সেই পুলিশ সদস্যকে ফেরত দিয়েছে বিএসএফ
jugantor
সেই পুলিশ সদস্যকে ফেরত দিয়েছে বিএসএফ

  পঞ্চগড় প্রতিনিধি  

১৫ ফেব্রুয়ারি ২০২১, ২১:৪১:১৮  |  অনলাইন সংস্করণ

পঞ্চগড় সদর উপজেলার সীমান্তে বাংলাদেশ-ভারত জিরোপয়েন্টে একটি বাড়ির পাশ থেকে ওমর ফারুক নামে ধরে নিয়ে যাওয়া সেই পুলিশ সদস্যকে ফেরত দিয়েছে বিএসএফ।

রোববার রাতে উপজেলার হাড়িভাষা ইউপির মোমিনপাড়ার একটি বাড়ির পাশের ক্ষেত থেকে টেনেহিঁচড়ে এক বাংলাদেশি নাগরিককে ভারতে নিয়ে বিএসএফের হাতে সোপর্দ করে ভারতীয় লোকজন।

সোমবার সন্ধ্যায় পতাকা বৈঠকের মাধ্যমে তাকে ফেরত দেয়া হয়েছে। পতাকা বৈঠকে বিজিবির পক্ষে নেতৃত্ব দেন ৫৬ বিজিবির অধিনায়ক লে. কর্নেল আব্দুল্লাহ আল মামুন। বিএসএফের পক্ষে নেতৃত্ব দেন ২১ বিএসএফের লে. জিএস টোমার।

এ সময় ওই পুলিশ সদস্যকে গ্রহণ করেন পঞ্চগড়ের এএসপি (সার্কেল) সুদর্শন রায় ও সদর থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মো. জামাল হোসেন। পরে পুলিশ সদস্য ওমর ফারুককে আটক করা হয়।

জানা যায়, রোববার রাত ৮টার সময় ৩-৪ জন লোক মোমিনপাড়া গ্রামের জিরোপয়েন্টে অবস্থিত আমিরুল ইসলামের বাড়িতে যায়। সেখানে ভারত থেকে ভুট্টো নামে এক মাদক ব্যবসায়ীও ওই বাড়িতে আসে।

এরই মধ্যে ওমর ফারুকের সঙ্গে কথাকাটাকাটি শুরু হলে ভুট্টোর চিৎকারে ভারতের ওপাশ থেকে আরও কয়েকজন লোক এসে ওমর ফারুককে বেধড়ক পিটুনি দিয়ে টেনেহিঁচড়ে ভারতে নিয়ে গিয়ে ভারতের ২১ বিএসএফ ব্যাটালিয়নের সিপাইপাড়া ক্যাম্পে সোপর্দ করে। অপরদিকে অবস্থা বেগতিক দেখে ওমর ফারুকের অপর সঙ্গী মোশারফসহ বাকিরা ঘটনাস্থলে একটি হ্যান্ডকাফ ফেলে পালিয়ে আসতে সমর্থ হয়।

পঞ্চগড় সদর থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মো. জামাল হোসেন জানান, ওমর ফারুককে আটক করা হয়েছে। তার বিরুদ্ধে বিভাগীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।

সেই পুলিশ সদস্যকে ফেরত দিয়েছে বিএসএফ

 পঞ্চগড় প্রতিনিধি 
১৫ ফেব্রুয়ারি ২০২১, ০৯:৪১ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

পঞ্চগড় সদর উপজেলার সীমান্তে বাংলাদেশ-ভারত জিরোপয়েন্টে একটি বাড়ির পাশ থেকে ওমর ফারুক নামে ধরে নিয়ে যাওয়া সেই পুলিশ সদস্যকে ফেরত দিয়েছে বিএসএফ।

রোববার রাতে উপজেলার হাড়িভাষা ইউপির মোমিনপাড়ার একটি বাড়ির পাশের ক্ষেত থেকে টেনেহিঁচড়ে এক বাংলাদেশি নাগরিককে ভারতে নিয়ে বিএসএফের  হাতে সোপর্দ করে ভারতীয় লোকজন।

সোমবার সন্ধ্যায় পতাকা বৈঠকের মাধ্যমে তাকে ফেরত দেয়া হয়েছে। পতাকা বৈঠকে বিজিবির পক্ষে নেতৃত্ব দেন ৫৬ বিজিবির অধিনায়ক লে. কর্নেল আব্দুল্লাহ আল মামুন। বিএসএফের পক্ষে নেতৃত্ব দেন ২১ বিএসএফের লে. জিএস টোমার।

এ সময় ওই পুলিশ সদস্যকে গ্রহণ করেন পঞ্চগড়ের এএসপি (সার্কেল) সুদর্শন রায় ও সদর থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মো. জামাল হোসেন। পরে পুলিশ সদস্য ওমর ফারুককে আটক করা হয়।

জানা যায়, রোববার রাত ৮টার সময় ৩-৪ জন লোক মোমিনপাড়া গ্রামের জিরোপয়েন্টে অবস্থিত আমিরুল ইসলামের বাড়িতে যায়। সেখানে ভারত থেকে ভুট্টো নামে এক মাদক ব্যবসায়ীও ওই বাড়িতে আসে।

এরই মধ্যে ওমর ফারুকের সঙ্গে কথাকাটাকাটি শুরু হলে ভুট্টোর চিৎকারে ভারতের ওপাশ থেকে আরও কয়েকজন লোক এসে ওমর ফারুককে বেধড়ক পিটুনি দিয়ে টেনেহিঁচড়ে ভারতে নিয়ে গিয়ে ভারতের ২১ বিএসএফ ব্যাটালিয়নের সিপাইপাড়া ক্যাম্পে সোপর্দ করে। অপরদিকে অবস্থা বেগতিক দেখে ওমর ফারুকের অপর সঙ্গী মোশারফসহ বাকিরা ঘটনাস্থলে একটি হ্যান্ডকাফ ফেলে পালিয়ে আসতে সমর্থ হয়।

পঞ্চগড় সদর থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মো. জামাল হোসেন জানান, ওমর ফারুককে আটক করা হয়েছে। তার বিরুদ্ধে বিভাগীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন