গৃহবধূকে ধর্ষণের হুমকি দিয়ে ডাকাতি
jugantor
গৃহবধূকে ধর্ষণের হুমকি দিয়ে ডাকাতি

  তিতাস (কুমিল্লা) প্রতিনিধি  

০৮ ফেব্রুয়ারি ২০২১, ২১:০২:৫৪  |  অনলাইন সংস্করণ

কুমিল্লার তিতাস উপজেলা সদরের কড়িকান্দি ইউনিয়নে এক গৃহবধূকে গণধর্ষণের হুমকি দিয়ে ডাকাতির ঘটনা ঘটেছে। রোববার রাত দেড়টার দিকে চর রাজাপুরের হাবিবুর রহমান বেপারি বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে।

সরেজমিন জানা যায়, এসএস পাইপের গেটের মালয়েশিয়ান তালা তরল জাতীয় কিছু দিয়ে খুলে ঘরের ভেতর প্রবেশ করে ১২-১৫ জনের একটি সংঘবদ্ধ ডাকাত দল। তারা অস্ত্রের মুখে সাইফুল ইসলামের স্ত্রীকে গণধর্ষণের হুমকি দিয়ে প্রতিটি কক্ষ থেকে তালা ভেঙে দামি সব জিনিসপত্র নিয়ে যায়।

এ বিষয়ে হাবিবুর রহমান প্রকাশ হবির ছেলে মালয়েশিয়া প্রবাসী সাইফুল ইসলাম বলেন, ডাকাতরা ঘরে ঢুকেই আমাদের সবার হাত, পা, মুখ দড়ি ও স্কচটেপ দিয়ে বেঁধে ফেলে। ডাকাত দল ঘরে থাকা নগদ চার লাখ টাকা, ১০ ভরি ওজনের স্বর্ণালঙ্কার, ল্যাপটপসহ প্রায় ১৭ লক্ষাধিক টাকার মূল্যবান জিনিসপত্র নিয়ে যায় বলে পরিবারটির দাবি।

বাড়ির মালিক হাবিবুর রহমান হবি বলেন, আমার পুত্রবধূকে জিম্মি করে রাম দা, ধারালো ছুরি ও কাওয়াল দিয়ে ভয় দেখিয়ে সব নিয়ে নিঃস্ব করে গেছে আমাদের। এখন আমার কী হবে? দেশে কী আইনশৃঙ্খলা বলতে কিছু নাই?

এর আগেও একই কায়দায় উপজেলার আলীরগাঁও গ্রামের দুটি বাড়িতে ডাকাতির ঘটনা ঘটে। গৃহবধূকে ডাকাত দল ধর্ষণ করার চেষ্টা করলে বুকে পবিত্র কোরআন শরীফ চেপে ধরে ধর্ষণ থেকে রক্ষা পান সেই গৃহবধূ।

এ বিষয়ে তিতাস থানার ওসি সৈয়দ আহসানুল ইসলাম জানান, আমি নিজেই ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছি। তদন্তসাপেক্ষে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করব।

গৃহবধূকে ধর্ষণের হুমকি দিয়ে ডাকাতি

 তিতাস (কুমিল্লা) প্রতিনিধি 
০৮ ফেব্রুয়ারি ২০২১, ০৯:০২ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

কুমিল্লার তিতাস উপজেলা সদরের কড়িকান্দি ইউনিয়নে এক গৃহবধূকে গণধর্ষণের হুমকি দিয়ে ডাকাতির ঘটনা ঘটেছে। রোববার রাত দেড়টার দিকে চর রাজাপুরের হাবিবুর রহমান বেপারি বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে।

সরেজমিন জানা যায়, এসএস পাইপের গেটের মালয়েশিয়ান তালা তরল জাতীয় কিছু দিয়ে খুলে ঘরের ভেতর প্রবেশ করে ১২-১৫ জনের একটি সংঘবদ্ধ ডাকাত দল। তারা অস্ত্রের মুখে সাইফুল ইসলামের স্ত্রীকে গণধর্ষণের হুমকি দিয়ে প্রতিটি কক্ষ থেকে তালা ভেঙে দামি সব জিনিসপত্র নিয়ে যায়।

এ বিষয়ে হাবিবুর রহমান প্রকাশ হবির ছেলে মালয়েশিয়া প্রবাসী সাইফুল ইসলাম বলেন, ডাকাতরা ঘরে ঢুকেই আমাদের সবার হাত, পা, মুখ দড়ি ও স্কচটেপ দিয়ে বেঁধে ফেলে। ডাকাত দল ঘরে থাকা নগদ চার লাখ টাকা, ১০ ভরি ওজনের স্বর্ণালঙ্কার, ল্যাপটপসহ প্রায় ১৭ লক্ষাধিক টাকার মূল্যবান জিনিসপত্র নিয়ে যায় বলে পরিবারটির দাবি।

বাড়ির মালিক হাবিবুর রহমান হবি বলেন, আমার পুত্রবধূকে জিম্মি করে রাম দা, ধারালো ছুরি ও কাওয়াল দিয়ে ভয় দেখিয়ে সব নিয়ে নিঃস্ব করে গেছে আমাদের। এখন আমার কী হবে? দেশে কী আইনশৃঙ্খলা বলতে কিছু নাই?

এর আগেও একই কায়দায় উপজেলার আলীরগাঁও গ্রামের দুটি বাড়িতে ডাকাতির ঘটনা ঘটে। গৃহবধূকে ডাকাত দল ধর্ষণ করার চেষ্টা করলে বুকে পবিত্র কোরআন শরীফ চেপে ধরে ধর্ষণ থেকে রক্ষা পান সেই গৃহবধূ।

এ বিষয়ে তিতাস থানার ওসি সৈয়দ আহসানুল ইসলাম জানান, আমি নিজেই ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছি। তদন্তসাপেক্ষে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করব।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন