খেলতে গিয়ে সাপের কামড়, হাসপাতালে নেয়ার আগেই শিশুর মৃত্যু
jugantor
খেলতে গিয়ে সাপের কামড়, হাসপাতালে নেয়ার আগেই শিশুর মৃত্যু

  কুড়িগ্রাম প্রতিনিধি  

১৭ মার্চ ২০২১, ২২:৩৪:৩২  |  অনলাইন সংস্করণ

খেলতে গিয়ে বিষধর সাপের কামড়ে হৃদয় হোসেন (১১) নামের এক স্কুলছাত্রের মৃত্যু হয়েছে। তাকে সাপে কামড় দেয়ার সঙ্গে সঙ্গে হাসপাতালে নেয়া হয়। তবে হাসপাতালে নেয়ার আগে পথেই তার মৃত্যু হয়।

বুধবার দুপুরে কুড়িগ্রামের রৌমারী উপজেলার কাউয়ারচর গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

হৃদয় হোসেন উপজেলার দাঁতভাঙ্গা ইউনিয়নের কাউয়ারচর গ্রামের জিনাত আলীর ছেলে। সে কাউয়ার চর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পঞ্চম শ্রেণির ছাত্র।

এ বিষয়ে রৌমারী হাসপাতালের মেডিকেল অফিসার ডা. আরিফ হোসেন বলেন, শিশুটিকে বিষধর সাপে কেটেছিল। হাসপাতালে আসার আগেই তার মৃত্যু হয়েছে।

নিহতের পিতা জিনাত আলী জানান, বুধবার দুপুরে হৃদয় হোসেন বাড়ির পাশে পুকুরপাড়ে অন্যান্য শিশুদের সঙ্গে খেলতে গেলে বিষধর সাপ তাকে কামড় দেয়। পরে তার চিৎকারে আশপাশের লোকজন উদ্ধার করে রৌমারী হাসপাতালে নিলে চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

এলাকার বীর মুক্তিযোদ্ধা আজিজুর রহমান বলেন, রৌমারী হাসপাতালে বিষধর সাপে কাটা রোগীর অবস্থা পরীক্ষা-নিরীক্ষার যন্ত্রপাতি ও ভ্যাকসিন না থাকায় প্রতি বছর চিকিৎসার অভাবে প্রাণ হারাচ্ছেন অনেকে। উপজেলা পর্যায়ে ভ্যাকসিন সরবরাহের জন্য ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের কাছ জোর দাবি জানাচ্ছি।

কুড়িগ্রামের সিভিল সার্জন ডা. হাবিবুর রহমান জানান, সাপে কাটা রোগীর জন্য ‘আইসিইউ’ সাপোর্ট প্রয়োজন হয়। সেই ব্যবস্থা উপজেলা পর্যায়ে না থাকার কারণে এ সংক্রান্ত ভ্যাকসিন উপজেলা পর্যায়ে সরবরাহ করা হয় না। উপজেলা পর্যায়ে সাপে কাটা রোগী পেলে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে জেলা সদরে পাঠিয়ে দেন চিকিৎসকরা।

খেলতে গিয়ে সাপের কামড়, হাসপাতালে নেয়ার আগেই শিশুর মৃত্যু

 কুড়িগ্রাম প্রতিনিধি 
১৭ মার্চ ২০২১, ১০:৩৪ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

খেলতে গিয়ে বিষধর সাপের কামড়ে হৃদয় হোসেন (১১) নামের এক স্কুলছাত্রের মৃত্যু হয়েছে। তাকে সাপে কামড় দেয়ার সঙ্গে সঙ্গে হাসপাতালে নেয়া হয়। তবে হাসপাতালে নেয়ার আগে পথেই তার মৃত্যু হয়।

বুধবার দুপুরে কুড়িগ্রামের রৌমারী উপজেলার কাউয়ারচর গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

হৃদয় হোসেন উপজেলার দাঁতভাঙ্গা ইউনিয়নের কাউয়ারচর গ্রামের জিনাত আলীর ছেলে। সে কাউয়ার চর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পঞ্চম শ্রেণির ছাত্র।

এ বিষয়ে রৌমারী হাসপাতালের মেডিকেল অফিসার ডা. আরিফ হোসেন বলেন, শিশুটিকে বিষধর সাপে কেটেছিল। হাসপাতালে আসার আগেই তার মৃত্যু হয়েছে।

নিহতের পিতা জিনাত আলী জানান, বুধবার দুপুরে হৃদয় হোসেন বাড়ির পাশে পুকুরপাড়ে অন্যান্য শিশুদের সঙ্গে খেলতে গেলে বিষধর সাপ তাকে কামড় দেয়। পরে তার চিৎকারে আশপাশের লোকজন উদ্ধার করে রৌমারী হাসপাতালে নিলে চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

এলাকার বীর মুক্তিযোদ্ধা আজিজুর রহমান বলেন, রৌমারী হাসপাতালে বিষধর সাপে কাটা রোগীর অবস্থা পরীক্ষা-নিরীক্ষার যন্ত্রপাতি ও ভ্যাকসিন না থাকায় প্রতি বছর চিকিৎসার অভাবে প্রাণ হারাচ্ছেন অনেকে। উপজেলা পর্যায়ে ভ্যাকসিন সরবরাহের জন্য ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের কাছ জোর দাবি জানাচ্ছি।

কুড়িগ্রামের সিভিল সার্জন ডা. হাবিবুর রহমান জানান, সাপে কাটা রোগীর জন্য ‘আইসিইউ’ সাপোর্ট প্রয়োজন হয়। সেই ব্যবস্থা উপজেলা পর্যায়ে না থাকার কারণে এ সংক্রান্ত ভ্যাকসিন উপজেলা পর্যায়ে সরবরাহ করা হয় না। উপজেলা পর্যায়ে সাপে কাটা রোগী পেলে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে জেলা সদরে পাঠিয়ে দেন চিকিৎসকরা।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন