ভরণ-পোষণ আইনে ছেলের বিরুদ্ধে মায়ের মামলা
jugantor
ভরণ-পোষণ আইনে ছেলের বিরুদ্ধে মায়ের মামলা

  বাঘা (রাজশাহী) প্রতিনিধি   

০৫ মার্চ ২০২১, ১০:০৪:১০  |  অনলাইন সংস্করণ

রাজশাহীর বাঘায় ছেলের বিরুদ্ধে মামলা করেছেন এক নারী। মামলার পর ছেলে মানিক উদ্দিনকে (৩৫) গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

অভিযোগে জানা গেছে, মানিক তার মাকে ভরণ-পোষণ দেন না। এ ছাড়া জমি লিখে না দেওয়ায় মাকে বেধড়ক মারপিট করে আহত করেছেন।

এ ঘটনায় বৃহস্পতিবার ওই নারী তার ছেলের বিরুদ্ধে পিতামাতার ভরণ-পোষণ আইনে একটি মামলা করেছেন।

উপজেলার চকবাউসা এলাকার প্রয়াত মোমিন উদ্দিনের স্ত্রী হাওয়া বেগম (৬৫) ১৫ বছর আগে তার স্বামীকে হারিয়েছেন। স্বামীর মৃত্যুর সময় দুই ছেলে এবং দুই মেয়েসহ ২ একর ৭৩ শতাংশ জমি রেখে যান। পরে দুই মেয়ের বিয়ে দেওয়া হয়। বর্তমানে এই জমি জোরপূর্বক ভোগদখল করছেন তার বড় ছেলে মানিক।

অভিযোগ রয়েছে, মানিক ওই সম্পত্তি তার মায়ের কাছে থেকে লিখে নিতে চান। কিন্তু হাওয়া বেগম রাজি না হওয়ায় বৃহস্পতিবার সকালে তাকে মারপিট করেন মানিক। এর পর তিনি মেয়ের জামাইকে সঙ্গে করে বাঘা থানায় ভরণ-পোষণ আইনে ছেলের বিরুদ্ধে মামলা করেন।

বাঘা থানার ওসি নজরুল ইসলাম যুগান্তরকে জানান, ভরণ-পোষণ আইনে বাঘা থানায় একটি মামলা নেওয়াসহ আসামি মানিককে গ্রেফতার করা হয়েছে। শুক্রবার সকালে তাকে জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে।

এ ধরনের মামলা এ থানায় প্রথম লিপিবদ্ধ হলো বলেও ওসি উল্লেখ করেন।

প্রসঙ্গত মা-বাবার ভরণ-পোষণ নিশ্চিত করা এবং তাদের সঙ্গে সন্তানের বসবাস বাধ্যতামূলক করার বিধান করে সরকার ২০১৩ সালে আইন পাস করে।

আইন অনুযায়ী, প্রত্যেক সন্তানকে তার মা-বাবার ভরণ-পোষণ নিশ্চিত করতে হবে। কোনো মা-বাবার একাধিক সন্তান থাকলে সে ক্ষেত্রে সন্তানরা নিজেদের মধ্যে আলাপ-আলোচনা করে ভরণ-পোষণ নিশ্চিত করবে।

যদি কোনো প্রবীণ তার সন্তানদের বিরুদ্ধে এ ধরনের কোনো অভিযোগ আনেন এবং অভিযোগ প্রমাণিত হলে তাদের এক লাখ টাকা জরিমানা, অনাদায়ে তিন মাসের কারাদণ্ডের বিধান রাখা হয়েছে আইনে।

ভরণ-পোষণ আইনে ছেলের বিরুদ্ধে মায়ের মামলা

 বাঘা (রাজশাহী) প্রতিনিধি  
০৫ মার্চ ২০২১, ১০:০৪ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ

রাজশাহীর বাঘায় ছেলের বিরুদ্ধে মামলা করেছেন এক নারী। মামলার পর ছেলে মানিক উদ্দিনকে (৩৫) গ্রেফতার করেছে পুলিশ। 

অভিযোগে জানা গেছে, মানিক তার মাকে ভরণ-পোষণ দেন না। এ ছাড়া জমি লিখে না দেওয়ায় মাকে বেধড়ক মারপিট করে আহত করেছেন। 

এ ঘটনায় বৃহস্পতিবার ওই নারী তার ছেলের বিরুদ্ধে পিতামাতার ভরণ-পোষণ আইনে একটি মামলা করেছেন।

উপজেলার চকবাউসা এলাকার  প্রয়াত মোমিন উদ্দিনের স্ত্রী  হাওয়া বেগম (৬৫) ১৫ বছর আগে তার  স্বামীকে হারিয়েছেন। স্বামীর মৃত্যুর সময় দুই ছেলে এবং দুই মেয়েসহ ২ একর ৭৩ শতাংশ জমি রেখে যান। পরে দুই মেয়ের বিয়ে দেওয়া হয়। বর্তমানে এই জমি জোরপূর্বক ভোগদখল করছেন তার বড় ছেলে মানিক। 

অভিযোগ রয়েছে, মানিক ওই সম্পত্তি তার মায়ের কাছে থেকে লিখে নিতে চান। কিন্তু হাওয়া বেগম রাজি না হওয়ায় বৃহস্পতিবার সকালে তাকে মারপিট করেন মানিক। এর পর তিনি মেয়ের জামাইকে সঙ্গে করে বাঘা থানায় ভরণ-পোষণ আইনে ছেলের বিরুদ্ধে মামলা করেন। 

বাঘা থানার ওসি নজরুল ইসলাম যুগান্তরকে জানান, ভরণ-পোষণ আইনে বাঘা থানায় একটি মামলা নেওয়াসহ আসামি মানিককে গ্রেফতার করা হয়েছে। শুক্রবার সকালে তাকে জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে। 

এ ধরনের মামলা এ থানায় প্রথম লিপিবদ্ধ হলো বলেও ওসি উল্লেখ করেন। 

প্রসঙ্গত মা-বাবার ভরণ-পোষণ নিশ্চিত করা এবং তাদের সঙ্গে সন্তানের বসবাস বাধ্যতামূলক করার বিধান করে সরকার ২০১৩ সালে আইন পাস করে।  

আইন অনুযায়ী, প্রত্যেক সন্তানকে তার মা-বাবার ভরণ-পোষণ নিশ্চিত করতে হবে। কোনো মা-বাবার একাধিক সন্তান থাকলে সে ক্ষেত্রে সন্তানরা নিজেদের মধ্যে আলাপ-আলোচনা করে ভরণ-পোষণ নিশ্চিত করবে।

যদি কোনো প্রবীণ তার সন্তানদের বিরুদ্ধে এ ধরনের কোনো অভিযোগ আনেন এবং অভিযোগ প্রমাণিত হলে তাদের এক লাখ টাকা জরিমানা, অনাদায়ে তিন মাসের কারাদণ্ডের বিধান রাখা হয়েছে আইনে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন