গ্রেফতার এড়াতে শরীরে পেট্রোল ঢেলে আত্মহত্যা
jugantor
গ্রেফতার এড়াতে শরীরে পেট্রোল ঢেলে আত্মহত্যা

  সিরাজগঞ্জ প্রতিনিধি  

১৮ মার্চ ২০২১, ১৪:২৩:৫১  |  অনলাইন সংস্করণ

গ্রেফতার এড়াতে শরীরে পেট্রোল ঢেলে আত্মহত্যা

সিরাজগঞ্জে গ্রেফতার এড়াতে শরীরে পেট্রোল ঢেলে আগুন ধরিয়ে আত্মহত্যা করলেন জুয়েল রানা (৩৫) নামে এক যুবক। এ সময় ঘরে থাকা তিনটি চোরাই মোটরসাইকেল পুড়ে যায়।

পুলিশের দাবি, নিহত জুয়েল আন্তঃজেলা মোটরসাইকেল চোরের গ্যাং লিডার। তার বিরুদ্ধে সিরাজগঞ্জ, টাঙ্গাইল, মানিকগঞ্জ ও বগুড়া জেলার বিভিন্ন থানায় মোটরসাইকেল চুরিসহ বিভিন্ন অভিযোগে ১১টি মামলা রয়েছে।

বুধবার সন্ধ্যায় সিরাজগঞ্জ সদর উপজেলার যমুনার দুর্গম চরাঞ্চল মেছড়া ইউনিয়নের গটিয়ারচরে এ ঘটনা ঘটে। নিহত জুয়েল রানা ওই গ্রামের আলমগীর হোসেন আলমের ছেলে।

অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) স্নিগ্ধ আখতার জানান, জুয়েল রানার বিরুদ্ধে সিরাজগঞ্জ, টাঙ্গাইল, মানিকগঞ্জ ও বগুড়া জেলার বিভিন্ন থানায় মোটরসাইকেল চুরিসহ বিভিন্ন অভিযোগে ১১টি মামলা রয়েছে। এর মধ্যে সাজাসহ ৯টি মামলায় গ্রেফতারি পরোয়ানা রয়েছে।

গ্রেফতারি পরোয়ানা তামিল করতে বুধবার বিকালে সদর থানা পুলিশ তার বাড়িতে অভিযান চালায়। এ সময় জুয়েল রানা চারটি চোরাই মোটরসাইকেলসহ নিজ ঘরে অবস্থান করছিলেন।

পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে তিনি দরজা-জানালা বন্ধ করে ঘরের মধ্যে বসেছিলেন। এ সময় আত্মসমর্পণের জন্য তাকে বারবার ডাকাডাকি করা হলেও তিনি শোনেননি। পরে স্থানীয় চেয়ারম্যান আবদুল মজিদ মাস্টার ও ইউপি সদস্য জহুরুল ইসলামকে ডেকে আনা হয়। তারাও ঘটনাস্থলে গিয়ে জুয়েল রানাকে আত্মসমর্পণের জন্য অনুরোধ করেন।

এরই একপর্যায়ে ঘরের ভেতর আগুন জ্বলতে দেখা যায়। এ সময় পুলিশ দরজা ভেঙে ঘরে ঢুকে পড়ে এবং অগ্নিদগ্ধ জুয়েল রানার মরদেহ উদ্ধার করে। এ ছাড়া ঘরে থাকা তিনটি চোরাই মোটরসাইকেলও পুড়ে যায়।

মেছড়া ইউপি চেয়ারম্যান আবদুল মজিদ মাস্টার জানান, পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে জুয়েল রানা তার নিজ ঘরের দরজা-জানালা বন্ধ করে অবস্থান নেন। এ সময় পুলিশ বারবার তাকে আত্মসমর্পণের জন্য ডাকাডাকি করে। কিন্তু তাকে যতবারই ডাকা হয় ততবারই তিনি ভেতর থেকে টেঁটা দিয়ে আঘাত করার চেষ্টা করেন। পরে পুলিশ আমাকে ও জহরুল মেম্বরকে ডেকে আনেন।
আমরাও তাকে আত্মসমর্পণ করাতে অনেক চেষ্টা করি। একপর্যায়ে জুয়েল রানা ঘরের মধ্যে থাকা চোরাই মোটরসাইকেলের পেট্রোল শরীরে ঢেলে আগুন ধরিয়ে দেয়।

বৃহস্পতিবার সকালে সদর থানার ওসি বাহাউদ্দিন ফারুকী জানান, নিহত জুয়েল রানার মরদেহ উদ্ধার করে সিরাজগঞ্জ বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব জেনারেল হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। ময়নাতদন্ত শেষে মরদেহ পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হবে। এ ব্যাপারে ইউডি মামলা হয়েছে।

গ্রেফতার এড়াতে শরীরে পেট্রোল ঢেলে আত্মহত্যা

 সিরাজগঞ্জ প্রতিনিধি 
১৮ মার্চ ২০২১, ০২:২৩ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
গ্রেফতার এড়াতে শরীরে পেট্রোল ঢেলে আত্মহত্যা
ফাইল ছবি

সিরাজগঞ্জে গ্রেফতার এড়াতে শরীরে পেট্রোল ঢেলে আগুন ধরিয়ে আত্মহত্যা করলেন জুয়েল রানা (৩৫) নামে এক যুবক। এ সময় ঘরে থাকা তিনটি চোরাই মোটরসাইকেল পুড়ে যায়।

পুলিশের দাবি, নিহত জুয়েল আন্তঃজেলা মোটরসাইকেল চোরের গ্যাং লিডার। তার বিরুদ্ধে সিরাজগঞ্জ, টাঙ্গাইল, মানিকগঞ্জ ও বগুড়া জেলার বিভিন্ন থানায় মোটরসাইকেল চুরিসহ বিভিন্ন অভিযোগে ১১টি মামলা রয়েছে।  

বুধবার সন্ধ্যায় সিরাজগঞ্জ সদর উপজেলার যমুনার দুর্গম চরাঞ্চল মেছড়া ইউনিয়নের গটিয়ারচরে এ ঘটনা ঘটে। নিহত জুয়েল রানা ওই গ্রামের আলমগীর হোসেন আলমের ছেলে।  

অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) স্নিগ্ধ আখতার জানান, জুয়েল রানার বিরুদ্ধে সিরাজগঞ্জ, টাঙ্গাইল, মানিকগঞ্জ ও বগুড়া জেলার বিভিন্ন থানায় মোটরসাইকেল চুরিসহ বিভিন্ন অভিযোগে ১১টি মামলা রয়েছে। এর মধ্যে সাজাসহ ৯টি মামলায় গ্রেফতারি পরোয়ানা রয়েছে।

গ্রেফতারি পরোয়ানা তামিল করতে বুধবার বিকালে সদর থানা পুলিশ তার বাড়িতে অভিযান চালায়। এ সময় জুয়েল রানা চারটি চোরাই মোটরসাইকেলসহ নিজ ঘরে অবস্থান করছিলেন।

পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে তিনি দরজা-জানালা বন্ধ করে ঘরের মধ্যে বসেছিলেন। এ সময় আত্মসমর্পণের জন্য তাকে বারবার ডাকাডাকি করা হলেও তিনি শোনেননি। পরে স্থানীয় চেয়ারম্যান আবদুল মজিদ মাস্টার ও ইউপি সদস্য জহুরুল ইসলামকে ডেকে আনা হয়। তারাও ঘটনাস্থলে গিয়ে জুয়েল রানাকে আত্মসমর্পণের জন্য অনুরোধ করেন।

এরই একপর্যায়ে ঘরের ভেতর আগুন জ্বলতে দেখা যায়। এ সময় পুলিশ দরজা ভেঙে ঘরে ঢুকে পড়ে এবং অগ্নিদগ্ধ জুয়েল রানার মরদেহ উদ্ধার করে। এ ছাড়া ঘরে থাকা তিনটি চোরাই মোটরসাইকেলও পুড়ে যায়।  

মেছড়া ইউপি চেয়ারম্যান আবদুল মজিদ মাস্টার জানান, পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে জুয়েল রানা তার নিজ ঘরের দরজা-জানালা বন্ধ করে অবস্থান নেন। এ সময় পুলিশ বারবার তাকে আত্মসমর্পণের জন্য ডাকাডাকি করে। কিন্তু তাকে যতবারই ডাকা হয় ততবারই তিনি ভেতর থেকে টেঁটা দিয়ে আঘাত করার চেষ্টা করেন। পরে পুলিশ আমাকে ও জহরুল মেম্বরকে ডেকে আনেন।
আমরাও তাকে আত্মসমর্পণ করাতে অনেক চেষ্টা করি। একপর্যায়ে জুয়েল রানা ঘরের মধ্যে থাকা চোরাই মোটরসাইকেলের পেট্রোল শরীরে ঢেলে আগুন ধরিয়ে দেয়।  

বৃহস্পতিবার সকালে সদর থানার ওসি বাহাউদ্দিন ফারুকী জানান, নিহত জুয়েল রানার মরদেহ উদ্ধার করে সিরাজগঞ্জ বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব জেনারেল হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। ময়নাতদন্ত শেষে মরদেহ পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হবে। এ ব্যাপারে ইউডি মামলা হয়েছে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন