স্বেচ্ছাসেবক দল নেতাকে পিটিয়ে হাসপাতালে
jugantor
স্বেচ্ছাসেবক দল নেতাকে পিটিয়ে হাসপাতালে

  লক্ষ্মীপুর প্রতিনিধি   

০১ মার্চ ২০২১, ১৭:৩৯:০৮  |  অনলাইন সংস্করণ

লক্ষ্মীপুরে স্বেচ্ছাসেবক দল নেতা গাজী সুলতান জুয়েলকে পিটিয়ে মাথা ফাটিয়ে দেওয়া হয়েছে। সদর উপজেলার চন্দ্রগঞ্জ ইউনিয়ন পরিষদের সদস্য (মেম্বার) ও কৃষকলীগ নেতা ওবায়েদুল হক হিরন ও তার অনুসারীদের বিরুদ্ধে হামলা চালানোর অভিযোগ উঠেছে।

সোমবার দুপুরে সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন জুয়েল এ অভিযোগ এনেছেন।

এ ঘটনায় পুলিশকে অবহিত করলেও দুপুর পর্যন্ত থানায় কোনো লিখিত অভিযোগ করা হয়নি। তবে আদালতে মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে বলে জানা গেছে।

আহত জুয়েল কেন্দ্রীয় স্বেচ্ছাসেবক দলের প্রকাশনা বিষয়ক সম্পাদক ও চন্দ্রগঞ্জের পূর্ব গণিপুর গ্রামের আবদুল মতিনের ছেলে। অভিযুক্ত ইউপি সদস্য হিরন চন্দ্রগঞ্জ ইউনিয়ন কৃষক লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক।

জানা গেছে, রোববার সন্ধ্যায় চন্দ্রগঞ্জ ইউনিয়নের পূর্ব গণিপুর গ্রামের বাড়িতে ঢুকে কয়েকজন যুবক জুয়েলের ওপর হামলা করে। এসময় বাঁশ দিয়ে পিটিয়ে জুয়েলের মাথা ফাটিয়ে দেওয়া হয়। পরে পরিবারের লোকজন তাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করেন। মাথাসহ তার শরীরের বিভিন্ন অংশে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে।

আহত গাজী সুলতান জুয়েল বলেন, আমি বাড়িতে আসার খবরে রাজনৈতিক প্রতিহিংসা নিয়েই হিরন লোকজন দিয়ে আমার ওপর হামলা চালিয়েছে। এ ঘটনায় আদালতে মামলা করবো।

এ ব্যাপারে ইউপি সদস্য ওবায়েদুল হক হিরন বলেন, জুয়েল আমার আত্মীয়। তার ওপর আমার হামলার বিষয় সত্য নয়। মাহফিলের টাকা উত্তোলন নিয়ে জুয়েলের ছোট ভাই রবিউলের সঙ্গে হামলাকারীদের সমস্যা হয়েছে বলে শুনেছি। এ নিয়ে জুয়েলের ওপর হামলা করেছে বলে ধারণা করছি। হামলার খবর পেয়ে জুয়েলের বাড়িতে গিয়ে স্থানীয়দের সঙ্গে কথা বলেছি। আমি এর সঙ্গে সম্পৃক্ত নই।

সদর হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার (আরএমও) আনোয়ার হোসেন বলেন, জুয়েলের মাথা ফেটে গেছে। সেলাই করা হয়েছে৷ তাকে ভর্তি রেখে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে।

চন্দ্রগঞ্জ থানার ওসি একেএম ফজলুল হক বলেন, খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছে। কিন্তু এখনো পর্যন্ত এ ঘটনায় থানায় কেউ লিখিত অভিযোগ করেনি। অভিযোগ পেলে তদন্তপূর্বক আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

স্বেচ্ছাসেবক দল নেতাকে পিটিয়ে হাসপাতালে

 লক্ষ্মীপুর প্রতিনিধি  
০১ মার্চ ২০২১, ০৫:৩৯ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

লক্ষ্মীপুরে স্বেচ্ছাসেবক দল নেতা গাজী সুলতান জুয়েলকে পিটিয়ে মাথা ফাটিয়ে দেওয়া হয়েছে। সদর উপজেলার চন্দ্রগঞ্জ ইউনিয়ন পরিষদের সদস্য (মেম্বার) ও কৃষকলীগ নেতা ওবায়েদুল হক হিরন ও তার অনুসারীদের বিরুদ্ধে হামলা চালানোর অভিযোগ উঠেছে।

সোমবার দুপুরে সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন জুয়েল এ অভিযোগ এনেছেন।

এ ঘটনায় পুলিশকে অবহিত করলেও দুপুর পর্যন্ত থানায় কোনো লিখিত অভিযোগ করা হয়নি। তবে আদালতে মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে বলে জানা গেছে।

আহত জুয়েল কেন্দ্রীয় স্বেচ্ছাসেবক দলের প্রকাশনা বিষয়ক সম্পাদক ও চন্দ্রগঞ্জের পূর্ব গণিপুর গ্রামের আবদুল মতিনের ছেলে। অভিযুক্ত ইউপি সদস্য হিরন চন্দ্রগঞ্জ ইউনিয়ন কৃষক লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক।

জানা গেছে, রোববার সন্ধ্যায় চন্দ্রগঞ্জ ইউনিয়নের পূর্ব গণিপুর গ্রামের বাড়িতে ঢুকে কয়েকজন যুবক জুয়েলের ওপর হামলা করে। এসময় বাঁশ দিয়ে পিটিয়ে জুয়েলের মাথা ফাটিয়ে দেওয়া হয়। পরে পরিবারের লোকজন তাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করেন। মাথাসহ তার শরীরের বিভিন্ন অংশে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে।

আহত গাজী সুলতান জুয়েল বলেন, আমি বাড়িতে আসার খবরে রাজনৈতিক প্রতিহিংসা নিয়েই হিরন লোকজন দিয়ে আমার ওপর হামলা চালিয়েছে। এ ঘটনায় আদালতে মামলা করবো।

এ ব্যাপারে ইউপি সদস্য ওবায়েদুল হক হিরন বলেন, জুয়েল আমার আত্মীয়। তার ওপর আমার হামলার বিষয় সত্য নয়। মাহফিলের টাকা উত্তোলন নিয়ে জুয়েলের ছোট ভাই রবিউলের সঙ্গে হামলাকারীদের সমস্যা হয়েছে বলে শুনেছি। এ নিয়ে জুয়েলের ওপর হামলা করেছে বলে ধারণা করছি। হামলার খবর পেয়ে জুয়েলের বাড়িতে গিয়ে স্থানীয়দের সঙ্গে কথা বলেছি। আমি এর সঙ্গে সম্পৃক্ত নই।

সদর হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার (আরএমও) আনোয়ার হোসেন বলেন, জুয়েলের মাথা ফেটে গেছে। সেলাই করা হয়েছে৷ তাকে ভর্তি রেখে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে।

চন্দ্রগঞ্জ থানার ওসি একেএম ফজলুল হক বলেন, খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছে। কিন্তু এখনো পর্যন্ত এ ঘটনায় থানায় কেউ লিখিত অভিযোগ করেনি। অভিযোগ পেলে তদন্তপূর্বক আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন