‘প্রধানমন্ত্রী ঘর দিছইন, এহন নিজের ঘরে মরতে পারমু’
jugantor
‘প্রধানমন্ত্রী ঘর দিছইন, এহন নিজের ঘরে মরতে পারমু’

  চুনারুঘাট (হবিগঞ্জ) প্রতিনিধি  

২৩ জানুয়ারি ২০২১, ১৯:৪০:১৩  |  অনলাইন সংস্করণ

৭৪ জন গৃহহীন পেয়েছেন নিজের জমি আর ঘর।

নুরুল হুদা, বয়স ৭০। জীবন কাটিয়ে দিয়েছেন পরের জমিতে। জীবনের শেষ বয়সে এসে ঘর পেয়ে শুকরিয়া আদায় করলেন। বললেন, প্রধানমন্ত্রী ঘর দিছইন, এহন নিজের ঘরে মরতে পারমু।

আছিয়া খাতুন, বয়স ৬৫। তিনি থাকতেন কালেঙ্গা বস্তিতে, ছিল না নিজের ঘর-বাড়ি। থাকতেন অন্যের বাড়িতে। দুই ছেলে আছে, মানুষের ঘরে কাজ করে জীবিকা নির্বাহ করতেন। এবার পেলেন নিজের ঘর। তিনি বলেন, এখন থাইক্কা আর ঝড়-বৃষ্টিতে ভিজন লাগত না। আমরার কষ্ট দূর করছইন পরধানমন্ত্রী (প্রধানমন্ত্রী)। তাইনের লাইগ্যা দোয়া করি আল্লাহ যেন হায়াত বাড়িয়ে দেয়।

নুরুল হুদা আর আছিয়ার মতো ৭৪ জন গৃহহীন পেয়েছেন নিজের জমি আর ঘর। হবিগঞ্জের চুনারুঘাট উপজেলার ৭৪টিসহ জেলার ৩২৫টি ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবারকে জমি ও ঘর এবং দলিল হস্তান্তর করা হয়েছে।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা শনিবার সকালে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে ইকরতলী আশ্রয়ণ প্রকল্পে সরাসরি যুক্ত হয়ে এসব ঘরের দলিল হস্তান্তর করেন। এদিন দেশের ৪৯২ উপজেলার প্রায় ৬৬ হাজার পরিবারকে পাকা ঘর হস্তান্তর করেন তিনি।

শেখ হাসিনা বলেন, আজকে আমার অত্যন্ত আনন্দের দিন। গৃহহীন পরিবারকে গৃহ দিতে পারছি, এটি আমার সবচেয়ে আনন্দের। আমার বাবা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান মানুষের কথাই ভাবতেন। আমাদের পরিবারের লোকদের চেয়ে তিনি গরীব অসহায় মানুষদের নিয়ে বেশি ভাবতেন এবং কাজ করেছেন। এই গৃহ প্রদান কার্যক্রম তারই শুরু করা।

এ সময় উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সত্যজিত রায় দাশের সঞ্চালনায় লাইভে যুক্ত ছিলেন বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন প্রতিমন্ত্রী অ্যাডভোকেট মাহবুব আলী, জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ও কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের সদস্য ডা. মুসফিক হোসেন চৌধুরী, হবিগঞ্জের জেলা প্রশাসক কামরুল হাসান, জাতীয় পরিষদ সদস্য শহীদ উদ্দিন চৌধুরী, চুনারুঘাট উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আব্দুল কাদির লস্কর, সাবেক উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আবু তাহের, উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি অ্যাডভোকেট আকবর হোসেন জিতু, ইউপি চেয়ারম্যান হুমায়ূন কবির খানসহ বিভাগীয় কর্মকর্তা, জনপ্রতিনিধি, দলীয় নেতাকর্মী ও উপকারভোগীরা। উপকারভোগীদের মধ্যে নাজমুল হুদা এবং প্রকল্প বাস্তবায়নে সরাসরি যুক্ত সহকারি কমিশনার মিল্টন পাল বক্তব্য রাখেন।

‘প্রধানমন্ত্রী ঘর দিছইন, এহন নিজের ঘরে মরতে পারমু’

 চুনারুঘাট (হবিগঞ্জ) প্রতিনিধি 
২৩ জানুয়ারি ২০২১, ০৭:৪০ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
৭৪ জন গৃহহীন পেয়েছেন নিজের জমি আর ঘর।
৭৪ জন গৃহহীন পেয়েছেন নিজের জমি আর ঘর।

নুরুল হুদা, বয়স ৭০। জীবন কাটিয়ে দিয়েছেন পরের জমিতে। জীবনের শেষ বয়সে এসে ঘর পেয়ে শুকরিয়া আদায় করলেন। বললেন, প্রধানমন্ত্রী ঘর দিছইন, এহন নিজের ঘরে মরতে পারমু।

আছিয়া খাতুন, বয়স ৬৫। তিনি থাকতেন কালেঙ্গা বস্তিতে, ছিল না নিজের ঘর-বাড়ি। থাকতেন অন্যের বাড়িতে। দুই ছেলে আছে, মানুষের ঘরে কাজ করে জীবিকা নির্বাহ করতেন। এবার পেলেন নিজের ঘর। তিনি বলেন, এখন থাইক্কা আর ঝড়-বৃষ্টিতে ভিজন লাগত না। আমরার কষ্ট দূর করছইন পরধানমন্ত্রী (প্রধানমন্ত্রী)। তাইনের লাইগ্যা দোয়া করি আল্লাহ যেন হায়াত বাড়িয়ে দেয়।

নুরুল হুদা আর আছিয়ার মতো ৭৪ জন গৃহহীন পেয়েছেন নিজের জমি আর ঘর। হবিগঞ্জের চুনারুঘাট উপজেলার ৭৪টিসহ জেলার ৩২৫টি ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবারকে জমি ও ঘর এবং দলিল হস্তান্তর করা হয়েছে।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা শনিবার সকালে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে ইকরতলী আশ্রয়ণ প্রকল্পে সরাসরি যুক্ত হয়ে এসব ঘরের দলিল হস্তান্তর করেন। এদিন দেশের ৪৯২ উপজেলার প্রায় ৬৬ হাজার পরিবারকে পাকা ঘর হস্তান্তর করেন তিনি।

শেখ হাসিনা বলেন, আজকে আমার অত্যন্ত আনন্দের দিন। গৃহহীন পরিবারকে গৃহ দিতে পারছি, এটি আমার সবচেয়ে আনন্দের। আমার বাবা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান মানুষের কথাই ভাবতেন। আমাদের পরিবারের লোকদের চেয়ে তিনি গরীব অসহায় মানুষদের নিয়ে বেশি ভাবতেন এবং কাজ করেছেন। এই গৃহ প্রদান কার্যক্রম তারই শুরু করা।

এ সময় উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সত্যজিত রায় দাশের সঞ্চালনায় লাইভে যুক্ত ছিলেন বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন প্রতিমন্ত্রী অ্যাডভোকেট মাহবুব আলী, জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ও কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের সদস্য ডা. মুসফিক হোসেন চৌধুরী, হবিগঞ্জের জেলা প্রশাসক কামরুল হাসান, জাতীয় পরিষদ সদস্য শহীদ উদ্দিন চৌধুরী, চুনারুঘাট উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আব্দুল কাদির লস্কর, সাবেক উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আবু তাহের, উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি অ্যাডভোকেট আকবর হোসেন জিতু, ইউপি চেয়ারম্যান হুমায়ূন কবির খানসহ বিভাগীয় কর্মকর্তা, জনপ্রতিনিধি, দলীয় নেতাকর্মী ও উপকারভোগীরা। উপকারভোগীদের মধ্যে নাজমুল হুদা এবং প্রকল্প বাস্তবায়নে সরাসরি যুক্ত সহকারি কমিশনার মিল্টন পাল বক্তব্য রাখেন।
 

 
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন