তাহিরপুরে হত্যা মামলার দুই আসামিসহ গ্রেফতার ৭
jugantor
তাহিরপুরে হত্যা মামলার দুই আসামিসহ গ্রেফতার ৭

  যুগান্তর প্রতিবেদন, তহিরপুর  

২৬ ফেব্রুয়ারি ২০২১, ০২:১৬:৩৩  |  অনলাইন সংস্করণ

সুনামগঞ্জের তাহিরপুর গৃহবধূ ফুলেছা বেগম (৪৫) হত্যাকাণ্ডে জড়িত দুই আসামিসহ বিভিন্ন মামলায় পলাতক ৭ আসামিকে আদালত কারাগারে পাঠিয়েছেন।

হত্যা মামলার দুই আসামিরা হলেন- তাহিরপুর উপজেলার উওর বড়দল ইউনিয়নের মাণিগাঁও গ্রামের ফুল মিয়ার ছেলে পাসেন আলী (৩৫) এবং একই গ্রামের হযরত আলীর ওরফে জুম্মনের ছেলে মজনু মিয়া (২৭)।

বৃহস্পতিবার থানার ওসি মো. আব্দুল লতিফ তরফদার বলেন, বুধবার হত্যাকাণ্ডে জড়িত সন্দেহে দুই আসামিসহ বিভিন্ন মামলায় পলাতক আরও পাঁচ আসামিকে থানা পুলিশ বিশেষ অভিযান চালিয়ে গ্রেফতার করে।

গ্রেফতারকৃত আসামিদের তাহিরপুরে অবস্থিত সুনামগঞ্জ সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতে হাজির করা হলে বিচারক আসামিদের জামিন নামঞ্জুর করে জেলা কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন।

থানা পুলিশ জানায়, উপজেলার মাণিগাঁও গ্রামের কৃষি শ্রমিক আলালের স্ত্রী ফুলেছা বেগম গত বছরের ২৩ নভেম্বর বাড়ি থেকে বের হয়ে নিখোঁজ হন।

নিখোঁজের দু’দিন পর ২৫ নভেম্বর গ্রামের পতিত জমি থেকে তার অর্ধ গলিত মরদেহ পুলিশ উদ্ধার করে।

বৃহস্পতিবার মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা থানার এসআই সুজন শ্যাম জানান, এ হত্যাকাণ্ডে জড়িত সন্দেহে পাসেন আলী ও মজনুকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

তাহিরপুরে হত্যা মামলার দুই আসামিসহ গ্রেফতার ৭

 যুগান্তর প্রতিবেদন, তহিরপুর 
২৬ ফেব্রুয়ারি ২০২১, ০২:১৬ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ

সুনামগঞ্জের তাহিরপুর গৃহবধূ ফুলেছা বেগম (৪৫) হত্যাকাণ্ডে জড়িত দুই আসামিসহ বিভিন্ন মামলায় পলাতক ৭ আসামিকে আদালত কারাগারে পাঠিয়েছেন।

হত্যা মামলার দুই আসামিরা হলেন- তাহিরপুর উপজেলার উওর বড়দল ইউনিয়নের মাণিগাঁও গ্রামের ফুল মিয়ার ছেলে পাসেন আলী (৩৫) এবং একই গ্রামের হযরত আলীর ওরফে জুম্মনের ছেলে মজনু মিয়া (২৭)।

বৃহস্পতিবার থানার ওসি মো. আব্দুল লতিফ তরফদার বলেন, বুধবার হত্যাকাণ্ডে জড়িত সন্দেহে দুই আসামিসহ বিভিন্ন মামলায় পলাতক আরও পাঁচ আসামিকে থানা পুলিশ বিশেষ অভিযান চালিয়ে গ্রেফতার করে।

গ্রেফতারকৃত আসামিদের তাহিরপুরে অবস্থিত সুনামগঞ্জ সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতে হাজির করা হলে বিচারক আসামিদের জামিন নামঞ্জুর করে জেলা কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন।

থানা পুলিশ জানায়, উপজেলার মাণিগাঁও গ্রামের কৃষি শ্রমিক আলালের স্ত্রী ফুলেছা বেগম গত বছরের ২৩ নভেম্বর বাড়ি থেকে বের হয়ে নিখোঁজ হন।

নিখোঁজের দু’দিন পর ২৫ নভেম্বর গ্রামের পতিত জমি থেকে তার অর্ধ গলিত মরদেহ পুলিশ উদ্ধার করে।

বৃহস্পতিবার মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা থানার এসআই সুজন শ্যাম জানান, এ হত্যাকাণ্ডে জড়িত সন্দেহে পাসেন আলী ও মজনুকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন