শ্রীমঙ্গলের শীর্ষ সন্ত্রাসী সারোয়ার গ্রেফতার
jugantor
শ্রীমঙ্গলের শীর্ষ সন্ত্রাসী সারোয়ার গ্রেফতার

  শ্রীমঙ্গল (মৌলভীবাজার) প্রতিনিধি  

১২ ফেব্রুয়ারি ২০২১, ০০:৫১:৩৭  |  অনলাইন সংস্করণ

শ্রীমঙ্গলের শীর্ষ সন্ত্রাসী সারোয়ারকে (৩৫) গ্রেফতার করেছে পুলিশ। বৃহস্পতিবার বেলা দুইটার দিকে উপজেলার কাকিয়া বাজার এলাকা থেকে পুলিশ তাকে গ্রেফতার করে।

গ্রেফতারকৃত সারোয়ার উপজেলার সিরাজনগর গ্রামের আসাদুজ্জামানের ছেলে বলে জানা গেছে।

শ্রীমঙ্গল থানা পুলিশ জানায়, জেলার জুড়ি উপজেলার মনতইল গ্রামের মৃত আবু তাহেরের পুত্র খন্দকার আবুল মঈন গুফরান তারেক (৪৫) তার মালিকানাধীন একটি বাগানে আগুন ধরিয়ে শতাধিক গাছ চুরি, দখল ও ভয়ভীতি প্রদর্শনসহ ২০ লাখ টাকার ক্ষতি সাধন করেছে বলে দাবি করে সারোয়ারসহ আরও তিন জনের বিরুদ্ধে গত ১০ ফেব্রুয়ারি রাতে শ্রীমঙ্গল থানায় একটি মামলা দায়ের করেন।

এই অভিযোগের ভিত্তিতে মামলার প্রধান আসামি সারোয়ারকে গ্রেফতার করা হয়। গ্রেফারকৃত সারোয়ারের বিরুদ্ধে শ্রীমঙ্গল থানায় অস্ত্র, মাদক ও বনের গাছ চুরিসহ সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ডের অভিযোগে ২০টির বেশি মামলা রয়েছে বলে জানা গেছে।

২০০১ সালে উপজেলার কাকিয়াবাজার উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষক পরিতোষ পালকে কুপিয়ে হাত পা কেটে নেয়া ও ২০১২ সালে এক সাংবাদিককে দা দিয়ে কোপানোর অভিযোগও রয়েছে সারোয়ারের বিরুদ্ধে।

তার অত্যাচারে অতিষ্ঠ হয়ে এলাকার মানুষের অভিযোগের ভিত্তিতে এক এগারোর সময়ে সেনাবাহিনীর হাতে অস্ত্রসহ আটক হয় এই শীর্ষ সন্ত্রাসী সারোয়ার।

মামলার বাদী তারেক জানান, উপজেলার সোনাছড়া-জাগছড়া চা বাগান সংলগ্ন ১৫৮ একর জমির উপর ‘ফিডার বাবুর বাগান’ নামে তাদের একটি পৈত্রিক বাগান রয়েছে।

বাগানে প্রায় কয়েকশ প্রজাতির কয়েক হাজার ফলদ, বনজ ও ওষুধি গাছ লাগানো হয়। এসব গাছের বয়স প্রায় ৪০ থেকে ৬০ বছর। শ্রীমঙ্গলের শীর্ষ সন্ত্রাসী সারোয়ার ও তার সহযোগীরা দীর্ঘদিন ধরে সন্ত্রাসী কায়দায় এসব মূল্যবান গাছ কেটে চুরি করে নিচ্ছিল। গত ৬ ফেব্রুয়ারি ত্রাস সৃষ্টি করে বাগান দখল করতে সেখানে আগুন ধরিয়ে দেয় তারা।

শ্রীমঙ্গল থানার ওসি আব্দুছ ছালেক সারোয়ারের গ্রেফতারের বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, বাকি আসামিদেরও আটকের চেষ্টা চলছে।

শ্রীমঙ্গলের শীর্ষ সন্ত্রাসী সারোয়ার গ্রেফতার

 শ্রীমঙ্গল (মৌলভীবাজার) প্রতিনিধি 
১২ ফেব্রুয়ারি ২০২১, ১২:৫১ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ

শ্রীমঙ্গলের শীর্ষ সন্ত্রাসী সারোয়ারকে (৩৫) গ্রেফতার করেছে পুলিশ। বৃহস্পতিবার বেলা দুইটার দিকে উপজেলার কাকিয়া বাজার এলাকা থেকে পুলিশ তাকে গ্রেফতার করে।

গ্রেফতারকৃত সারোয়ার উপজেলার সিরাজনগর গ্রামের আসাদুজ্জামানের ছেলে বলে জানা গেছে।

শ্রীমঙ্গল থানা পুলিশ জানায়, জেলার জুড়ি উপজেলার মনতইল গ্রামের মৃত আবু তাহেরের পুত্র খন্দকার আবুল মঈন গুফরান তারেক (৪৫) তার মালিকানাধীন একটি বাগানে আগুন ধরিয়ে শতাধিক গাছ চুরি, দখল ও ভয়ভীতি প্রদর্শনসহ ২০ লাখ টাকার ক্ষতি সাধন করেছে বলে দাবি করে সারোয়ারসহ আরও তিন জনের বিরুদ্ধে গত ১০ ফেব্রুয়ারি রাতে শ্রীমঙ্গল থানায় একটি মামলা দায়ের করেন।

এই অভিযোগের ভিত্তিতে মামলার প্রধান আসামি সারোয়ারকে গ্রেফতার করা হয়। গ্রেফারকৃত সারোয়ারের বিরুদ্ধে শ্রীমঙ্গল থানায় অস্ত্র, মাদক ও বনের গাছ চুরিসহ সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ডের অভিযোগে ২০টির বেশি মামলা রয়েছে বলে জানা গেছে।

২০০১ সালে উপজেলার কাকিয়াবাজার উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষক পরিতোষ পালকে কুপিয়ে হাত পা কেটে নেয়া ও ২০১২ সালে এক সাংবাদিককে দা দিয়ে কোপানোর অভিযোগও রয়েছে সারোয়ারের বিরুদ্ধে।

তার অত্যাচারে অতিষ্ঠ হয়ে এলাকার মানুষের অভিযোগের ভিত্তিতে এক এগারোর সময়ে সেনাবাহিনীর হাতে অস্ত্রসহ আটক হয় এই শীর্ষ সন্ত্রাসী সারোয়ার।

মামলার বাদী তারেক জানান, উপজেলার সোনাছড়া-জাগছড়া চা বাগান সংলগ্ন ১৫৮ একর জমির উপর ‘ফিডার বাবুর বাগান’ নামে তাদের একটি পৈত্রিক বাগান রয়েছে।

বাগানে প্রায় কয়েকশ প্রজাতির কয়েক হাজার ফলদ, বনজ ও ওষুধি গাছ লাগানো হয়। এসব গাছের বয়স প্রায় ৪০ থেকে ৬০ বছর। শ্রীমঙ্গলের শীর্ষ সন্ত্রাসী সারোয়ার ও তার সহযোগীরা দীর্ঘদিন ধরে সন্ত্রাসী কায়দায় এসব মূল্যবান গাছ কেটে চুরি করে নিচ্ছিল। গত ৬ ফেব্রুয়ারি ত্রাস সৃষ্টি করে বাগান দখল করতে সেখানে আগুন ধরিয়ে দেয় তারা।

শ্রীমঙ্গল থানার ওসি আব্দুছ ছালেক সারোয়ারের গ্রেফতারের বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, বাকি আসামিদেরও আটকের চেষ্টা চলছে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন