আশুলিয়ায় বাগানভর্তি গাছগুলো গাঁজার
jugantor
আশুলিয়ায় বাগানভর্তি গাছগুলো গাঁজার

  আশুলিয়া (ঢাকা) প্রতিনিধি  

০৮ মার্চ ২০২১, ২২:৪২:০১  |  অনলাইন সংস্করণ

ঢাকার আশুলিয়ায় ২৭ ফেব্রুয়ারি সন্ধ্যায় খেজুরবাগান মোল্লা বাড়ি গলি এলাকায় সোহেল হোসেনের বাগানে গাজা গাছের সন্ধান পায় পুলিশ। এর পর থেকে বাগানের কয়েকটি গাছ সিআইডি ল্যাবে পরীক্ষার জন্য পাঠানো হয়।

প্রাথমিক সন্দেহের পর ২৮ ফেব্রুয়ারি আশুলিয়ার খেজুরবাগান মোল্লা বাড়ি গলি সোহেল হোসেনের মালিকানাধীন প্রাচীরঘেরা ওই স্থানটি পুলিশের নজরদারিতে থাকে। ওই সময় জায়গার মালিক ও তার ছেলেকে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করা হলেও সুনির্দিষ্ট প্রমাণের অভাবে পুলিশ তাদের ছেড়ে দেয়।

রোববার সিআইডি ল্যাবের রিপোর্টের ভিত্তিতে সোমবার দুপুরে গাঁজা গাছ গুলো কেটে জব্দ করেছেন বলে নিশ্চিত করেন আশুলিয়া থানার এসআই সুদীপ কুমার। তিনি বলেন, গাঁজা সদৃশ গাছের স্যাম্পল পরীক্ষার জন্য ঢাকার সিআইডি ল্যাবে পাঠানো হয়েছিল। সিআইডি রিপোর্টে সেগুলো গাঁজার গাছ বলে নিশ্চিত হওয়া গেছে। ঘটনায় বাগানের মালিক সোহেল হোসেন ও তার ছেলেকে আসামি করে মাদক দ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে।

তিনি বলেন, সোমবার সকালে গাঁজার গাছ গুলো কেটে জব্দ করা হয়েছে। বাগানের মালিক সোহেল হোসেন ও তার ছেলে পলাতক রয়েছে। তাদেরকে গ্রেফতারের জন্য অভিযান চলছে।

আশুলিয়ায় বাগানভর্তি গাছগুলো গাঁজার

 আশুলিয়া (ঢাকা) প্রতিনিধি 
০৮ মার্চ ২০২১, ১০:৪২ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

ঢাকার আশুলিয়ায় ২৭ ফেব্রুয়ারি সন্ধ্যায় খেজুরবাগান মোল্লা বাড়ি গলি এলাকায় সোহেল হোসেনের বাগানে গাজা গাছের সন্ধান পায় পুলিশ। এর পর থেকে বাগানের কয়েকটি গাছ সিআইডি ল্যাবে পরীক্ষার জন্য পাঠানো হয়।

প্রাথমিক সন্দেহের পর ২৮ ফেব্রুয়ারি আশুলিয়ার খেজুরবাগান মোল্লা বাড়ি গলি সোহেল হোসেনের মালিকানাধীন প্রাচীরঘেরা ওই স্থানটি পুলিশের নজরদারিতে থাকে। ওই সময় জায়গার মালিক ও তার ছেলেকে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করা হলেও সুনির্দিষ্ট প্রমাণের অভাবে পুলিশ তাদের ছেড়ে দেয়।

রোববার সিআইডি ল্যাবের রিপোর্টের ভিত্তিতে সোমবার দুপুরে গাঁজা গাছ গুলো কেটে জব্দ করেছেন বলে নিশ্চিত করেন আশুলিয়া থানার এসআই সুদীপ কুমার। তিনি বলেন, গাঁজা সদৃশ গাছের স্যাম্পল পরীক্ষার জন্য ঢাকার সিআইডি ল্যাবে পাঠানো হয়েছিল। সিআইডি রিপোর্টে সেগুলো গাঁজার গাছ বলে নিশ্চিত হওয়া গেছে। ঘটনায় বাগানের মালিক সোহেল হোসেন ও তার ছেলেকে আসামি করে মাদক দ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে।

তিনি বলেন, সোমবার  সকালে গাঁজার গাছ গুলো কেটে জব্দ করা হয়েছে। বাগানের মালিক সোহেল হোসেন ও তার ছেলে পলাতক রয়েছে। তাদেরকে গ্রেফতারের জন্য অভিযান চলছে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন