মঞ্চে বক্তব্য দেওয়া নিয়ে দুই আ.লীগ নেতার হাতাহাতি, আহত ১২
jugantor
মঞ্চে বক্তব্য দেওয়া নিয়ে দুই আ.লীগ নেতার হাতাহাতি, আহত ১২

  ফেনী প্রতিনিধি  

০৮ মার্চ ২০২১, ১৫:০৩:১০  |  অনলাইন সংস্করণ

মঞ্চে বক্তব্য দেওয়া নিয়ে ২ আ.লীগ নেতার হাতাহাতি, আহত ১২

ফেনীর ৭ মার্চের অনুষ্ঠানে বক্তব্য দেওয়া নিয়ে ফেনীর সোনাগাজী উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মেয়র খোকন ও ইউপি চেয়ারম্যান জহির উদ্দিন লিপটনের হাতিহাতির ঘটনা ঘটেছে।

এ সময় সাংবাদিক গাজী হানিফ, স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতা সাইফুল, সারোয়ার, ছাত্রলীগসহ ১২ জন আহত হয়েছেন।

রোববার রাতে সোনাগাজী জিরোপয়েন্টে এ ঘটনা ঘটে।

সোনাগাজী থানার ওসি সাজেদুল ইসলাম এ ঘটনার সত্যতা স্বীকার করেছেন।

দলীয় সূত্র ও থানা পুলিশ জানায়, ৭ মার্চের আলোচনাসভায় সোনাগাজী উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মফিজুল হকের সভাপতিত্বে শুরু হয়। সভা চলাকালে উপজেলা চেয়ারম্যান জহির উদ্দিন লিপটন ও পৌর মেয়র রফিকুল ইসলামের বাকবিতণ্ডা ও হাতাহাতির ঘটনা ঘটে।

সোনাগাজী আওয়ামী লীগের সভাপতি মফিজুল হক যুগান্তরকে জানান, সভার শেষ দিকে বক্তব্য দেওয়ার জন্য উপজেলা চেয়ারম্যান লিপটনের নাম ঘোষণা করা হয়। এ সময় মেয়র খোকন ক্ষিপ্ত হয়ে লিপটনকে ধাক্কা দেয়। বিষয়টি টের পেয়ে উভয় গ্রুপের মধ্যে হাতাহাতি ও মিছিল-পাল্টা মিছিলের ঘটনা ঘটে। পরে পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। এ ঘটনায় ১২ জন আহত হন।

সোনাগাজী থানার ওসি সাজেদুল ইসলাম ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, এ বিষয়ে থানায় এখনও লিখিত অভিযোগ কোনো পক্ষই দেয়নি। অভিযোগ পেলে ব্যবস্থা নেব।

উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মেয়র খোকন ঘটনাটি অস্বীকার করেছেন।

সোনাগাজী উপজেলা চেয়াম্যানের জহির উদ্দিন লিপটনের মোবাইলে বারবার যোগাযোগের চেষ্টা করেও তাকে পাওয়া যায়নি।

মঞ্চে বক্তব্য দেওয়া নিয়ে দুই আ.লীগ নেতার হাতাহাতি, আহত ১২

 ফেনী প্রতিনিধি 
০৮ মার্চ ২০২১, ০৩:০৩ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
মঞ্চে বক্তব্য দেওয়া নিয়ে ২ আ.লীগ নেতার হাতাহাতি, আহত ১২
ছবি: যুগান্তর

ফেনীর ৭ মার্চের অনুষ্ঠানে বক্তব্য দেওয়া নিয়ে ফেনীর সোনাগাজী উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মেয়র খোকন ও ইউপি চেয়ারম্যান জহির উদ্দিন লিপটনের হাতিহাতির ঘটনা ঘটেছে।

এ সময় সাংবাদিক গাজী হানিফ, স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতা সাইফুল, সারোয়ার, ছাত্রলীগসহ ১২ জন আহত হয়েছেন।

রোববার রাতে সোনাগাজী জিরোপয়েন্টে এ ঘটনা ঘটে।

সোনাগাজী থানার ওসি সাজেদুল ইসলাম এ ঘটনার সত্যতা স্বীকার করেছেন।

দলীয় সূত্র ও থানা পুলিশ জানায়, ৭ মার্চের আলোচনাসভায় সোনাগাজী উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মফিজুল হকের সভাপতিত্বে শুরু হয়। সভা চলাকালে উপজেলা চেয়ারম্যান জহির উদ্দিন লিপটন ও পৌর মেয়র রফিকুল ইসলামের বাকবিতণ্ডা ও হাতাহাতির ঘটনা ঘটে।

সোনাগাজী আওয়ামী লীগের সভাপতি মফিজুল হক যুগান্তরকে জানান, সভার শেষ দিকে বক্তব্য দেওয়ার জন্য উপজেলা চেয়ারম্যান লিপটনের নাম ঘোষণা করা হয়। এ সময় মেয়র খোকন ক্ষিপ্ত হয়ে লিপটনকে ধাক্কা দেয়। বিষয়টি টের পেয়ে উভয় গ্রুপের মধ্যে হাতাহাতি ও মিছিল-পাল্টা মিছিলের ঘটনা ঘটে। পরে পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। এ ঘটনায় ১২ জন আহত হন।

সোনাগাজী থানার ওসি সাজেদুল ইসলাম ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, এ বিষয়ে থানায় এখনও লিখিত অভিযোগ কোনো পক্ষই দেয়নি। অভিযোগ পেলে ব্যবস্থা নেব।

উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মেয়র খোকন ঘটনাটি অস্বীকার করেছেন।

সোনাগাজী উপজেলা চেয়াম্যানের জহির উদ্দিন লিপটনের মোবাইলে বারবার যোগাযোগের চেষ্টা করেও তাকে পাওয়া যায়নি।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন