দেবিদ্বারে ইউপি উদ্যোক্তার বিরুদ্ধে মাতৃত্বকালীন ভাতা আত্মসাতের অভিযোগ
jugantor
দেবিদ্বারে ইউপি উদ্যোক্তার বিরুদ্ধে মাতৃত্বকালীন ভাতা আত্মসাতের অভিযোগ

  আবুল খায়ের, কুমিল্লা ব্যুরো  

০৮ মার্চ ২০২১, ১৫:৫১:৩০  |  অনলাইন সংস্করণ

কুমিল্লার দেবিদ্বারে গোলাম মহিউদ্দিন স্বপন নামে এক উদ্যোক্তার বিরুদ্ধে অসংখ্য নারীর মাতৃত্বকালীন ভাতার টাকা আত্মসাতের অভিযোগ পাওয়া গেছে। উপজেলার গুনাইঘর দক্ষিণ ইউনিয়নে এ ঘটনা ঘটেছে।
গত দুই বছর ধরে ওই উদ্যোক্তা প্রতারণার মাধ্যমে এসব দরিদ্র নারীর ভাতার টাকা হাতিয়ে নিয়েছেন বলে অভিযোগ ভুক্তভোগীদের। ওই উদ্যোক্তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার দাবি জানিয়েছেন জনপ্রতিনিধিরা।
ভুক্তভোগীদের অভিযোগ— ২০১৯-২০ অর্থবছরে উপজেলার গুনাইঘর দক্ষিণ ইউনিয়ন এলাকায় ৮৬ হতদরিদ্র নারীকে মাতৃত্বকালীন ভাতার আওতায় আনা হয়। ইউনিয়ন উদ্যোক্তার মাধ্যমে এ ভাতা বিতরণের নিয়ম। কিন্তু ওই ইউপির উদ্যোক্তা গোলাম মহিউদ্দিন স্বপন গ্রামের সহজ-সরল নারীদের কাছ থেকে এজেন্ট ব্যাংকিংয়ের অ্যাকাউন্ট নাম্বার এবং পাসওয়ার্ড সংগ্রহ করে নিজেই প্রায় অর্ধশতাধিক নারীর ভাতা তুলে আত্মসাৎ করেন।
গত বছরের আগস্ট-সেপ্টেম্বর মাসে এসব নারী এ ভাতা পাওয়ার কথা থাকলেও সময়মতো তারা ভাতা না পেয়ে উপজেলা প্রশাসন এবং স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদের দ্বারে দ্বারে যান। পরে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কার্যালয়ে সংশ্লিষ্ট বিভাগের গিয়ে অভিযোগ করলে সেখানে দায়িত্বরতরা অনুসন্ধান করে দেখেন এসব নারীর ভাতার টাকা তুলে নেওয়া হয়েছে।
পরে ভুক্তভোগীরা স্বপনের কাছে গেলে তিনি টালবাহানা শুরু করেন। এদিকে হতদরিদ্রদের ভাতার টাকা পরিশোধের জন্য এলাকাবাসীর পক্ষ থেকেও তাকে নানাভাবে চাপ দেওয়া হয়। কিন্তু রাজনৈতিক প্রভাব খাটিয়ে এ উদ্যোক্তা এসব নারীর টাকা পরিশোধ না করে উল্টো তাদের নানাভাবে হয়রানি করছেন বলেও অভিযোগ উঠেছে।
ওই ইউপির মাশিকাড়া গ্রামের নাসির উদ্দিনের স্ত্রী জান্নাতুল ফেরদৌসি জানান, গত বছরের ১৯ আগস্ট তার নামের অ্যাকাউন্ট থেকে ৯ হাজার ২০০ টাকা তুলে নিয়েছে উদ্যোক্তা স্বপন। অনেক ঘোরাঘুরি করেও তার কাছ থেকে ভাতার টাকা আদায় করা সম্ভব হয়নি।
ইউপির শাকতলা গ্রামের আব্দুল লতিফের মেয়ে কুলসুম আক্তার জানান, একই বছরের ১৮ নভেম্বর তার নিজস্ব অ্যাকাউন্ট থেকে ৯ হাজার ৬০০ টাকা উত্তোলন করে নেওয়া হয়েছে।
গণেশপুর গ্রামের শাহজালালের স্ত্রী হাসিনা বেগম জানান, তার নামের মাতৃত্বকালীন ভাতার ১০ হাজার টাকা তুলে নিয়েছে উদ্যোক্তা স্বপন। একই গ্রামের মো. হাসানের স্ত্রী সালমা আক্তার জানান, তার অ্যাকাউন্ট থেকেও একইভাবে ১০ হাজার টাকা তুলে নেওয়া হয়েছে।
অভিযুক্ত উদ্যোক্তা গোলাম মহিউদ্দিন স্বপন বলেন, ১৫-১৬ নারীর গর্ভকালীন ভাতা আমার কাছে আছে, আমি তাদের এসে টাকা নিয়ে যাওয়ার জন্য বারবার খবর দিয়েছি, কিন্তু তারা ভাতার টাকা নিতে না এসে উল্টো আমার বিরুদ্ধে অভিযোগ করছেন।
গুনাইঘর দক্ষিণ ইউপির চেয়ারম্যান আব্দুল হাকিম বলেন, উদ্যোক্তা গোলাম মহিউদ্দিন স্বপন সেবাপ্রত্যাশীদের জিম্মি করে অবৈধভাবে অর্থ হাতিয়ে নেওয়ার অনেক অভিযোগ আমার কাছে এসেছে। আমি তাকে এসব বিষয়ে জিজ্ঞেস করলে সে উল্টো রাজনৈতিক দলের প্রভাব খাটাচ্ছে। তার বিরুদ্ধে তদন্ত করে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া দরকার।
এ বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা রাকিব হাসান বলেন, ভাতার অর্থ আত্মসাতের বিষয়ে লিখিত অভিযোগ পেলে সংশ্লিষ্ট উদ্যোক্তার বিরুদ্ধে যথাযথ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

দেবিদ্বারে ইউপি উদ্যোক্তার বিরুদ্ধে মাতৃত্বকালীন ভাতা আত্মসাতের অভিযোগ

 আবুল খায়ের, কুমিল্লা ব্যুরো 
০৮ মার্চ ২০২১, ০৩:৫১ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

কুমিল্লার দেবিদ্বারে গোলাম মহিউদ্দিন স্বপন নামে এক উদ্যোক্তার বিরুদ্ধে অসংখ্য নারীর মাতৃত্বকালীন ভাতার টাকা আত্মসাতের অভিযোগ পাওয়া গেছে। উপজেলার গুনাইঘর দক্ষিণ ইউনিয়নে এ ঘটনা ঘটেছে।  
গত দুই বছর ধরে ওই উদ্যোক্তা প্রতারণার মাধ্যমে এসব দরিদ্র নারীর ভাতার টাকা হাতিয়ে নিয়েছেন বলে অভিযোগ ভুক্তভোগীদের। ওই উদ্যোক্তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার দাবি জানিয়েছেন জনপ্রতিনিধিরা। 
ভুক্তভোগীদের অভিযোগ— ২০১৯-২০ অর্থবছরে উপজেলার গুনাইঘর দক্ষিণ ইউনিয়ন এলাকায় ৮৬ হতদরিদ্র নারীকে মাতৃত্বকালীন ভাতার আওতায় আনা হয়। ইউনিয়ন উদ্যোক্তার মাধ্যমে এ ভাতা বিতরণের নিয়ম। কিন্তু ওই ইউপির উদ্যোক্তা গোলাম মহিউদ্দিন স্বপন গ্রামের সহজ-সরল নারীদের কাছ থেকে এজেন্ট ব্যাংকিংয়ের অ্যাকাউন্ট নাম্বার এবং পাসওয়ার্ড সংগ্রহ করে নিজেই প্রায় অর্ধশতাধিক নারীর ভাতা তুলে আত্মসাৎ করেন। 
গত বছরের আগস্ট-সেপ্টেম্বর মাসে এসব নারী এ ভাতা পাওয়ার কথা থাকলেও সময়মতো তারা ভাতা না পেয়ে উপজেলা প্রশাসন এবং স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদের দ্বারে দ্বারে যান। পরে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কার্যালয়ে সংশ্লিষ্ট বিভাগের গিয়ে অভিযোগ করলে সেখানে দায়িত্বরতরা অনুসন্ধান করে দেখেন এসব নারীর ভাতার টাকা তুলে নেওয়া হয়েছে। 
পরে ভুক্তভোগীরা স্বপনের কাছে গেলে তিনি টালবাহানা শুরু করেন। এদিকে হতদরিদ্রদের ভাতার টাকা পরিশোধের জন্য এলাকাবাসীর পক্ষ থেকেও তাকে নানাভাবে চাপ দেওয়া হয়। কিন্তু রাজনৈতিক প্রভাব খাটিয়ে এ উদ্যোক্তা এসব নারীর টাকা পরিশোধ না করে উল্টো তাদের নানাভাবে হয়রানি করছেন বলেও অভিযোগ উঠেছে। 
ওই ইউপির মাশিকাড়া গ্রামের নাসির উদ্দিনের স্ত্রী জান্নাতুল ফেরদৌসি জানান, গত বছরের ১৯ আগস্ট তার নামের অ্যাকাউন্ট থেকে ৯ হাজার ২০০ টাকা তুলে নিয়েছে উদ্যোক্তা স্বপন। অনেক ঘোরাঘুরি করেও তার কাছ থেকে ভাতার টাকা আদায় করা সম্ভব হয়নি। 
ইউপির শাকতলা গ্রামের আব্দুল লতিফের মেয়ে কুলসুম আক্তার জানান, একই বছরের ১৮ নভেম্বর তার নিজস্ব অ্যাকাউন্ট থেকে ৯ হাজার ৬০০ টাকা উত্তোলন করে নেওয়া হয়েছে। 
গণেশপুর গ্রামের শাহজালালের স্ত্রী হাসিনা বেগম জানান, তার নামের মাতৃত্বকালীন ভাতার ১০ হাজার টাকা তুলে নিয়েছে উদ্যোক্তা স্বপন। একই গ্রামের মো. হাসানের স্ত্রী সালমা আক্তার জানান, তার অ্যাকাউন্ট থেকেও একইভাবে ১০ হাজার টাকা তুলে নেওয়া হয়েছে। 
অভিযুক্ত উদ্যোক্তা গোলাম মহিউদ্দিন স্বপন বলেন, ১৫-১৬ নারীর গর্ভকালীন ভাতা আমার কাছে আছে, আমি তাদের এসে টাকা নিয়ে যাওয়ার জন্য বারবার খবর দিয়েছি, কিন্তু তারা ভাতার টাকা নিতে না এসে উল্টো আমার বিরুদ্ধে অভিযোগ করছেন। 
গুনাইঘর দক্ষিণ ইউপির চেয়ারম্যান আব্দুল হাকিম বলেন, উদ্যোক্তা গোলাম মহিউদ্দিন স্বপন সেবাপ্রত্যাশীদের জিম্মি করে অবৈধভাবে অর্থ হাতিয়ে নেওয়ার অনেক অভিযোগ আমার কাছে এসেছে। আমি তাকে এসব বিষয়ে জিজ্ঞেস করলে সে উল্টো রাজনৈতিক দলের প্রভাব খাটাচ্ছে। তার বিরুদ্ধে তদন্ত করে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া দরকার।
এ বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা রাকিব হাসান বলেন, ভাতার অর্থ আত্মসাতের বিষয়ে লিখিত অভিযোগ পেলে সংশ্লিষ্ট উদ্যোক্তার বিরুদ্ধে যথাযথ ব্যবস্থা নেওয়া হবে। 

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন