ভোলায় ১৩৭ জেলের জেল-জরিমানা
jugantor
ভোলায় ১৩৭ জেলের জেল-জরিমানা

  যুগান্তর প্রতিবেদন, ভোলা  

১০ মার্চ ২০২১, ১৮:৪২:২২  |  অনলাইন সংস্করণ

নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে ভোলার সাত উপজেলার মেঘনা-তেঁতুলিয়া নদীতে ইলিশ শিকার করায় ১০ দিনে ১৩৭ জন জেলের জেল জব্দ ও জরিমানা করা হয়েছে।

এ সময় জেলেদের কাছ থেকে ১ হাজার ৯৫২ কেজি ইলিশ ও ২ লাখ ৮৩ মিটার অবৈধ কারেন্ট জাল জব্দ করা হয়। এছাড়াও ৪৩টি অবৈধ বেহুন্দি জাল, ১৫টি চর ঘেরা ও ২২টি মশুরি জাল জব্দ করা হয়।

বুধবার দুপুর ১২টার দিকে এ তথ্য নিশ্চিত করেন ভোলা জেলা মৎস্য কর্মকর্তা এসএম আজহারুল ইসলাম।

তিনি জানান, গত ১ মার্চ থেকে বুধবার দুপুর ১২টা পর্যন্ত ভোলার সাত উপজেলার মেঘনা-তেঁতুলিয়া নদীতে সরকারি নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে ইলিশ শিকার করায় ১৩৭ জেলেকে আটক করা হয়। এদের মধ্যে ৯৪ জন জেলেকে ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে বিভিন্ন মেয়াদে কারাদণ্ড ও ৪৩ জনের কাছ থেকে দুই লাখ ৪৬ হাজার টাকা জরিমানা করে ছেড়ে দেওয়া হয়েছে।

মৎস্য কর্মকর্তা জানান, জব্দকৃত জাল প্রশাসনের উপস্থিতিতে আগুনে পুড়িয়ে বিনষ্ট এবং জব্দকৃত মাছ স্থানীয় এতিমখানায় বিতরণ করা হয়েছে। এছাড়াও জব্দকৃত ট্রলার ও নৌকা নিলাম দেওয়া হয় ১ লাখ ৩৬ হাজার টাকায়।

তিনি আরও জানান, মৎস্য সম্পদ রক্ষায় মৎস্য বিভাগ কোস্টগার্ড, পুলিশ ও নৌ পুলিশ নিয়ে নিয়মিত অভিযান পরিচালনা করে আসছে।
এছাড়াও নিষেধাজ্ঞার সময় ভোলার সাত উপজেলায় ১ লাখ ৩৯ হাজার ৩৮ জেলের মধ্যে ৭৮ হাজার জেলেকে ৪০ কেজি করে ৪ চার মাস খাদ্য সহায়তার চাল বিতরণ করা হবে।

উল্লেখ্য, গত ১ মার্চ থেকে ৩০ এপ্রিল পর্যন্ত ভোলা জেলার ১৯০ কিলোমিটার নদী সীমানায় ইলিশের আভয়াশ্রম হওয়া সব ধরনের মাছ শিকার, মজুদ, বাজারজাত, বিক্রি ও পরিবহনের ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি করে সরকার।

ভোলায় ১৩৭ জেলের জেল-জরিমানা

 যুগান্তর প্রতিবেদন, ভোলা 
১০ মার্চ ২০২১, ০৬:৪২ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে ভোলার সাত উপজেলার মেঘনা-তেঁতুলিয়া নদীতে ইলিশ শিকার করায় ১০ দিনে ১৩৭ জন জেলের জেল জব্দ ও জরিমানা করা হয়েছে।

এ সময় জেলেদের কাছ থেকে ১ হাজার ৯৫২ কেজি ইলিশ ও ২ লাখ ৮৩ মিটার অবৈধ কারেন্ট জাল জব্দ করা হয়। এছাড়াও ৪৩টি অবৈধ বেহুন্দি জাল, ১৫টি চর ঘেরা ও ২২টি মশুরি জাল জব্দ করা হয়।

বুধবার দুপুর ১২টার দিকে এ তথ্য নিশ্চিত করেন ভোলা জেলা মৎস্য কর্মকর্তা এসএম আজহারুল ইসলাম।

তিনি জানান, গত ১ মার্চ থেকে বুধবার দুপুর ১২টা পর্যন্ত ভোলার সাত উপজেলার মেঘনা-তেঁতুলিয়া নদীতে সরকারি নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে ইলিশ শিকার করায় ১৩৭ জেলেকে আটক করা হয়। এদের মধ্যে ৯৪ জন জেলেকে ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে বিভিন্ন মেয়াদে কারাদণ্ড ও ৪৩ জনের কাছ থেকে দুই লাখ ৪৬ হাজার টাকা জরিমানা করে ছেড়ে দেওয়া হয়েছে।

মৎস্য কর্মকর্তা জানান, জব্দকৃত জাল প্রশাসনের উপস্থিতিতে আগুনে পুড়িয়ে বিনষ্ট এবং জব্দকৃত মাছ স্থানীয় এতিমখানায় বিতরণ করা হয়েছে। এছাড়াও জব্দকৃত ট্রলার ও নৌকা নিলাম দেওয়া হয় ১ লাখ ৩৬ হাজার টাকায়। 

তিনি আরও জানান, মৎস্য সম্পদ রক্ষায় মৎস্য বিভাগ কোস্টগার্ড, পুলিশ ও নৌ পুলিশ নিয়ে নিয়মিত অভিযান পরিচালনা করে আসছে।
এছাড়াও নিষেধাজ্ঞার সময় ভোলার সাত উপজেলায় ১ লাখ ৩৯ হাজার ৩৮ জেলের মধ্যে ৭৮ হাজার জেলেকে ৪০ কেজি করে ৪ চার মাস খাদ্য সহায়তার চাল বিতরণ করা হবে। 

উল্লেখ্য, গত ১ মার্চ থেকে ৩০ এপ্রিল পর্যন্ত ভোলা জেলার ১৯০ কিলোমিটার নদী সীমানায় ইলিশের আভয়াশ্রম হওয়া সব ধরনের মাছ শিকার, মজুদ, বাজারজাত, বিক্রি ও পরিবহনের ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি করে সরকার।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন