তিন বছর পর নিজগৃহে সেই রাবেয়া-রোকেয়া (ভিডিও)
jugantor
তিন বছর পর নিজগৃহে সেই রাবেয়া-রোকেয়া (ভিডিও)

  পবিত্র তালুকদার, চাটমোহর (পাবনা)  

১৫ মার্চ ২০২১, ২২:৫৬:০০  |  অনলাইন সংস্করণ

চিকিৎসা শেষে দীর্ঘ তিন বছর পর পাবনার চাটমোহর উপজেলার আটলংকা গ্রামে নিজগৃহে ফিরল মাথা জোড়া লাগা শিশু রাবেয়া-রোকেয়া। সোমবার সকাল সাড়ে ১০টায় বাবা-মায়ের সঙ্গে তারা ঢাকা থেকে রওনা দেয়। এরপর বিকাল সাড়ে ৪টার দিকে তারা নিজগৃহে এসে পৌঁছায়।

এদিকে রাবেয়া-রোকেয়াকে বরণ করতে দুপুর থেকেই ফুল হাতে বাড়ির সামনে অপেক্ষারত ছিলেন স্বজনরা।

বিকালে রাবেয়া-রোকেয়াকে বহনকারী গাড়িটি বাড়ির সামনে এসে পৌঁছতেই স্বজনরা তাদের দেখে আবেগাপ্লুত হয়ে পড়েন। পাশাপাশি গ্রামের শত শত মানুষও ভিড় জমান।

গাড়ি থেকে নেমেই সবাইকে সালাম জানায় রাবেয়া। ‘সবাই ভালো আছেন’ রাবেয়ার মুখে এমন কথা শুনে এ সময় সবার চোখ বেয়ে গড়িয়ে পড়ছিল আনন্দাশ্রু।

অন্যদিকে খবর পেয়ে রাবেয়া-রোকেয়াকে দেখতে তাদের বাড়িতে ছুটে যান উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) সৈকত ইসলাম ও উপজেলা শিক্ষা অফিসার মাহবুবুর রহমান।


২০১৭ সালের ৫ জুলাই ‘জোড়া মাথার শিশু নিয়ে দুশ্চিন্তায় শিক্ষক দম্পতি’ এমন শিরোনামে দৈনিক যুগান্তরে সর্বপ্রথম রাবেয়া-রোকেয়াকে নিয়ে একটি সচিত্র সংবাদ প্রকাশ হয়। এছাড়া দেশের বিভিন্ন গণমাধ্যমে সংবাদ প্রকাশের পর শিশু দুটির চিকিৎসার দায়িত্ব নেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এরপর ২০১৮ সালের ডিসেম্বর মাসে রাবেয়া-রোকেয়াকে নিয়ে চিকিৎসার জন্য ঢাকায় যান তার বাবা-মা।

প্রধানমন্ত্রীর দিকনির্দেশনায় ২০১৯ সালের ১ আগস্ট ঢাকা সিএমএইচে ৩৩ ঘণ্টাব্যাপী বিরল অপারেশনের মাধ্যমে মাথা জোড়া লাগানো যমজ শিশু রাবেয়া ও রোকেয়ার সফল অস্ত্রোপচার সম্পন্ন হয়। হাঙ্গেরির একটি মেডিকেল টিম, ঢাকা মেডিকেল কলেজ, শেখ হাসিনা বার্ন অ্যান্ড প্লাস্টিক ইনস্টিটিউট, সোহরাওয়ার্দী হাসপাতাল, সিআরপি ও শিশু হাসপাতালের সংশ্লিষ্ট সার্জন, চিকিৎসক এবং চিকিৎসা সহায়তাকারীদের সমন্বয়ে গঠিত একটি মেডিকেল টিম এ অস্ত্রোপচার সম্পন্ন করে।

উল্লেখ্য, ২০১৬ সালের ১৬ জুন পাবনার চাটমোহর উপজেলার আটলংকা গ্রামে স্কুলশিক্ষক দম্পতি রফিকুল ইসলাম ও তাসলিমা বেগমের ঘরে জন্মগ্রহণ করে জোড়া মাথার যমজ শিশু রাবেয়া-রোকেয়া। পাবনা সদরের একটি বেসরকারি ক্লিনিকে সিজারিয়ান অপারেশনের মাধ্যমে তাদের জন্ম হয়।

তিন বছর পর নিজগৃহে সেই রাবেয়া-রোকেয়া (ভিডিও)

 পবিত্র তালুকদার, চাটমোহর (পাবনা) 
১৫ মার্চ ২০২১, ১০:৫৬ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

চিকিৎসা শেষে দীর্ঘ তিন বছর পর পাবনার চাটমোহর উপজেলার আটলংকা গ্রামে নিজগৃহে ফিরল মাথা জোড়া লাগা শিশু রাবেয়া-রোকেয়া। সোমবার সকাল সাড়ে ১০টায় বাবা-মায়ের সঙ্গে তারা ঢাকা থেকে রওনা দেয়। এরপর বিকাল সাড়ে ৪টার দিকে তারা নিজগৃহে এসে পৌঁছায়।

এদিকে রাবেয়া-রোকেয়াকে বরণ করতে দুপুর থেকেই ফুল হাতে বাড়ির সামনে অপেক্ষারত ছিলেন স্বজনরা। 

বিকালে রাবেয়া-রোকেয়াকে বহনকারী গাড়িটি বাড়ির সামনে এসে পৌঁছতেই স্বজনরা তাদের দেখে আবেগাপ্লুত হয়ে পড়েন। পাশাপাশি গ্রামের শত শত মানুষও ভিড় জমান।

গাড়ি থেকে নেমেই সবাইকে সালাম জানায় রাবেয়া। ‘সবাই ভালো আছেন’ রাবেয়ার মুখে এমন কথা শুনে এ সময় সবার চোখ বেয়ে গড়িয়ে পড়ছিল আনন্দাশ্রু।

অন্যদিকে খবর পেয়ে রাবেয়া-রোকেয়াকে দেখতে তাদের বাড়িতে ছুটে যান উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) সৈকত ইসলাম ও উপজেলা শিক্ষা অফিসার মাহবুবুর রহমান।


২০১৭ সালের ৫ জুলাই ‘জোড়া মাথার শিশু নিয়ে দুশ্চিন্তায় শিক্ষক দম্পতি’ এমন শিরোনামে দৈনিক যুগান্তরে সর্বপ্রথম রাবেয়া-রোকেয়াকে নিয়ে একটি সচিত্র সংবাদ প্রকাশ হয়। এছাড়া দেশের বিভিন্ন গণমাধ্যমে সংবাদ প্রকাশের পর শিশু দুটির চিকিৎসার দায়িত্ব নেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এরপর ২০১৮ সালের ডিসেম্বর মাসে রাবেয়া-রোকেয়াকে নিয়ে চিকিৎসার জন্য ঢাকায় যান তার বাবা-মা।

প্রধানমন্ত্রীর দিকনির্দেশনায় ২০১৯ সালের ১ আগস্ট ঢাকা সিএমএইচে ৩৩ ঘণ্টাব্যাপী বিরল অপারেশনের মাধ্যমে মাথা জোড়া লাগানো যমজ শিশু রাবেয়া ও রোকেয়ার সফল অস্ত্রোপচার সম্পন্ন হয়। হাঙ্গেরির একটি মেডিকেল টিম, ঢাকা মেডিকেল কলেজ, শেখ হাসিনা বার্ন অ্যান্ড প্লাস্টিক ইনস্টিটিউট, সোহরাওয়ার্দী হাসপাতাল, সিআরপি ও শিশু হাসপাতালের সংশ্লিষ্ট সার্জন, চিকিৎসক এবং চিকিৎসা সহায়তাকারীদের সমন্বয়ে গঠিত একটি মেডিকেল টিম এ অস্ত্রোপচার সম্পন্ন করে।

উল্লেখ্য, ২০১৬ সালের ১৬ জুন পাবনার চাটমোহর উপজেলার আটলংকা গ্রামে স্কুলশিক্ষক দম্পতি রফিকুল ইসলাম ও তাসলিমা বেগমের ঘরে জন্মগ্রহণ করে জোড়া মাথার যমজ শিশু রাবেয়া-রোকেয়া। পাবনা সদরের একটি বেসরকারি ক্লিনিকে সিজারিয়ান অপারেশনের মাধ্যমে তাদের জন্ম হয়।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন