সেন্টমার্টিনের হোটেলে পর্যটকের লাশ
jugantor
সেন্টমার্টিনের হোটেলে পর্যটকের লাশ

  টেকনাফ (কক্সবাজার) প্রতিনিধি  

২২ ফেব্রুয়ারি ২০২১, ২৩:০৫:১৪  |  অনলাইন সংস্করণ

সেন্টমার্টিনের হোটেল কক্ষ থেকে বাচ্চু মিয়া (৫২) এক পর্যটকের লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। সোমবার দুপুরে পুলিশ লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে প্রেরণ করেছে।

টেকনাফ থানার ওসি মো. হাফিজুর রহমান জানান, নীল দিগন্ত রিসোর্ট নামে একটি হোটেল থেকে তার লাশ উদ্ধার করে টেকনাফে নিয়ে আসা হয়। পরে ময়নাতদন্তের জন্য কক্সবাজার সদর হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে। প্রাথমিকভাবে হার্টঅ্যাটাকে তার মৃত্যু হয়েছে বলে ধারণা করা হচ্ছে। ময়নাতদন্ত রিপোর্ট হাতে পেলে মৃত্যুর সঠিক কারণ জানা যাবে।

সেন্টমার্টিন দ্বীপ ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান নুর আহমদ জানান, মারা যাওয়া পর্যটকের হার্টের সমস্যা ছিল বলে ভ্রমণে আসা সঙ্গীরা জানিয়েছেন। রাতে বুকে ব্যথা অনুভব করলে স্থানীয় ফার্মেসি থেকে ওষুধ খেয়ে ঘুমিয়ে পড়েছিলেন। সকালে সঙ্গীরা তাকে মৃত অবস্থায় দেখতে পান।

নীল দিগন্ত রিসোর্টের ব্যবস্থাপক সাইফুল ইসলাম জানান, রোববার ঢাকা বিসিএস কম্পিউটার সিটিতে কর্মরত সাতজনের একটি টিম সেন্টমার্টিন ভ্রমণে এসে নীল দিগন্ত রিসোর্টের রুমে উঠেন। হোটেল রিসোর্টে বাচ্চু মিয়ার ঠিকানা লিখা রয়েছে- পিতার নাম মৃত আব্দুল হামিদ, গ্রাম রূপগঞ্জ, ডেমরা নারায়ণগঞ্জ, ঢাকা।

বাচ্চু মিয়ার সঙ্গে থাকা ভ্রমণ দলের সদস্য সজিব মিয়া জানান, সেন্টমার্টিনে পৌঁছার পর থেকেই তিনি অসুস্থ বোধ করছিলেন। রাতে ঘুমিয়ে পড়ার পর সকালে তাকে মৃত অবস্থায় উদ্ধার করেন।

সেন্টমার্টিনের হোটেলে পর্যটকের লাশ

 টেকনাফ (কক্সবাজার) প্রতিনিধি 
২২ ফেব্রুয়ারি ২০২১, ১১:০৫ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

সেন্টমার্টিনের হোটেল কক্ষ থেকে বাচ্চু মিয়া (৫২) এক পর্যটকের লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। সোমবার দুপুরে পুলিশ লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে প্রেরণ করেছে।

টেকনাফ থানার ওসি মো. হাফিজুর রহমান জানান, নীল দিগন্ত রিসোর্ট নামে একটি হোটেল থেকে তার লাশ উদ্ধার করে টেকনাফে নিয়ে আসা হয়। পরে ময়নাতদন্তের জন্য কক্সবাজার সদর হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে। প্রাথমিকভাবে হার্টঅ্যাটাকে তার মৃত্যু হয়েছে বলে ধারণা করা হচ্ছে। ময়নাতদন্ত রিপোর্ট হাতে পেলে মৃত্যুর সঠিক কারণ জানা যাবে।

সেন্টমার্টিন দ্বীপ ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান নুর আহমদ জানান, মারা যাওয়া পর্যটকের হার্টের সমস্যা ছিল বলে ভ্রমণে আসা সঙ্গীরা জানিয়েছেন। রাতে বুকে ব্যথা অনুভব করলে স্থানীয় ফার্মেসি থেকে ওষুধ খেয়ে ঘুমিয়ে পড়েছিলেন। সকালে সঙ্গীরা তাকে মৃত অবস্থায় দেখতে পান।

নীল দিগন্ত রিসোর্টের ব্যবস্থাপক সাইফুল ইসলাম জানান, রোববার ঢাকা বিসিএস কম্পিউটার সিটিতে কর্মরত সাতজনের একটি টিম সেন্টমার্টিন ভ্রমণে এসে নীল দিগন্ত রিসোর্টের রুমে উঠেন। হোটেল রিসোর্টে বাচ্চু মিয়ার ঠিকানা লিখা রয়েছে- পিতার নাম মৃত আব্দুল হামিদ, গ্রাম রূপগঞ্জ, ডেমরা নারায়ণগঞ্জ, ঢাকা।

বাচ্চু মিয়ার সঙ্গে থাকা ভ্রমণ দলের সদস্য সজিব মিয়া জানান, সেন্টমার্টিনে পৌঁছার পর থেকেই তিনি অসুস্থ বোধ করছিলেন। রাতে ঘুমিয়ে পড়ার পর সকালে তাকে মৃত অবস্থায় উদ্ধার করেন।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন