নিজ ঘরে হাতুড়িপেটায় নারীকে হত্যা
jugantor
নিজ ঘরে হাতুড়িপেটায় নারীকে হত্যা

  হবিগঞ্জ প্রতিনিধি  

০৬ ফেব্রুয়ারি ২০২১, ১৪:৫১:৩৯  |  অনলাইন সংস্করণ

জাকিরা

হবিগঞ্জের বানিয়াচং উপজেলায় নিজ ঘরে হাতুড়ি দিয়ে এক নারীকে পিটিয়ে হত্যা করা হয়েছে।

শুক্রবার রাতে উপজেলার চৌধুরীপাড়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

নিহত নারীর নাম জাকিরা (৬৫)। তিনি ওই গ্রামের মৃত আব্দুল হান্নান ঠাকুরের স্ত্রী।

এ ঘটনায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য নিহত জাকিরার ছেলে গোলাম কিবরিয়া ঠাকুর জোবায়েরকে (৩৫) থানায় নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করছে পুলিশ।

নিহতের ছেলে জোবায়ের বলেন, ঘরে তিনি এবং তার মা থাকতেন। সন্ধ্যা ৭টার দিকে তিনি মাকে ঘরে রেখে কেনাকাটার জন্য গ্যানিংগঞ্জ বাজারে যান। এসে দেখেন সামনের দরজায় তালা লাগানো।

মাকে ডাকাডাকি করলে ঘরের ভেতর বা বাইরে কোথাও থেকে সাড়া না পেয়ে পিছনে গিয়ে দেখেন দরজা ভাঙা এবং ভেতরে মায়ের মরদেহ।

হাতুড়ির আঘাতে মায়ের মাথা থেঁতলানো এবং হাতুড়িটিও মাথায় আটকে রয়েছে। এ অবস্থা দেখে তিনি চিৎকার করে কান্নাকাটি করতে থাকলে লোকজন এগিয়ে আসে। রাতে এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত থানায় কোন মামলার খবর পাওয়া যায়নি। পুলিশ মায়ের মরদেহ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে গেছে।

বানিয়াচং থানার ওসি মোহাম্মদ এমরান হোসেন জানান, ঘটনার প্রকৃত খুনিকে বের করতে পুলিশের বিভিন্ন ইউনিট কাজ করছে। আশা করি খুব দ্রুত সময়ের মধ্যেই এ ঘটনার রহস্য উদঘাটন করা সম্ভব হবে।

নিজ ঘরে হাতুড়িপেটায় নারীকে হত্যা

 হবিগঞ্জ প্রতিনিধি 
০৬ ফেব্রুয়ারি ২০২১, ০২:৫১ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
জাকিরা
জাকিরা। ছবি: যুগান্তর

হবিগঞ্জের বানিয়াচং উপজেলায় নিজ ঘরে হাতুড়ি দিয়ে এক নারীকে পিটিয়ে হত্যা করা হয়েছে।

শুক্রবার রাতে উপজেলার চৌধুরীপাড়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

নিহত নারীর নাম জাকিরা (৬৫)। তিনি ওই গ্রামের মৃত আব্দুল হান্নান ঠাকুরের স্ত্রী।

এ ঘটনায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য নিহত জাকিরার ছেলে গোলাম কিবরিয়া ঠাকুর জোবায়েরকে (৩৫) থানায় নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করছে পুলিশ।

নিহতের ছেলে জোবায়ের বলেন, ঘরে তিনি এবং তার মা থাকতেন। সন্ধ্যা ৭টার দিকে তিনি মাকে ঘরে রেখে কেনাকাটার জন্য গ্যানিংগঞ্জ বাজারে যান। এসে দেখেন সামনের দরজায় তালা লাগানো।

মাকে ডাকাডাকি করলে ঘরের ভেতর বা বাইরে কোথাও থেকে সাড়া না পেয়ে পিছনে গিয়ে দেখেন দরজা ভাঙা এবং ভেতরে মায়ের মরদেহ।

হাতুড়ির আঘাতে মায়ের মাথা থেঁতলানো এবং হাতুড়িটিও মাথায় আটকে রয়েছে। এ অবস্থা দেখে তিনি চিৎকার করে কান্নাকাটি করতে থাকলে লোকজন এগিয়ে আসে। রাতে এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত থানায় কোন মামলার খবর পাওয়া যায়নি। পুলিশ মায়ের মরদেহ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে গেছে।

বানিয়াচং থানার ওসি মোহাম্মদ এমরান হোসেন জানান, ঘটনার প্রকৃত খুনিকে বের করতে পুলিশের বিভিন্ন ইউনিট কাজ করছে। আশা করি খুব দ্রুত সময়ের মধ্যেই এ ঘটনার রহস্য উদঘাটন করা সম্ভব হবে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন