সিলেটের ফুটপাতে বস্তাভর্তি জাতীয় পরিচয়পত্র!
jugantor
সিলেটের ফুটপাতে বস্তাভর্তি জাতীয় পরিচয়পত্র!

  সিলেট ব্যুরো  

০৮ মার্চ ২০২১, ২০:২২:২৯  |  অনলাইন সংস্করণ

সিলেট নগরীর খাসদবির এলাকায় পাওয়া গেলো বস্তাভর্তি জাতীয় পরিচয়পত্র। কিন্তু কে বা কারা কেন এসব জাতীয় রেখে গেছে তা নিয়ে চলছে আলোচনা।

আর পুলিশ বলছে, স্মার্ট কার্ড গ্রহণের পর ফেরত দেওয়া জাতীয় পরিচয়পত্র চুরি করেই কেউ এমন ঘটনা ঘটাতে পারে।

রোববার দিবাগত রাত প্রায় ২টার দিকে এসব পরিচয়পত্র পেয়ে পুলিশকে খবর দেন স্থানীয়রা। পরে সিলেট মহানগরের এয়ারপোর্ট থানার পুলিশ এসে জাতীয় পরিচয়পত্রগুলো উদ্ধার করে জব্দ করে।

স্থানীয় বাসিন্দা রোহান নামের একজন বলেন, প্রথমে এসব পরিচয়পত্র আমরা পাই। খাসদবির এলাকায় ফুটপাতের ওপর তিনটি বস্তা দেখতে পাই। বস্তাগুলো খুলে দেখি দুইটি বস্তায় কিছু কাপড় আর একটি বস্তা ভর্তি জাতীয় পরিচয়পত্র। এ বস্তার ভিতর এলইডি বাল্বের কয়েকটি প্যাকেটও পাওয়া গেছে। পরে আমরা খবর দিলে পুলিশ এসে জাতীয় পরিচয়পত্রগুলো নিয়ে গেছে।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে এয়ারপোর্ট থানার ওসি খান মুহাম্মদ মাঈনুল জাকির যুগান্তরকে জানান, একটি বস্তার ভেতর ২৬৭টি জাতীয় পরিচয়পত্র পেয়ে তা জব্দ করা হয়েছে। প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে স্মার্ট কার্ড পাওয়ার পর আগের কার্ডগুলো জমা দিতে হয়। হয়ত এসব কার্ড ভর্তি বস্তা কেউ চুরি করে পরে কোনো কারণে এখানে ফেলে গেছে।

সিলেটের ফুটপাতে বস্তাভর্তি জাতীয় পরিচয়পত্র!

 সিলেট ব্যুরো 
০৮ মার্চ ২০২১, ০৮:২২ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

সিলেট নগরীর খাসদবির এলাকায় পাওয়া গেলো বস্তাভর্তি জাতীয় পরিচয়পত্র। কিন্তু কে বা কারা কেন এসব জাতীয় রেখে গেছে তা নিয়ে চলছে আলোচনা।

আর পুলিশ বলছে, স্মার্ট কার্ড গ্রহণের পর ফেরত দেওয়া জাতীয় পরিচয়পত্র চুরি করেই কেউ এমন ঘটনা ঘটাতে পারে।

রোববার দিবাগত রাত প্রায় ২টার দিকে এসব পরিচয়পত্র পেয়ে পুলিশকে খবর দেন স্থানীয়রা। পরে সিলেট মহানগরের এয়ারপোর্ট থানার পুলিশ এসে জাতীয় পরিচয়পত্রগুলো উদ্ধার করে জব্দ করে।

স্থানীয় বাসিন্দা রোহান নামের একজন বলেন, প্রথমে এসব পরিচয়পত্র আমরা পাই। খাসদবির এলাকায় ফুটপাতের ওপর তিনটি বস্তা দেখতে পাই। বস্তাগুলো খুলে দেখি দুইটি বস্তায় কিছু কাপড় আর একটি বস্তা ভর্তি জাতীয় পরিচয়পত্র। এ বস্তার ভিতর এলইডি বাল্বের কয়েকটি প্যাকেটও পাওয়া গেছে। পরে আমরা খবর দিলে পুলিশ এসে জাতীয় পরিচয়পত্রগুলো নিয়ে গেছে।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে এয়ারপোর্ট থানার ওসি খান মুহাম্মদ মাঈনুল জাকির যুগান্তরকে জানান, একটি বস্তার ভেতর ২৬৭টি জাতীয় পরিচয়পত্র পেয়ে তা জব্দ করা হয়েছে। প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে স্মার্ট কার্ড পাওয়ার পর আগের কার্ডগুলো জমা দিতে হয়। হয়ত এসব কার্ড ভর্তি বস্তা কেউ চুরি করে পরে কোনো কারণে এখানে ফেলে গেছে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন