সকাল হলেই পাচ্ছে ঘর বিরামপুরের ৪১৫ পরিবার
jugantor
সকাল হলেই পাচ্ছে ঘর বিরামপুরের ৪১৫ পরিবার

  বিরামপুর (দিনাজপুর) প্রতিনিধি  

২২ জানুয়ারি ২০২১, ২১:৪৬:৫৯  |  অনলাইন সংস্করণ

বিরামপুর উপজেলার ৪টি ইউনিয়নে আশ্রয়ণ প্রকল্পের এই বাড়ি নির্মাণ করা হয়েছে।

বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষে প্রধানমন্ত্রী উপহার হিসাবে বিরামপুরে ৪১৫ জন ভূমিহীন ও গৃহহীন মাথা গোঁজার ঠাঁই পাচ্ছেন। বিরামপুর উপজেলার ৪টি ইউনিয়নে আশ্রয়ণ প্রকল্পের এই বাড়ি নির্মাণ করা হয়েছে। ভূমিহীন পরিবারের বসবাসের জন্য হস্তান্তরের প্রক্রিয়াও শুরু হয়েছে।

জানা গেছে, আশ্রয়ণ প্রকল্প-২ এর অধীনে ভূমিহীন ও বাস্তহীন পরিবারের বসবাসের জন্য বিরামপুর উপজেলার খাঁনপুর ইউনিয়নে ৩১১টি, দিওড় ইউনিয়নে ২৮টি, বিনাইল ইউনিয়নে ৫৯টি এবং কাটলা ইউনিয়নে ১৭টি বাড়ি নির্মাণের প্রকল্প গ্রহণ করা হয়। সরকারি খাস জমিতে এসব বাড়ি নির্মাণের লক্ষ্যে প্রতিটির জন্য ১ লাখ ৭১ হাজার টাকা আর খরচ বাবদ ৪ হাজার টাকা ব্যয় নির্ধারণ করা হয়।

এসব বাড়ি জেলা প্রশাসক ও উপজেলা নির্বাহী অফিসারের প্রত্যক্ষ তত্ত্বাবধানে এবং প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তার তদারকিতে নির্মাণ করা হয়েছে। ইতোমধ্যে গৃহ নির্মাণের কাজ প্রায় শেষ।

উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা কাওসার আলী বলেন, খুবই সুন্দরভাবে বাড়ি নির্মাণ করা হচ্ছে, যাতে গরিব গৃহহীনরা এই নতুন বাড়ি পেয়ে অতীতের ঘর না থাকার কষ্ট ভুলে যায়।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার পরিমল কুমার সরকার জানান, এই আশ্রয়ণ প্রকল্পে মোট ৪১৫টি পরিবার জায়গা পাচ্ছেন। ভিক্ষুক, প্রতিবন্ধী, অন্যের বাড়িতে থাকা, রাস্তার পাশে ও হাট বাজারে খোলা জায়গায় ঝুপড়ি ঘরে থাকত যারা, স্বামী পরিত্যক্তা, বিধবা, দিনমজুর এবং ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠী পরিবারসহ সকলেই নতুন ঘরবাড়ি পাচ্ছেন।

সকাল হলেই পাচ্ছে ঘর বিরামপুরের ৪১৫ পরিবার

 বিরামপুর (দিনাজপুর) প্রতিনিধি 
২২ জানুয়ারি ২০২১, ০৯:৪৬ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
বিরামপুর উপজেলার ৪টি ইউনিয়নে আশ্রয়ণ প্রকল্পের এই বাড়ি নির্মাণ করা হয়েছে।
বিরামপুর উপজেলার ৪টি ইউনিয়নে আশ্রয়ণ প্রকল্পের এই বাড়ি নির্মাণ করা হয়েছে।

বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষে প্রধানমন্ত্রী উপহার হিসাবে বিরামপুরে ৪১৫ জন ভূমিহীন ও গৃহহীন মাথা গোঁজার ঠাঁই পাচ্ছেন। বিরামপুর উপজেলার ৪টি ইউনিয়নে আশ্রয়ণ প্রকল্পের এই বাড়ি নির্মাণ করা হয়েছে। ভূমিহীন পরিবারের বসবাসের জন্য হস্তান্তরের প্রক্রিয়াও শুরু হয়েছে।

জানা গেছে, আশ্রয়ণ প্রকল্প-২ এর অধীনে ভূমিহীন ও বাস্তহীন পরিবারের বসবাসের জন্য বিরামপুর উপজেলার খাঁনপুর ইউনিয়নে ৩১১টি, দিওড় ইউনিয়নে ২৮টি, বিনাইল ইউনিয়নে ৫৯টি এবং কাটলা ইউনিয়নে ১৭টি বাড়ি নির্মাণের প্রকল্প গ্রহণ করা হয়। সরকারি খাস জমিতে এসব বাড়ি নির্মাণের লক্ষ্যে প্রতিটির জন্য ১ লাখ ৭১ হাজার টাকা আর খরচ বাবদ ৪ হাজার টাকা ব্যয় নির্ধারণ করা হয়।

এসব বাড়ি জেলা প্রশাসক ও উপজেলা নির্বাহী অফিসারের প্রত্যক্ষ তত্ত্বাবধানে এবং প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তার তদারকিতে নির্মাণ করা হয়েছে। ইতোমধ্যে গৃহ নির্মাণের কাজ প্রায় শেষ।

উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা কাওসার আলী বলেন, খুবই সুন্দরভাবে বাড়ি নির্মাণ করা হচ্ছে, যাতে গরিব গৃহহীনরা এই নতুন বাড়ি পেয়ে অতীতের ঘর না থাকার কষ্ট ভুলে যায়।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার পরিমল কুমার সরকার জানান, এই আশ্রয়ণ প্রকল্পে মোট ৪১৫টি পরিবার জায়গা পাচ্ছেন। ভিক্ষুক, প্রতিবন্ধী, অন্যের বাড়িতে থাকা, রাস্তার পাশে ও হাট বাজারে খোলা জায়গায় ঝুপড়ি ঘরে থাকত যারা,  স্বামী পরিত্যক্তা, বিধবা, দিনমজুর এবং ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠী পরিবারসহ সকলেই  নতুন ঘরবাড়ি পাচ্ছেন।
 

 
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন