে বিজয়ী কাউন্সিলর তরিকুলকে হত্যা করা হয় বলে জানান পুলিশ সুপার।

তিনি আরও বলেন, আটক জাহিদুল এজাহারভুক্ত আসামি নন। জেলা পুলিশের প্রচেষ্টা, অন্যান্য পুলিশ ইউনিটের সহযোগিতা এবং গোয়েন্দা তথ্যের ভিত্তিতে তাকে আটক করা হয়েছে। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে জাদিুল হত্যার কথা স্বীকার করেছে।

নবনির্বাচিত কাউন্সিলর হত্যার ঘটনায় আটক ১

 সিরাজগঞ্জ প্রতিনিধি 
২২ জানুয়ারি ২০২১, ০৪:১২ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
আটক
ছবি-যুগান্তর

সিরাজগঞ্জ সদর পৌরসভা নির্বাচনে বিজয়ী ৬নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর তরিকুল ইসলামকে হত্যার ঘটনায় জাহিদুল ইসলাম (২০) নামের এক ব্যক্তিকে আটক করা হয়েছে। 

বৃহস্পতিবার দিনগত রাত সোয়া ১টার দিকে ঢাকা মহানগর পুলিশের সহযোগিতায় যাত্রাবাড়ী থানার ধলপুর এলাকা থেকে তাকে আটক করা হয় বলে জানিয়েছেন সিরাজগঞ্জের পুলিশ সুপার মো. হাসিবুল আলম।

গ্রেফতার জাহিদুল পেশায় একজন রাজমিস্ত্রী এবং সিরাজগঞ্জ শহরের সাহেদনগর ব্যাপারীপাড়া মহল্লার টিক্কা ব্যাপারীর ছেলে।  

শুক্রবার দুপুরে সিরাজগঞ্জ সদর থানা চত্বরে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে পুলিশ সুপার হাসিবুল আলম জানান, জাহিদুল জাহিদুল ঢাকায় রাজমিস্ত্রীর কাজ করতেন। নির্বাচনের ৩/৪দিন আগে তিনি সিরাজগঞ্জে আসেন। ঢাকায় কাজ করার কারণে এলাকা তিনি অনেকটাই অপরিচিত ছিলেন। 

‘বিষয়টি বিবেচনায় নিয়ে নির্বাচনে হেরে গেলে জাহিদুলকে দিয়ে বিজয়ী প্রার্থী তরিকুলকে হত্যার পরিকল্পনা করে পরাজিত কাউন্সিলর প্রার্থী শাহাদৎ হোসেন বুদ্দিন ও তার সহযোগীরা। সেই পরিকল্পনার অংশ হিসেবে নির্বাচনের আগের দিন জাহিদুলের হাতে একটি চাকু তুলে দেওয়া হয়।’ 

শহীদগঞ্জ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রের ফলাফলে বুদ্দিনের পরাজয় নিশ্চিত হলে জাহিদুলকে দিয়ে বিজয়ী কাউন্সিলর তরিকুলকে হত্যা করা হয় বলে জানান পুলিশ সুপার। 

তিনি আরও বলেন, আটক জাহিদুল এজাহারভুক্ত আসামি নন। জেলা পুলিশের প্রচেষ্টা, অন্যান্য পুলিশ ইউনিটের সহযোগিতা এবং গোয়েন্দা তথ্যের ভিত্তিতে তাকে আটক করা হয়েছে। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে জাদিুল হত্যার কথা স্বীকার করেছে।

 
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন