‘জীবনের শেষ ভোট দিয়ে গেলাম’, ৯৫ বছরের বৃদ্ধা
jugantor
‘জীবনের শেষ ভোট দিয়ে গেলাম’, ৯৫ বছরের বৃদ্ধা

  ডামুড্যা (শরীয়তপুর) প্রতিনিধি  

২৮ ফেব্রুয়ারি ২০২১, ১৫:১১:০৬  |  অনলাইন সংস্করণ

‘জীবনের শেষ ভোট দিয়ে গেলাম’, ৯৫ বছরের বৃদ্ধা

শরীয়তপুরের ডামুড্যা পৌরসভায় নিজে হাঁটতে পারেন না। তাই দেবরের ছেলে মালেক ছৈয়ালের কোলে করে ভোটকেন্দ্রে গিয়ে ভোট দিলেন ৯৫ বছরের মনোয়ারা বেগম।

ভোট দিয়ে বললেন, ‘আল্লাহ আর কত দিন বাঁচায় জানি না, মনে হয় জীবনের শেষ ভোট দিয়ে গেলাম।'

মনোয়ারা বেগম (৯৫) ডামুড্যা পৌরসভার ৫নং ওয়ার্ডের বাসিন্দা। কুলকুঁড়ি ফোরকানিয়া মাদ্রাসাকেন্দ্রের ভোটার। শনিবার সকাল ১০টার সময় কেন্দ্রে এসে ভোট দেন তিনি।

ভোটার মনোয়ারা বেগম বলেন, জীবনে অনেক ভোট দিয়েছি। বয়স তো কম হলো না। হাঁটতে পারি না বয়সের ভারে। অনেক অসুস্থ। তার পরও ভোটের কথা শুনে মনটা যেন কেমন করে উঠল। রাতে দেবরের ছেলে মালেককে বলি ভোট দেওয়ার কথা। ও নিয়ে আসবে বলে। আমি হাঁটতে পারি না, তাই মালেকের কোলে ভর করে এসেছি। আমার পছন্দমতো প্রার্থীকে ভোট দিতে পেরে আমি খুশি।

দেবরের ছেলে মালেক জানান, রাতে চাচি আমাকে বলেন, মালেক কালকে নাকি ভোট, আমাকে যদি একটু ভোটকেন্দ্রে নিয়ে যেতে আমি আমার ভোটটা দিতাম। আর কোনো দিন সময় পাই কিনা জানি না। তাই তাকে আমি কোলে করে নিয়ে এলাম। তার পর নিজেই দিয়েছেন নিজের ভোট।

ডামুড্যা পৌরসভার রিটার্নিং কর্মকর্তা মো. জাহিদ হোসেন বলেন, ডামুড্যায় রোববার সকাল ৮টায় থেকে ভোটগ্রহণ শুরু হয়। বিকাল ৪টা পর্যন্ত চলবে ভোটগ্রহণ।

তিনি বলেন, এখন পর্যন্ত ২ ও ৫নং ওয়ার্ডে শান্তিপূর্ণভাবে ভোটগ্রহণ চলছে। আশা করছি বিকাল ৪টা পর্যন্ত শান্তিপূর্ণভাবে ভোটগ্রহণ সম্পন্ন হবে।

‘জীবনের শেষ ভোট দিয়ে গেলাম’, ৯৫ বছরের বৃদ্ধা

 ডামুড্যা (শরীয়তপুর) প্রতিনিধি 
২৮ ফেব্রুয়ারি ২০২১, ০৩:১১ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
‘জীবনের শেষ ভোট দিয়ে গেলাম’, ৯৫ বছরের বৃদ্ধা
ছবি: যুগান্তর

শরীয়তপুরের ডামুড্যা পৌরসভায় নিজে হাঁটতে পারেন না। তাই দেবরের ছেলে মালেক ছৈয়ালের কোলে করে ভোটকেন্দ্রে গিয়ে ভোট দিলেন ৯৫ বছরের মনোয়ারা বেগম।

ভোট দিয়ে বললেন, ‘আল্লাহ আর কত দিন বাঁচায় জানি না, মনে হয় জীবনের শেষ ভোট দিয়ে গেলাম।'

মনোয়ারা বেগম (৯৫) ডামুড্যা পৌরসভার ৫নং ওয়ার্ডের বাসিন্দা। কুলকুঁড়ি ফোরকানিয়া মাদ্রাসাকেন্দ্রের ভোটার। শনিবার সকাল ১০টার সময় কেন্দ্রে এসে ভোট দেন তিনি।

ভোটার মনোয়ারা বেগম বলেন, জীবনে অনেক ভোট দিয়েছি। বয়স তো কম হলো না। হাঁটতে পারি না বয়সের ভারে। অনেক অসুস্থ। তার পরও ভোটের কথা শুনে মনটা যেন কেমন করে উঠল। রাতে দেবরের ছেলে মালেককে বলি ভোট দেওয়ার কথা। ও নিয়ে আসবে বলে। আমি হাঁটতে পারি না, তাই মালেকের কোলে ভর করে এসেছি। আমার পছন্দমতো প্রার্থীকে ভোট দিতে পেরে আমি খুশি।

দেবরের ছেলে মালেক জানান, রাতে চাচি আমাকে বলেন, মালেক কালকে নাকি ভোট, আমাকে যদি একটু ভোটকেন্দ্রে নিয়ে যেতে আমি আমার ভোটটা দিতাম। আর কোনো দিন সময় পাই কিনা জানি না। তাই তাকে আমি কোলে করে নিয়ে এলাম। তার পর নিজেই দিয়েছেন নিজের ভোট।

ডামুড্যা পৌরসভার রিটার্নিং কর্মকর্তা মো. জাহিদ হোসেন বলেন, ডামুড্যায় রোববার সকাল ৮টায় থেকে ভোটগ্রহণ শুরু হয়। বিকাল ৪টা পর্যন্ত চলবে ভোটগ্রহণ।

 তিনি বলেন, এখন পর্যন্ত ২ ও ৫নং ওয়ার্ডে শান্তিপূর্ণভাবে ভোটগ্রহণ চলছে। আশা করছি বিকাল ৪টা পর্যন্ত শান্তিপূর্ণভাবে ভোটগ্রহণ সম্পন্ন হবে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন