টিকা নিতে নারীদের দীর্ঘ লাইন
jugantor
টিকা নিতে নারীদের দীর্ঘ লাইন

  জলঢাকা (নীলফামারী) প্রতিনিধি  

১১ ফেব্রুয়ারি ২০২১, ১৯:১২:৩৩  |  অনলাইন সংস্করণ

নীলফামারীর জলঢাকায় কোভিড-১৯ ভ্যাকসিনে বেড়েছে আগ্রহ। লাইনে দাঁড়িয়ে এখন টিকা গ্রহণ করছেন অনেকে। গত কয়েক দিনের চেয়ে বুধ ও বৃহস্পতিবার টিকা গ্রহণের সংখ্যা বেড়েছে প্রায় আটগুণ। জলঢাকা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নারীদের দীর্ঘ লাইন দেখা যায়।

প্রথম দিন মাত্র ৩০ জন টিকা গ্রহণ করলেও বর্তমানে এ সংখ্যা এখন দিনে দুইশ পেরিয়েছে। বৃহস্পতিবার টিকা গ্রহণ করেছেন ২৮০ জন। এর মধ্যে নারীই ৭৩ জন। শনিবার থেকে এ সংখ্যা আরও অনেক বেড়ে যাবে বলে মনে করছেন স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স সংশ্লিষ্টরা।

সরেজমিন জলঢাকা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে গিয়ে দেখা যায়, নারীদের দীর্ঘ লাইন। বিভিন্ন ইউনিয়ন থেকে এসেছেন করোনার টিকা গ্রহণ করতে।

এ সময় উপজেলার শালনগ্রাম এলাকার শাহিনা আক্তার বানু এবং তালুক গোলনা এলাকার অঞ্জলী রানীর সঙ্গে কথা হয়। তারা বলেন, আমরা টিকা নিতে এসেছি। এ সুযোগ আমরা নষ্ট করতে চাই না। তাছাড়া শুনেছি এবং দেখছি টিকা নিলে সমস্যা হচ্ছে না।

এছাড়াও তাৎক্ষণিক রেজিস্ট্রেশন করে টিকা গ্রহণের সুযোগ তৈরি করে দিয়েছে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স। সেখানেও মানুষের উপচেপড়া ভিড় দেখা গেছে।

এ সময় টিকা নিতে আসেন উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আব্দুল ওয়াহেদ বাহাদুর, জেলা পরিষদ সদস্য জুলফিকার আলী জুয়েল, জেলা জাসদের সভাপতি অধ্যাপক আজিজুল ইসলামসহ বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের নেতারা।

টিকা গ্রহণ শেষে উপজেলা চেয়ারম্যান আব্দুল ওয়াহেদ বাহাদুর বলেন, আমি টিকা নিলাম। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার এ উপহার যেন সবাই গ্রহণ করেন। স্বাস্থ্য সুরক্ষার জন্য অবশ্যই সবাইকে টিকা নিতে হবে।

স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. এএইচএম রেজওয়ানুল কবির বলেন, জলঢাকা উপজেলার জন্য বরাদ্দ হয়েছে ১১ হাজার ১১৪ টিকার ডোজ; যা প্রথম পর্যায়ে পাঁচ হাজার ৫৭০ জনকে প্রয়োগ করা সম্ভব হবে।

বর্তমানে টিকা গ্রহণ কার্যক্রম সন্তোষজনক উল্লেখ করে তিনি আরও বলেন, আশা করি এ মাসেই আমাদের প্রথম ডোজ টিকা বরাদ্দকৃতদের মধ্যে দেয়া সম্ভব হবে।

টিকা নিতে নারীদের দীর্ঘ লাইন

 জলঢাকা (নীলফামারী) প্রতিনিধি 
১১ ফেব্রুয়ারি ২০২১, ০৭:১২ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

নীলফামারীর জলঢাকায় কোভিড-১৯ ভ্যাকসিনে বেড়েছে আগ্রহ। লাইনে দাঁড়িয়ে এখন টিকা গ্রহণ করছেন অনেকে। গত কয়েক দিনের চেয়ে বুধ ও বৃহস্পতিবার টিকা গ্রহণের সংখ্যা বেড়েছে প্রায় আটগুণ। জলঢাকা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নারীদের দীর্ঘ লাইন দেখা যায়।

প্রথম দিন মাত্র ৩০ জন টিকা গ্রহণ করলেও বর্তমানে এ সংখ্যা এখন দিনে দুইশ পেরিয়েছে। বৃহস্পতিবার টিকা গ্রহণ করেছেন ২৮০ জন। এর মধ্যে নারীই ৭৩ জন। শনিবার থেকে এ সংখ্যা আরও অনেক বেড়ে যাবে বলে মনে করছেন স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স সংশ্লিষ্টরা।

সরেজমিন জলঢাকা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে গিয়ে দেখা যায়, নারীদের দীর্ঘ লাইন। বিভিন্ন ইউনিয়ন থেকে এসেছেন করোনার টিকা গ্রহণ করতে।

এ সময় উপজেলার শালনগ্রাম এলাকার শাহিনা আক্তার বানু এবং তালুক গোলনা এলাকার অঞ্জলী রানীর সঙ্গে কথা হয়। তারা বলেন, আমরা টিকা নিতে এসেছি। এ সুযোগ আমরা নষ্ট করতে চাই না। তাছাড়া শুনেছি এবং দেখছি টিকা নিলে সমস্যা হচ্ছে না।

এছাড়াও তাৎক্ষণিক রেজিস্ট্রেশন করে টিকা গ্রহণের সুযোগ তৈরি করে দিয়েছে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স। সেখানেও মানুষের উপচেপড়া ভিড় দেখা গেছে।

এ সময় টিকা নিতে আসেন উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আব্দুল ওয়াহেদ বাহাদুর, জেলা পরিষদ সদস্য জুলফিকার আলী জুয়েল, জেলা জাসদের সভাপতি অধ্যাপক আজিজুল ইসলামসহ বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের নেতারা।

টিকা গ্রহণ শেষে উপজেলা চেয়ারম্যান আব্দুল ওয়াহেদ বাহাদুর বলেন, আমি টিকা নিলাম। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার এ উপহার যেন সবাই গ্রহণ করেন। স্বাস্থ্য সুরক্ষার জন্য অবশ্যই সবাইকে টিকা নিতে হবে।

স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. এএইচএম রেজওয়ানুল কবির বলেন, জলঢাকা উপজেলার জন্য বরাদ্দ হয়েছে ১১ হাজার ১১৪ টিকার ডোজ; যা প্রথম পর্যায়ে পাঁচ হাজার ৫৭০ জনকে প্রয়োগ করা সম্ভব হবে।

বর্তমানে টিকা গ্রহণ কার্যক্রম সন্তোষজনক উল্লেখ করে তিনি আরও বলেন, আশা করি এ মাসেই আমাদের প্রথম ডোজ টিকা বরাদ্দকৃতদের মধ্যে দেয়া সম্ভব হবে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন