ভাসানচরে যাচ্ছেন আরও ২০১০ রোহিঙ্গা
jugantor
ভাসানচরে যাচ্ছেন আরও ২০১০ রোহিঙ্গা

  যুগান্তর প্রতিবেদন  

১৫ ফেব্রুয়ারি ২০২১, ১০:৩১:৫৪  |  অনলাইন সংস্করণ

৫ জাহাজে ভাসানচরে যাচ্ছেন আরও ২০১০ রোহিঙ্গা

চতুর্থ দফায় আরও দুই হাজার ১০ রোহিঙ্গা নোয়াখালীর হাতিয়া উপজেলার ভাসানচরে যাচ্ছেন।

সোমবার সকালে চট্টগ্রাম বোট ক্লাব থেকে নৌবাহিনীর পাঁচটি জাহাজে তারা ভাসানচরে যাচ্ছেন।

নোয়াখালীর ভাসানচরে স্থানান্তরের উদ্দেশ্যে রোববারই কক্সবাজার থেকে চট্টগ্রাম পৌঁছান ওই রোহিঙ্গারা।

রোববার দুপুর সোয়া ১২টার দিকে উখিয়া ডিগ্রি কলেজ মাঠ থেকে প্রথম দফায় ২২টি গাড়িতে এক হাজার ১৫২ জনকে চট্টগ্রামে পাঠানো হয়।

জানা যায়, চতুর্থ দফায় কক্সবাজারের উখিয়া ও টেকনাফের আশ্রয়শিবির থেকে তিন হাজার ৬০০ জনের ভাসানচর যাওয়ার কথা আছে।

এর আগে তিন দফায় কক্সবাজারের বিভিন্ন ক্যাম্প থেকে ছয় হাজার ৬৮৮ জনকে ভাসানচরে স্থানান্তর করা হয়।

২০২০ সালের ৪ ও ২৯ ডিসেম্বর দুই দফায় তিন হাজার ৪৪৬ রোহিঙ্গাকে ভাসানচরে স্থানান্তর করা হয়।

মিয়ানমার সেনাবাহিনীর হত্যা ও নির্যাতনের মুখে ২০১৭ সালের ২৫ আগস্ট থেকে সীমান্ত পাড়ি দিয়ে বাংলাদেশে আশ্রয় নেন আট লাখের বেশি রোহিঙ্গা।

এর আগে আসে আরও কয়েক লাখ। বর্তমানে উখিয়া ও টেকনাফের ৩৪টি আশ্রয়শিবিরে নিবন্ধিত রোহিঙ্গার সংখ্যা সাড়ে ১১ লাখ।

ভাসানচরে যাচ্ছেন আরও ২০১০ রোহিঙ্গা

 যুগান্তর প্রতিবেদন 
১৫ ফেব্রুয়ারি ২০২১, ১০:৩১ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ
৫ জাহাজে ভাসানচরে যাচ্ছেন আরও ২০১০ রোহিঙ্গা
ফাইল ছবি

চতুর্থ দফায় আরও দুই হাজার ১০ রোহিঙ্গা নোয়াখালীর হাতিয়া উপজেলার ভাসানচরে যাচ্ছেন।

সোমবার সকালে চট্টগ্রাম বোট ক্লাব থেকে নৌবাহিনীর পাঁচটি জাহাজে তারা ভাসানচরে যাচ্ছেন।

নোয়াখালীর ভাসানচরে স্থানান্তরের উদ্দেশ্যে রোববারই কক্সবাজার থেকে চট্টগ্রাম পৌঁছান ওই রোহিঙ্গারা।

রোববার দুপুর সোয়া ১২টার দিকে উখিয়া ডিগ্রি কলেজ মাঠ থেকে প্রথম দফায় ২২টি গাড়িতে এক হাজার ১৫২ জনকে চট্টগ্রামে পাঠানো হয়।

জানা যায়, চতুর্থ দফায় কক্সবাজারের উখিয়া ও টেকনাফের আশ্রয়শিবির থেকে তিন হাজার ৬০০ জনের ভাসানচর যাওয়ার কথা আছে।

এর আগে তিন দফায় কক্সবাজারের বিভিন্ন ক্যাম্প থেকে ছয় হাজার ৬৮৮ জনকে ভাসানচরে স্থানান্তর করা হয়।

২০২০ সালের ৪ ও ২৯ ডিসেম্বর দুই দফায় তিন হাজার ৪৪৬ রোহিঙ্গাকে ভাসানচরে স্থানান্তর করা হয়।

মিয়ানমার সেনাবাহিনীর হত্যা ও নির্যাতনের মুখে ২০১৭ সালের ২৫ আগস্ট থেকে সীমান্ত পাড়ি দিয়ে বাংলাদেশে আশ্রয় নেন আট লাখের বেশি রোহিঙ্গা।

এর আগে আসে আরও কয়েক লাখ। বর্তমানে উখিয়া ও টেকনাফের ৩৪টি আশ্রয়শিবিরে নিবন্ধিত রোহিঙ্গার সংখ্যা সাড়ে ১১ লাখ।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন