বিরামপুর সীমান্তে শিশুসহ তিন শরণার্থী আটক
jugantor
বিরামপুর সীমান্তে শিশুসহ তিন শরণার্থী আটক

  বিরামপুর (দিনাজপুর) প্রতিনিধি  

০৮ ফেব্রুয়ারি ২০২১, ২০:৫৪:১১  |  অনলাইন সংস্করণ

দিনাজপুরের বিরামপুর সীমান্ত এলাকা দিয়ে ভারতে প্রবেশের সময় শিশুসহ তিন রোহিঙ্গা শরণার্থীকে আটক করেছে বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি) সদস্যরা। সোমবার দুপুরে উপজেলার দেশমা বাজারের অদূরে তাদের আটক করা হয়।

২৯ ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক লে. কর্নেল শরিফ উল্লাহ আবেদ বিষয়টির সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

তিন রোহিঙ্গা শরণার্থী হলো- মজিবর হোসেন (২৭), তার স্ত্রী সাদেকুন নাহার (২৪) এবং তাদের সন্তান রহমত হোসেন (৫)। ওই তিনজন মিয়ানমার থেকে দেশে পালিয়ে এসে বাংলাদেশ রোহিঙ্গা শরণার্থী ক্যাম্পে ছিলেন বলেন জানিয়েছেন তারা।

স্থানীয় বিনাইল ইউনিয়নের ২নং সংরক্ষিত মহিলা ইউপি সদস্যা মাকসুদা বেগম যুগান্তরকে বলেন, সকালে দেশমা বাজার এলাকায় নিজ বাড়ি থেকে বের হয়ে দেখি রাস্তার পাশে এক শিশুসহ তিনজন বসে আছে। এ সময় তাদের ঠিকানা জানতে চাইলে কিছু বলতে পারছে না। তাদের মাঝে অস্থিরতা দেখে বাড়িতে নিয়ে আসি। পরে স্থানীয় শিক্ষক আনোয়ার হোসেনের কাছে তারা স্বীকার করে তারা রোহিঙ্গা শরণার্থী। পরে বিষয়টি স্থানীয় বিনাইল ইউপি চেয়ারম্যানের মাধ্যমে পুলিশ ও বিজিবিকে জানানো হয়।

স্থানীয় বিনাইল ইউপি চেয়ারম্যান শহিদুল ইসলাম যুগান্তরকে বলেন, ওই তিন রোহিঙ্গা শরণার্থী আসার খবরে সেখানে গিয়ে তাদের কথা শুনে মনে হয়েছে তারা মিয়ানমার এলাকা থেকে এসেছে। পরে বিষয়টি ২৯ ব্যাটালিয়নের অধিনায়ককে জানালে তিনি এক দোভাষীকে পাঠিয়ে দেন। পরে স্থানীয় চৌঠা বিজিবি ক্যাম্পে নিয়ে যাওয়া হয়েছে।

জানতে চাইলে ২৯ ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক লে. কর্নেল শরিফ উল্লাহ আবেদ যুগান্তরকে বলেন, বিরামপুর দেশমা এলাকায় শিশুসহ তিন রোহিঙ্গা শরণার্থী আটকের খবরে এক দোভাষীকে পাঠিয়ে জানা গেছে তারা রোহিঙ্গা শরণার্থী। প্রাথমিকভাবে তারা স্বীকার করেছে তারা ভারতে পালানোর উদ্দেশ্যে সীমান্তে এসেছিল।

তিনি আরও বলেন, সব আইনি প্রক্রিয়ার মাধ্যমে তাদের রোহিঙ্গা শরণার্থী ক্যাম্পে পাঠানো হবে।

বিরামপুর সীমান্তে শিশুসহ তিন শরণার্থী আটক

 বিরামপুর (দিনাজপুর) প্রতিনিধি 
০৮ ফেব্রুয়ারি ২০২১, ০৮:৫৪ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

দিনাজপুরের বিরামপুর সীমান্ত এলাকা দিয়ে ভারতে প্রবেশের সময় শিশুসহ তিন রোহিঙ্গা শরণার্থীকে আটক করেছে বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি) সদস্যরা। সোমবার দুপুরে উপজেলার দেশমা বাজারের অদূরে তাদের আটক করা হয়।

২৯ ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক লে. কর্নেল শরিফ উল্লাহ আবেদ বিষয়টির সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

তিন রোহিঙ্গা শরণার্থী হলো- মজিবর হোসেন (২৭), তার স্ত্রী সাদেকুন নাহার (২৪) এবং তাদের সন্তান রহমত হোসেন (৫)। ওই তিনজন মিয়ানমার থেকে দেশে পালিয়ে এসে বাংলাদেশ রোহিঙ্গা শরণার্থী ক্যাম্পে ছিলেন বলেন জানিয়েছেন তারা।

স্থানীয় বিনাইল ইউনিয়নের ২নং সংরক্ষিত মহিলা ইউপি সদস্যা মাকসুদা বেগম যুগান্তরকে বলেন, সকালে দেশমা বাজার এলাকায় নিজ বাড়ি থেকে বের হয়ে দেখি রাস্তার পাশে এক শিশুসহ তিনজন বসে আছে। এ সময় তাদের ঠিকানা জানতে চাইলে কিছু বলতে পারছে না। তাদের মাঝে অস্থিরতা দেখে বাড়িতে নিয়ে আসি। পরে স্থানীয় শিক্ষক আনোয়ার হোসেনের কাছে তারা স্বীকার করে তারা রোহিঙ্গা শরণার্থী। পরে বিষয়টি স্থানীয় বিনাইল ইউপি চেয়ারম্যানের মাধ্যমে পুলিশ ও বিজিবিকে জানানো হয়।

স্থানীয় বিনাইল ইউপি চেয়ারম্যান শহিদুল ইসলাম যুগান্তরকে বলেন, ওই তিন রোহিঙ্গা শরণার্থী আসার খবরে সেখানে গিয়ে তাদের কথা শুনে মনে হয়েছে তারা মিয়ানমার এলাকা থেকে এসেছে। পরে বিষয়টি ২৯ ব্যাটালিয়নের অধিনায়ককে জানালে তিনি এক দোভাষীকে পাঠিয়ে দেন। পরে স্থানীয় চৌঠা বিজিবি ক্যাম্পে নিয়ে যাওয়া হয়েছে।

জানতে চাইলে ২৯ ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক লে. কর্নেল শরিফ উল্লাহ আবেদ যুগান্তরকে বলেন, বিরামপুর দেশমা এলাকায় শিশুসহ তিন রোহিঙ্গা শরণার্থী আটকের খবরে এক দোভাষীকে পাঠিয়ে জানা গেছে তারা রোহিঙ্গা শরণার্থী। প্রাথমিকভাবে তারা স্বীকার করেছে তারা ভারতে পালানোর উদ্দেশ্যে সীমান্তে এসেছিল।

তিনি আরও বলেন, সব আইনি প্রক্রিয়ার মাধ্যমে তাদের রোহিঙ্গা শরণার্থী ক্যাম্পে পাঠানো হবে।

 
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন