৩ দিন পর চুরি হওয়া সেই নবজাতক উদ্ধার, আটক ২
jugantor
৩ দিন পর চুরি হওয়া সেই নবজাতক উদ্ধার, আটক ২

  বেনাপোল প্রতিনিধি  

২৪ জানুয়ারি ২০২১, ১৩:০৩:০৭  |  অনলাইন সংস্করণ

৩ দিন পর চুরি হওয়া সেই নবজাতক উদ্ধার, আটক ২

যশোরের শার্শা উপজেলা থেকে চুরি হওয়া ২৪ দিনের নবজাতককে সাতক্ষীরা থেকে উদ্ধার করা হয়েছে। ওই শিশুর নাম তাহসিন।

অপহরণের তিন দিন পর শনিবার রাতে সাতক্ষীরার কলারোয়া উপজেলার সোনাবাড়িয়া গ্রাম থেকে ওই নবজাতককে উদ্ধার করে পুলিশ।

শিশু তাহসিন শার্শা উপজেলার রুদ্রপুর গ্রামের আশরাফুল ইসলাম ও জান্নাতুল দম্পতির একমাত্র সন্তান।

এদিকে এ ঘটনায় দুজনকে আটক করা হয়েছে; তারা হলো- কলারোয়া উপজেলার সোনাবাড়িয়া গ্রামের মিলন গাজীর স্ত্রী সালমা খাতুন (২৩) ও তার শ্বশুর লুৎফর গাজী (৫৫)।

শার্শা থানার ওসি বদরুল আলম খান বলেন, সাতক্ষীরার কলারোয়া উপজেলার সোনাবাড়িয়া গ্রামের লুৎফর রহমান গাজীর বাড়ি থেকে শনিবার সন্ধ্যা সাড়ে ৭টায় শিশুটিকে উদ্ধার করা হয়। এর পর অভিভাবকদের কাছে নবজাতকটিকে বুঝিয়ে দেওয়া হয়েছে।

এর আগে গত বুধবার শার্শা থানায় অজ্ঞাত আসামি উল্লেখ করে একটি মামলা হয়। শিশুটি উদ্ধারের পর ওই মামলাটি নিয়মিত মামলা হিসেবে নেওয়া হয়।

আটক আসামিদের জিজ্ঞাসাবাদের জন্য যশোর পিবিআই হেফাজতে নেওয়া হয়েছে। উদ্ধারের পর পরই শিশুটিকে তার বাবা-মায়ের কাছে ফিরিয়ে দেওয়া হয়েছে।

ওই নবজাতকের বাবা উপজেলার রুদ্রপুর গ্রামের আশরাফুল ইসলাম বলেন, গত ২০ জানুয়ারি এক নারী বেসরকারি সংস্থার (এনজিও) কর্মী পরিচয় দিয়ে বাড়িতে গিয়ে স্ত্রী জান্নাতুলকে মাতৃত্বকালীন ভাতার কার্ড করে দেবেন বলে প্রলোভন দেখায়।

গত বুধবার সকালে ৩০ হাজার টাকা দেওয়ার কথা বলে ওই নারী আশরাফুলের স্ত্রী ও মাকে বাগআঁচড়া বাজারে নিয়ে যায়। একপর্যায়ে তারা নাশতা করার জন্য বাগআঁচড়া বাজারে একটি হোটেলে যায়।

কৌশলে ওই নারী তাদের নাশতার টেবিলে রেখে নবজাতক তাহসিনকে কোলে নিয়ে পালিয়ে যায়। কিছুক্ষণ পর হোটেলের চারপাশে তাদের খোঁজ করা হয়; কিন্তু কোথাও পাওয়া যায়নি। এর পর শার্শা থানায় অজ্ঞাত আসামি উল্লেখ করে একটি মামলা করা হয়।

৩ দিন পর চুরি হওয়া সেই নবজাতক উদ্ধার, আটক ২

 বেনাপোল প্রতিনিধি 
২৪ জানুয়ারি ২০২১, ০১:০৩ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
৩ দিন পর চুরি হওয়া সেই নবজাতক উদ্ধার, আটক ২
ফাইল ছবি

যশোরের শার্শা উপজেলা থেকে চুরি হওয়া ২৪ দিনের নবজাতককে সাতক্ষীরা থেকে উদ্ধার করা হয়েছে। ওই শিশুর নাম তাহসিন।

অপহরণের তিন দিন পর শনিবার রাতে সাতক্ষীরার কলারোয়া উপজেলার সোনাবাড়িয়া গ্রাম থেকে ওই নবজাতককে উদ্ধার করে পুলিশ।

শিশু তাহসিন শার্শা উপজেলার রুদ্রপুর গ্রামের আশরাফুল ইসলাম ও জান্নাতুল দম্পতির একমাত্র সন্তান।

এদিকে এ ঘটনায় দুজনকে আটক করা হয়েছে; তারা হলো- কলারোয়া উপজেলার সোনাবাড়িয়া গ্রামের মিলন গাজীর স্ত্রী সালমা খাতুন (২৩) ও তার শ্বশুর লুৎফর গাজী (৫৫)।

শার্শা থানার ওসি বদরুল আলম খান বলেন, সাতক্ষীরার কলারোয়া উপজেলার সোনাবাড়িয়া গ্রামের লুৎফর রহমান গাজীর বাড়ি থেকে শনিবার সন্ধ্যা সাড়ে ৭টায় শিশুটিকে উদ্ধার করা হয়। এর পর অভিভাবকদের কাছে নবজাতকটিকে বুঝিয়ে দেওয়া হয়েছে।

এর আগে গত বুধবার শার্শা থানায় অজ্ঞাত আসামি উল্লেখ করে একটি মামলা হয়। শিশুটি উদ্ধারের পর ওই মামলাটি নিয়মিত মামলা হিসেবে নেওয়া হয়।

আটক আসামিদের জিজ্ঞাসাবাদের জন্য যশোর পিবিআই হেফাজতে নেওয়া হয়েছে। উদ্ধারের পর পরই শিশুটিকে তার বাবা-মায়ের কাছে ফিরিয়ে দেওয়া হয়েছে।

ওই নবজাতকের বাবা উপজেলার রুদ্রপুর গ্রামের আশরাফুল ইসলাম বলেন, গত ২০ জানুয়ারি এক নারী বেসরকারি সংস্থার (এনজিও) কর্মী পরিচয় দিয়ে বাড়িতে গিয়ে স্ত্রী জান্নাতুলকে মাতৃত্বকালীন ভাতার কার্ড করে দেবেন বলে প্রলোভন দেখায়।

গত বুধবার সকালে ৩০ হাজার টাকা দেওয়ার কথা বলে ওই নারী আশরাফুলের স্ত্রী ও মাকে বাগআঁচড়া বাজারে নিয়ে যায়। একপর্যায়ে তারা নাশতা করার জন্য বাগআঁচড়া বাজারে একটি হোটেলে যায়।

কৌশলে ওই নারী তাদের নাশতার টেবিলে রেখে নবজাতক তাহসিনকে কোলে নিয়ে পালিয়ে যায়। কিছুক্ষণ পর হোটেলের চারপাশে তাদের খোঁজ করা হয়; কিন্তু কোথাও পাওয়া যায়নি। এর পর শার্শা থানায় অজ্ঞাত আসামি উল্লেখ করে একটি মামলা করা হয়।

 
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন