বিদ্যুৎ বিভাগের হিসাবরক্ষককে মারধর
jugantor
বিদ্যুৎ বিভাগের হিসাবরক্ষককে মারধর

  বরিশাল ব্যুরো   

২৪ জানুয়ারি ২০২১, ১৯:২৯:৫১  |  অনলাইন সংস্করণ

বরিশাল

বরিশালে বিদ্যুৎ বিতরণ বিভাগের হিসাবরক্ষক জামাল হোসেনকে মারধরের অভিযোগ উঠেছে। শনিবার সন্ধ্যা ৭টার দিকে নগরীর আমানতগঞ্জে ওয়েস্টজোন পাওয়ার ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানির (ওজোপাডিকো) বিদ্যুৎ বিতরণ বিভাগ-১ এর কার্যালয়ের সামনে এ ঘটনা ঘটে।

হিসাবরক্ষক জামাল হোসেন জানান,ওজোপাডিকো অফিসসংলগ্ন বাড়ির বাসিন্দা মো. রুকু নামে এক যুবক তাকে মারধর করেছে। রুকু দীর্ঘদিন ধরে ঠিকাদারি কাজ চেয়ে তাকে বিরক্ত করতেন। এর জেরে তার ওপর হামলা চালানো হয়।
জামাল হোসেন বলেন,শনিবার মাগরিবের নামাজের পর আমানতগঞ্জে ওজোপাডিকোর কার্যালয়ের সামনের চায়ের দোকানে দাঁড়িয়ে চা পান করছিলেন। এ সময় রুকু এসে প্রথমে তার সঙ্গে বাকবিতণ্ডা করেন। একপর্যায়ে তাকে এলোপাতাড়ি কিল-ঘুষি-লাথি মেরে রাস্তার ওপর ফেলে দেয়। তিনি এ ঘটনা নির্বাহী প্রকৌশলীকে লিখিতভাবে জানিয়েছেন।
অভিযুক্ত রুকুর কাছে এ বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন,হিসাবরক্ষক জামাল হোসেনের সঙ্গে তার কথাকাটাকাটি হয়েছে মাত্র। তাকে মারধর করার বিষয়টি পুরোপুরি মিথ্যা। জাতীয় বিদ্যুৎ শ্রমিক লীগের সভাপতি শামসুদ্দিন আহমেদ বাবুল বলেন, কর্মচারীদের নিরাপত্তা দিতে বিদ্যুৎ বিভাগ ব্যর্থ হলে তার সংগঠন কর্মসূচি ঘোষণা করবে।

নির্বাহী প্রকৌশলী ফারুক হোসেন বলেন,হিসাবরক্ষক জামাল হোসেন অফিসে কাজ করছিলেন। তিনি নামাজের সময় অফিস সংলগ্ন মসজিদে যান। সেখান থেকে অফিসে ফেরার সময় রুকু নামক এক যুবক তার ওপর হামলা চালায়। এ ঘটনায় আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে।

বিদ্যুৎ বিভাগের হিসাবরক্ষককে মারধর

 বরিশাল ব্যুরো  
২৪ জানুয়ারি ২০২১, ০৭:২৯ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
বরিশাল
বরিশাল

বরিশালে বিদ্যুৎ বিতরণ বিভাগের হিসাবরক্ষক জামাল হোসেনকে মারধরের অভিযোগ উঠেছে। শনিবার সন্ধ্যা ৭টার দিকে নগরীর আমানতগঞ্জে ওয়েস্টজোন পাওয়ার ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানির (ওজোপাডিকো) বিদ্যুৎ বিতরণ বিভাগ-১ এর কার্যালয়ের সামনে এ ঘটনা ঘটে। 

হিসাবরক্ষক জামাল হোসেন জানান,ওজোপাডিকো অফিসসংলগ্ন বাড়ির বাসিন্দা মো. রুকু নামে এক যুবক তাকে মারধর করেছে। রুকু দীর্ঘদিন ধরে ঠিকাদারি কাজ চেয়ে তাকে বিরক্ত করতেন। এর জেরে তার ওপর হামলা চালানো হয়।
জামাল হোসেন বলেন,শনিবার মাগরিবের নামাজের পর আমানতগঞ্জে ওজোপাডিকোর কার্যালয়ের সামনের চায়ের দোকানে দাঁড়িয়ে চা পান করছিলেন। এ সময় রুকু এসে প্রথমে তার সঙ্গে বাকবিতণ্ডা করেন। একপর্যায়ে তাকে এলোপাতাড়ি কিল-ঘুষি-লাথি মেরে রাস্তার ওপর ফেলে দেয়। তিনি এ ঘটনা নির্বাহী প্রকৌশলীকে লিখিতভাবে জানিয়েছেন।
অভিযুক্ত রুকুর কাছে এ বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন,হিসাবরক্ষক জামাল হোসেনের সঙ্গে তার কথাকাটাকাটি হয়েছে মাত্র। তাকে মারধর করার বিষয়টি পুরোপুরি মিথ্যা। জাতীয় বিদ্যুৎ শ্রমিক লীগের সভাপতি শামসুদ্দিন আহমেদ বাবুল বলেন, কর্মচারীদের নিরাপত্তা দিতে বিদ্যুৎ বিভাগ ব্যর্থ হলে তার সংগঠন কর্মসূচি ঘোষণা করবে।

নির্বাহী প্রকৌশলী ফারুক হোসেন বলেন,হিসাবরক্ষক জামাল হোসেন অফিসে কাজ করছিলেন। তিনি নামাজের সময় অফিস সংলগ্ন মসজিদে যান। সেখান থেকে অফিসে ফেরার সময় রুকু নামক এক যুবক তার ওপর হামলা চালায়। এ ঘটনায় আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে।
 

 
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন