নীলফামারীর কিশোরগঞ্জে টিকা কেন্দ্রে উপচেপড়া ভিড়
jugantor
নীলফামারীর কিশোরগঞ্জে টিকা কেন্দ্রে উপচেপড়া ভিড়

  আব্দুর রাজ্জাক, কিশোরগঞ্জ (নীলফামারী) প্রতিনিধি  

২৪ ফেব্রুয়ারি ২০২১, ১৩:১৮:২৭  |  অনলাইন সংস্করণ

নীলফামারীর কিশোরগঞ্জে করোনার টিকা নিতে আগ্রহ বেড়েছে এলাকাবাসীর। সংশয় কেটে যাওয়ায় টিকা কেন্দ্রে এখন বিভিন্ন এলাকার নারী-পুরুষের উপচেপড়া ভিড়।

আগে গেলে টিকা পাওয়া যাবে। ডোজ ফুরিয়ে যেতে পারে– এ আশঙ্কায় চল্লিশোর্ধ্ব লোকজন স্বতঃস্ফূর্তভাবে টিকা নিতে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভিড় করছেন।

সরেজমিন গিয়ে দেখা যায়, সকাল ১০টা থেকে বিকাল ৩টা পর্যন্ত উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে টিকা দেওয়া হচ্ছে। উদ্বোধনী দিনে টিকা গ্রহণ করেছেন মাত্র ৪০ জন। এখন একদিনে টিকা নেওয়া লোকের সংখ্যা ৩৫০ ছাড়িয়েছে।

টিকা গ্রহণকারীরা সবাই স্বাভাবিক ও সুস্থ থাকায় অন্যরা আগ্রহী হয়ে উঠেছেন। অনেকে বাড়িতে বসে মোবাইলে সুরক্ষা অ্যাপে নিবন্ধন করছেন।

টিকা নিতে আসা বড়ভিটা এলাকার দম্পতি খাতুন ও হামিদুল ইসলাম, উত্তর ভেরভেড়ি এলাকার শিক্ষক মজিবুর রহমান ও ঠিকাদার রাশেদুর রহমান রাশেদ বলেন, যারা টিকা নিয়েছেন, তাদের কোনো সমস্যা হয়নি। এ ছাড়া এখন টিকা না নিলে পরে যদি পাওয়া না যায়, তাই আগে টিকা নেওয়ার জন্য নিবন্ধন করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের টিকা কেন্দ্রে এসেছি।

এদিকে টিকা গ্রহণকারী কিশোরগঞ্জ থানার ওসি আব্দুল আউয়াল ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি জাকির হোসেন বাবুল জানান, দেশের মানুষের সুরক্ষার জন্য দ্রুত টিকা এনেছেন।

এ জন্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে ধন্যবাদ। মরণঘাতী করোনা থেকে বাঁচার জন্য সবাইকে টিকা নিতে হবে। টিকা নেওয়ার পর কোনো ধরনের পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া হয়নি। আগের চেয়ে নিজেকে অনেক সুরক্ষা ও গর্বিত মনে হচ্ছে।

উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. আবু শফি মাহমুদ বলেন, মানুষের মধ্যে এখন টিকা নেওয়ার ব্যাপারে সংশয় কেটে গেছে। এ কারণে লোকজন স্বেচ্ছায় স্বাস্থ্যকেন্দ্রে এসে টিকা নিচ্ছেন।

এ পর্যন্ত দুই হাজার ৫৫০ জনকে টিকা প্রদান করা হয়েছে। দিন দিন টিকা গ্রহণ করতে আসা লোকদের সংখ্যা বাড়ছে। আশা করি আগামী দুই সপ্তাহে বরাদ্দকৃত ডোজ দেওয়া সম্ভব হবে।

নীলফামারীর কিশোরগঞ্জে টিকা কেন্দ্রে উপচেপড়া ভিড়

 আব্দুর রাজ্জাক, কিশোরগঞ্জ (নীলফামারী) প্রতিনিধি 
২৪ ফেব্রুয়ারি ২০২১, ০১:১৮ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

নীলফামারীর কিশোরগঞ্জে করোনার টিকা নিতে আগ্রহ বেড়েছে এলাকাবাসীর। সংশয় কেটে যাওয়ায় টিকা কেন্দ্রে এখন বিভিন্ন এলাকার নারী-পুরুষের উপচেপড়া ভিড়।

আগে গেলে টিকা পাওয়া যাবে। ডোজ ফুরিয়ে যেতে পারে– এ আশঙ্কায় চল্লিশোর্ধ্ব লোকজন স্বতঃস্ফূর্তভাবে টিকা নিতে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভিড় করছেন।

সরেজমিন গিয়ে দেখা যায়, সকাল ১০টা থেকে বিকাল ৩টা পর্যন্ত উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে টিকা দেওয়া হচ্ছে। উদ্বোধনী দিনে টিকা গ্রহণ করেছেন মাত্র ৪০ জন। এখন একদিনে টিকা নেওয়া লোকের সংখ্যা ৩৫০ ছাড়িয়েছে।

টিকা গ্রহণকারীরা সবাই স্বাভাবিক ও সুস্থ থাকায় অন্যরা আগ্রহী হয়ে উঠেছেন। অনেকে বাড়িতে বসে মোবাইলে সুরক্ষা অ্যাপে নিবন্ধন করছেন।

টিকা নিতে আসা বড়ভিটা এলাকার দম্পতি খাতুন ও হামিদুল ইসলাম, উত্তর ভেরভেড়ি এলাকার শিক্ষক মজিবুর রহমান ও ঠিকাদার রাশেদুর রহমান রাশেদ বলেন, যারা টিকা নিয়েছেন, তাদের কোনো সমস্যা হয়নি। এ ছাড়া এখন টিকা না নিলে পরে যদি পাওয়া না যায়, তাই আগে টিকা নেওয়ার জন্য নিবন্ধন করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের টিকা কেন্দ্রে এসেছি।  

এদিকে টিকা গ্রহণকারী কিশোরগঞ্জ থানার ওসি আব্দুল আউয়াল ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি জাকির হোসেন বাবুল জানান, দেশের মানুষের সুরক্ষার জন্য দ্রুত টিকা এনেছেন।

এ জন্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে ধন্যবাদ। মরণঘাতী করোনা থেকে বাঁচার জন্য সবাইকে টিকা নিতে হবে। টিকা নেওয়ার পর কোনো ধরনের পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া হয়নি। আগের চেয়ে নিজেকে অনেক সুরক্ষা ও গর্বিত মনে হচ্ছে।

উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. আবু শফি মাহমুদ বলেন, মানুষের মধ্যে এখন টিকা নেওয়ার ব্যাপারে সংশয় কেটে গেছে। এ কারণে লোকজন স্বেচ্ছায় স্বাস্থ্যকেন্দ্রে এসে টিকা নিচ্ছেন।

এ পর্যন্ত দুই হাজার ৫৫০ জনকে টিকা প্রদান করা হয়েছে। দিন দিন টিকা গ্রহণ করতে আসা লোকদের সংখ্যা বাড়ছে। আশা করি আগামী দুই সপ্তাহে বরাদ্দকৃত ডোজ দেওয়া সম্ভব হবে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন