মায়ের হত্যাকারীর ফাঁসির দাবিতে সড়কে সন্তান
jugantor
মায়ের হত্যাকারীর ফাঁসির দাবিতে সড়কে সন্তান

  ডামুড্যা (শরীয়তপুর) প্রতিনিধি  

১৮ ফেব্রুয়ারি ২০২১, ১১:৪২:০৯  |  অনলাইন সংস্করণ

মায়ের হত্যাকারীর ফাঁসির দাবিতে সড়কে সন্তান

শরীয়তপুরের ডামুড্যা উপজেলায় পারিবারিক কলহের জেরে আমেনা বেগম নামে এক গৃহবধূকে কুপিয়ে হত্যা করা হয়েছে। এ ঘটনায় স্বামী নজরুল ইসলাম মাদবরের ফাঁসির দাবিতে সন্তান নয়নসহ (১২) বিক্ষোভ মিছিল ও মানববন্ধন করেছেন নিহতের পরিবার এবং ইসলামপুর ইউনিয়নবাসী।

বুধবার সন্ধ্যা সাড়ে ৬টার দিকে সদর উপজেলার বুড়িরহাট বাজারসংলগ্ন বুড়িরহাট ব্রিজের ওপর ঘণ্টাব্যাপী এ বিক্ষোভ মিছিল ও মানববন্ধন করা হয়।

এ সময় নিহত আমেনার ছেলে নয়ন মাদবর, ভাই সুলতান মাদবর, আমিন মাদবর, ভাবি মনোয়ারা বেগম, ইসলামপুর ইউনিয়নের রিয়াদ মাদবর, মজিদ মাদবর, মেম্বার আলতাফ হোসেন বেপারি প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

মানববন্ধনে আমেনার ভাই সুলতান মাদবর বলেন, বোনকে বিয়ে দেওয়ার পর টাকা খরচ করে (মালয়েশিয়া) বিদেশ পাঠাই খুনি নজরুলকে। বিদেশ যাওয়ার পর সাত বছর বোনকে কোনো খরচ পাঠায়নি নজরুল। আমরা খরচ দিতাম। বোনকে মোবাইল ফোনে অকথ্য ভাষায় গালাগাল করত। তাই নজরুল বিদেশ থেকে আসার আগে বোনকে আমাদের বাড়িতে নিয়ে আসি।

নজরুল বিদেশ থেকে ফিরলে এলাকার মুরব্বি ও তার পরিবারের লোকজন আমাদের বাড়িতে এসে আমেনাকে নিয়ে যায়। বাড়িতে নিয়ে শারীরিক ও মানসিকভাবে নির্যাতন করত বোনকে। ঘরে তালাবদ্ধ করে রাখত। নজরুল ঘরের দরজা বন্ধ করে কুড়াল দিয়ে কুপিয়ে হত্যা করে আমেনাকে। আমার বোন হত্যাকারী নজরুলকে ফাঁসি দেওয়া হোক।

রিয়াদ মাদবর, মজিদ মাদবর, মেম্বার আলতাফ হোসেন বেপারিসহ ইসলামপুর ইউনিয়নবাসীর অনেকেই জানান, আমেনা খুবই ভালো একজন নারী ছিলেন। নজরুল একজন মাদকাসক্ত। আমেনাকে কুড়াল দিয়ে কুপিয়ে হত্যা করেছে নজরুল। তারা অপরাধীর দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি ফাঁসি দাবি করেন।

উল্লেখ্য, শরীয়তপুরের ডামুড্যায় পারিবারিক কলহের জেরে আমেনা বেগম নামে এক গৃহবধূকে কুপিয়ে হত্যা করে তার স্বামী নজরুল ইসলাম মাদবর।

১৫ বছর আগে ইসলামপুর ইউনিয়নের ১ নম্বর ওয়ার্ডের দক্ষিণপাড়া গ্রামের মৃত হোসেন মাদবরের ছেলে নজরুল ইসলাম মাদবরের (৪২) সঙ্গে একই ইউনিয়েনের আমেনা বেগমের বিয়ে হয়। তাদের নয়ন মাদবর নামে ১২ বছর বয়সী একটি ছেলে রয়েছে।

নিহত আমেনা একই ইউনিয়নের গঙ্গেসকাঠি গ্রামের মৃত আজিদ আলী মাদবরের মেয়ে।

মায়ের হত্যাকারীর ফাঁসির দাবিতে সড়কে সন্তান

 ডামুড্যা (শরীয়তপুর) প্রতিনিধি 
১৮ ফেব্রুয়ারি ২০২১, ১১:৪২ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ
মায়ের হত্যাকারীর ফাঁসির দাবিতে সড়কে সন্তান
ছবি: যুগান্তর

শরীয়তপুরের ডামুড্যা উপজেলায় পারিবারিক কলহের জেরে আমেনা বেগম নামে এক গৃহবধূকে কুপিয়ে হত্যা করা হয়েছে। এ ঘটনায় স্বামী নজরুল ইসলাম মাদবরের ফাঁসির দাবিতে সন্তান নয়নসহ (১২) বিক্ষোভ মিছিল ও মানববন্ধন করেছেন নিহতের পরিবার এবং ইসলামপুর ইউনিয়নবাসী।

বুধবার সন্ধ্যা সাড়ে ৬টার দিকে সদর উপজেলার বুড়িরহাট বাজারসংলগ্ন বুড়িরহাট ব্রিজের ওপর ঘণ্টাব্যাপী এ বিক্ষোভ মিছিল ও মানববন্ধন করা হয়।

এ সময় নিহত আমেনার ছেলে নয়ন মাদবর, ভাই সুলতান মাদবর, আমিন মাদবর, ভাবি মনোয়ারা বেগম, ইসলামপুর ইউনিয়নের রিয়াদ মাদবর, মজিদ মাদবর, মেম্বার আলতাফ হোসেন বেপারি প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

মানববন্ধনে আমেনার ভাই সুলতান মাদবর বলেন, বোনকে বিয়ে দেওয়ার পর টাকা খরচ করে (মালয়েশিয়া) বিদেশ পাঠাই খুনি নজরুলকে। বিদেশ যাওয়ার পর সাত বছর বোনকে কোনো খরচ পাঠায়নি নজরুল। আমরা খরচ দিতাম। বোনকে মোবাইল ফোনে অকথ্য ভাষায় গালাগাল করত। তাই নজরুল বিদেশ থেকে আসার আগে বোনকে আমাদের বাড়িতে নিয়ে আসি।

নজরুল বিদেশ থেকে ফিরলে এলাকার মুরব্বি ও তার পরিবারের লোকজন আমাদের বাড়িতে এসে আমেনাকে নিয়ে যায়। বাড়িতে নিয়ে শারীরিক ও মানসিকভাবে নির্যাতন করত বোনকে। ঘরে তালাবদ্ধ করে রাখত। নজরুল ঘরের দরজা বন্ধ করে কুড়াল দিয়ে কুপিয়ে হত্যা করে আমেনাকে। আমার বোন হত্যাকারী নজরুলকে ফাঁসি দেওয়া হোক।

রিয়াদ মাদবর, মজিদ মাদবর, মেম্বার আলতাফ হোসেন বেপারিসহ ইসলামপুর ইউনিয়নবাসীর অনেকেই জানান, আমেনা খুবই ভালো একজন নারী ছিলেন। নজরুল একজন মাদকাসক্ত। আমেনাকে কুড়াল দিয়ে কুপিয়ে হত্যা করেছে নজরুল। তারা অপরাধীর দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি ফাঁসি দাবি করেন।

উল্লেখ্য, শরীয়তপুরের ডামুড্যায় পারিবারিক কলহের জেরে আমেনা বেগম নামে এক গৃহবধূকে কুপিয়ে হত্যা করে তার স্বামী নজরুল ইসলাম মাদবর।

১৫ বছর আগে ইসলামপুর ইউনিয়নের ১ নম্বর ওয়ার্ডের দক্ষিণপাড়া গ্রামের মৃত হোসেন মাদবরের ছেলে নজরুল ইসলাম মাদবরের (৪২) সঙ্গে একই ইউনিয়েনের আমেনা বেগমের বিয়ে হয়। তাদের নয়ন মাদবর নামে ১২ বছর বয়সী একটি ছেলে রয়েছে।

নিহত আমেনা একই ইউনিয়নের গঙ্গেসকাঠি গ্রামের মৃত আজিদ আলী মাদবরের মেয়ে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন