ফুলপুরে বিএনপির হামলায় আ.লীগের ৫ নেতাকর্মী আহত
jugantor
ফুলপুরে বিএনপির হামলায় আ.লীগের ৫ নেতাকর্মী আহত

  ফুলপুর (ময়মনসিংহ) প্রতিনিধি:  

১১ ফেব্রুয়ারি ২০২১, ০১:৫০:৫৫  |  অনলাইন সংস্করণ

ফুলপুর পৌর নির্বাচন নিয়ে বুধবার রাতে বিএনপির হামলায় আওয়ামী লীগের ৫ নেতাকর্মী আহত ও বিএনপি নির্বাচনী কার্যালয় ভাংচুরের অভিযোগ পাওয়া গেছে।

জানা যায়, ফুলপুর পৌরসভা নির্বাচনে নৌকার প্রার্থী শশধর সেনের সমর্থনে সাহাপুর ও ধানের শীষের প্রার্থী আমিনুল হকের সমর্থনে গোদারিয়া গ্রামে বুধবার রাতে জনসভা চলছিল।

নৌকার জনসভা শেষে নেতাকর্মীরা ফেরার পথে পার্শ্ববর্তি গোদারিয়া মাদরাসা সংলগ্ন এলাকায় পৌঁছলে রাত সাড়ে নয়টার দিকে তাদের উপর হামলায় জেলা পরিষদ সদস্য আওয়ামী লীগ নেতা আব্দুল খালেকসহ আওয়ামী লীগের রয়েল, আজাদ, উজ্জল ও আসিফ আহত হন।

অপর দিকে হামলায় হালুয়াঘাট রোডস্থ ধানের শীষ প্রার্থীর কার্যালয়ের সকল প্লাষ্টিক চেয়ার ভাংচুরসহ ও সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান বিএনপি নেতা আবুল বাসার আকন্দের বাসভবনে ভাংচুরের ঘটনা ঘটে।

পরে নৌকার পক্ষে উত্তেজিত দু’শতাধিক কর্মী সমর্থক লাঠি বৈঠা নিয়ে নৌকার নির্বাচনী কার্যালয়ে জড়ো হয়ে বিক্ষোভ করেন। পুলিশের চেষ্টায় রাত ১২ দিকে পরিস্থিতির নিয়ন্ত্রণ হয়।

ফুলপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম আহবায়ক হাবিবুর রহমান ও উপজেলা চেয়ারম্যান আওয়ামী লীগ নেতা আতাউল করিম রাসেল জানিয়েছেন, বিএনপির সন্ত্রাসীদের হামলায় তাদের ৫ জন আহত হয়েছেন। তারা নিজেরাই ভাংচুর করে আমাদের উপর দোষ চাপাচ্ছে। ২৪ ঘান্টার মধ্যে তাদের গ্রেফতার না করলে কঠোর কর্মসূচি দেয়া হবে।

অপর দিকে বিএপির প্রার্থী মেয়র মো.আমিনুল হক হামলা হওয়ার বিষয় অস্বীকার করে জানিয়েছেন, দূরে জনসভায় ছিলাম। আওয়ামী লীগের লোকজন আমার নির্বাচনী অফিস ও সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান বিএনপি নেতা আবুল বাসার আকন্দের বাসভবন ভাংচুর করেছে।

ফুলপুরে বিএনপির হামলায় আ.লীগের ৫ নেতাকর্মী আহত

 ফুলপুর (ময়মনসিংহ) প্রতিনিধি: 
১১ ফেব্রুয়ারি ২০২১, ০১:৫০ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ

ফুলপুর পৌর নির্বাচন নিয়ে বুধবার রাতে বিএনপির হামলায় আওয়ামী লীগের ৫ নেতাকর্মী আহত ও বিএনপি নির্বাচনী কার্যালয় ভাংচুরের অভিযোগ পাওয়া গেছে।

জানা যায়, ফুলপুর পৌরসভা নির্বাচনে নৌকার প্রার্থী শশধর সেনের সমর্থনে সাহাপুর ও ধানের শীষের প্রার্থী আমিনুল হকের সমর্থনে গোদারিয়া গ্রামে বুধবার রাতে জনসভা চলছিল। 

নৌকার জনসভা শেষে নেতাকর্মীরা ফেরার পথে পার্শ্ববর্তি গোদারিয়া মাদরাসা সংলগ্ন এলাকায় পৌঁছলে রাত সাড়ে নয়টার দিকে তাদের উপর হামলায় জেলা পরিষদ সদস্য আওয়ামী লীগ নেতা আব্দুল খালেকসহ আওয়ামী লীগের রয়েল, আজাদ, উজ্জল ও আসিফ আহত হন। 

অপর দিকে হামলায় হালুয়াঘাট রোডস্থ ধানের শীষ প্রার্থীর কার্যালয়ের সকল প্লাষ্টিক চেয়ার ভাংচুরসহ ও সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান বিএনপি নেতা আবুল বাসার আকন্দের বাসভবনে ভাংচুরের ঘটনা ঘটে। 

পরে নৌকার পক্ষে উত্তেজিত দু’শতাধিক কর্মী সমর্থক লাঠি বৈঠা নিয়ে নৌকার নির্বাচনী কার্যালয়ে জড়ো হয়ে বিক্ষোভ করেন। পুলিশের চেষ্টায় রাত ১২ দিকে পরিস্থিতির নিয়ন্ত্রণ হয়। 

ফুলপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম আহবায়ক হাবিবুর রহমান ও উপজেলা চেয়ারম্যান আওয়ামী লীগ নেতা আতাউল করিম রাসেল জানিয়েছেন, বিএনপির সন্ত্রাসীদের হামলায় তাদের ৫ জন আহত হয়েছেন। তারা নিজেরাই ভাংচুর করে আমাদের উপর দোষ চাপাচ্ছে। ২৪ ঘান্টার মধ্যে তাদের গ্রেফতার না করলে কঠোর কর্মসূচি দেয়া হবে। 

অপর দিকে বিএপির প্রার্থী মেয়র মো.আমিনুল হক হামলা হওয়ার বিষয় অস্বীকার করে জানিয়েছেন, দূরে জনসভায় ছিলাম। আওয়ামী লীগের লোকজন আমার নির্বাচনী অফিস ও সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান বিএনপি নেতা আবুল বাসার আকন্দের বাসভবন ভাংচুর করেছে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন