মেয়েদের স্কুলে যাতায়াত নির্বিঘ্ন করতে অভিযান
jugantor
মেয়েদের স্কুলে যাতায়াত নির্বিঘ্ন করতে অভিযান

  টেকেরহাট (মাদারীপুর) প্রতিনিধি  

২৪ জানুয়ারি ২০২১, ২১:১১:৫৭  |  অনলাইন সংস্করণ

মাদারীপুরের রাজৈর থানা পুলিশ কিশোর গ্যাং নিয়ন্ত্রণে অভিযান পরিচালনা করেছে। শনিবার বিকাল ৫টা থেকে সন্ধ্যা ৭টা পর্যন্ত তাদের এ অভিযান পরিচালিত হয়।

জানা যায়, উপজেলা সদর, টেকেরহাট বন্দরসহ গ্রামাঞ্চলে উঠতি বয়সী কিছু বখাটে ছেলে বিভিন্ন মোড়ে মোড়ে স্কুলে যাতায়াতের পথে মেয়েদের উত্ত্যক্ত করে। এছাড়াও এরা হেলমেট এবং লাইসেন্স ছাড়া ২-৩ জনকে মোটরসাইকেলের পেছনে উঠিয়ে বেপরোয়াভাবে চালাতে থাকে।

এসব অভিযোগের ভিত্তিতে পুলিশ শনিবার বিকাল ৫টা থেকে সন্ধ্যা ৭টা পর্যন্ত কিশোর গ্যাংবিরোধী অভিযান পরিচালনা করেছে। এ সময় উপজেলার টেকেরহাট বন্দরের ৫ তলার মোড়, কাঠের পোল, মিল্কভিটা রোডসহ বিভিন্ন রোডে অভিযান পরিচালনা করা হয়।

অভিযান চলাকালে বেপরোয়া মোটরসাইকেল চালকদের নামিয়ে সতর্ক করা হয় এবং ভবিষ্যতে এরকম করলে তাদের আইনের আওতায় আনা হবে বলে জানানো হয়। অপরদিকে এলোমেলো ঘোরাঘুরি না করে আজান হলে মসজিদে গিয়ে নামাজ আদায়ের পরামর্শ দেওয়া হয়।

অভিযানে থানার ওসি, এসআই, এএসআইসহ ২২ জন পুলিশ উপস্থিত ছিলেন।

রাজৈর থানার ওসি শেখ সাদিক জানান, মেয়েরা যাতে নির্বিঘ্নে স্কুলে যেতে পারে সেই জন্য এ অভিযান। এছাড়াও মাদক নিয়ন্ত্রণ এবং উঠতি বয়সী ছেলেরা হেলমেট, লাইসেন্স ছাড়া যাতে বেপরোয়াভাবে মোটরসাইকেল চালাতে না পারে সেজন্য অভিযান অব্যাহত থাকবে।

মেয়েদের স্কুলে যাতায়াত নির্বিঘ্ন করতে অভিযান

 টেকেরহাট (মাদারীপুর) প্রতিনিধি 
২৪ জানুয়ারি ২০২১, ০৯:১১ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

মাদারীপুরের রাজৈর থানা পুলিশ কিশোর গ্যাং নিয়ন্ত্রণে অভিযান পরিচালনা করেছে। শনিবার বিকাল ৫টা থেকে সন্ধ্যা ৭টা পর্যন্ত তাদের এ অভিযান পরিচালিত হয়।

জানা যায়, উপজেলা সদর, টেকেরহাট বন্দরসহ গ্রামাঞ্চলে উঠতি বয়সী কিছু বখাটে ছেলে বিভিন্ন মোড়ে মোড়ে স্কুলে যাতায়াতের পথে মেয়েদের উত্ত্যক্ত করে। এছাড়াও এরা হেলমেট এবং লাইসেন্স ছাড়া ২-৩ জনকে মোটরসাইকেলের পেছনে উঠিয়ে বেপরোয়াভাবে চালাতে থাকে।

এসব অভিযোগের ভিত্তিতে পুলিশ শনিবার বিকাল ৫টা থেকে সন্ধ্যা ৭টা পর্যন্ত কিশোর গ্যাংবিরোধী অভিযান পরিচালনা করেছে। এ সময় উপজেলার টেকেরহাট বন্দরের ৫ তলার মোড়, কাঠের পোল, মিল্কভিটা রোডসহ বিভিন্ন রোডে অভিযান পরিচালনা করা হয়।

অভিযান চলাকালে বেপরোয়া মোটরসাইকেল চালকদের নামিয়ে সতর্ক করা হয় এবং ভবিষ্যতে এরকম করলে তাদের আইনের আওতায় আনা হবে বলে জানানো হয়। অপরদিকে এলোমেলো ঘোরাঘুরি না করে আজান হলে মসজিদে গিয়ে নামাজ আদায়ের পরামর্শ দেওয়া হয়।

অভিযানে থানার ওসি, এসআই, এএসআইসহ ২২ জন পুলিশ উপস্থিত ছিলেন।

রাজৈর থানার ওসি শেখ সাদিক জানান, মেয়েরা যাতে নির্বিঘ্নে স্কুলে যেতে পারে সেই জন্য এ অভিযান। এছাড়াও মাদক নিয়ন্ত্রণ এবং উঠতি বয়সী ছেলেরা হেলমেট, লাইসেন্স ছাড়া যাতে বেপরোয়াভাবে মোটরসাইকেল চালাতে না পারে সেজন্য অভিযান অব্যাহত থাকবে।

 
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন